বুধবার ১ বৈশাখ ১৪২৮, ১৪ এপ্রিল ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আদেশ না থাকার পরও রাজশাহী থেকে বগুড়ার আদালতে

  • তুফান পরিবারেরহাতে নির্যাতিত মা ও মেয়ে

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ ধর্ষিতা তরুণী ও তার নির্যাতিত মায়ের বুধবার বগুড়া আদালতে হাজিরার কোন আদেশ না থাকার পরও রাজশাহী সেফহোম ও ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার থেকে তাদের বগুড়া আদালতে হাজির করা হয়। কে বা কারা কিভাবে তাদের আদালতে আনল তা একটি বড় প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে সাধারণের মধ্যে চলছে নানা গুঞ্জন। এই বিষয়ে খোঁজখবর করার জন্য সংবাদকর্মীরা আদালত প্রাঙ্গণে গেলে বলা হয় ‘সাংবাদিকদের প্রবেশ নিষেধ করা হয়েছে।’ পরে সাংবাদিকরা শিশু আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটারের (পিপি) সঙ্গে কথা বলেন। তিনি জানান, আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের প্রবেশ নিষেধ করা হয়নি। তাহলে কে প্রচার করল এ কথাটি! সব মিলিয়ে পুরো ঘটনাটি জট পাকিয়েছে।

স্পেশাল পিপি আমানউল্লাহ জানান, কয়েকজন এ্যাডভোকেট দুপুরের দিকে ওই আদালতে গিয়ে বিচারককে বলেন, ধর্ষিতা তরুণী ও তার মা এখন নিজেদের নিরাপত্তাহীনতা মনে করছেন না। তারা স্বেচ্ছায় নিজেদের জিম্মায় থাকতে চান। ধর্ষিতার বাবা নির্যাতিতার স্বামী ইয়াকুব আলী স্ত্রী ও মেয়েকে নিজের জিম্মায় নেয়ার জন্য আবেদন করেন। এ সময় আদালতের বিচারক নথি খুঁজে দেখেন আদালতে ওই মা ও মেয়েকে বুধবার হাজির করার আদেশ নেই। এই অবস্থায় বিচারক ইয়াকুব আলীর আবেদন গ্রহণ না করে পুনরায় মেয়েকে রাজশাহী সেফহোমে ও মা’কে রাজশাহী ভিকটিম সেন্টারে পাঠাবার আদেশ দেন। উল্লেখ্য, একই আদালত বগুড়ার ঘটনার পর মেয়ে ও মা’কে নিরাপত্তাজনিত কারণে যথাক্রমে রাজশাহী সেফহোম ও রাজশাহী ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে পাঠানোর আদেশ দেয়। ওই সময় আদালত মেয়ের বাবার কাছে জানতে চেয়েছিলেন তিনি জিম্মায় নিতে রাজি আছেন কি না। তখন মেয়ের বাবা ইয়াকুব আলী নিরাপত্তাজনিত কারণে নিজের জিম্মায় নিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। এই মামলার বাদী মেয়ের নির্যাতিতা মা। স্পেশাল পিপি জানান, বুধবার আদালতে এই মামলায় একটি তারিখ ছিল। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) আদালতে এসে মামলার অগ্রগতি জানাবার কথা। মামলার আইও সাব ইন্সপেক্টর আবুল কালাম আজাদ এদিন জরুরী কাজে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ছিলেন। তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। তারপরও কিভাবে ধর্ষিতা মেয়ে ও তার নির্যাততা মা’কে রাজশাহী থেকে আনা হলো! এই বিষয়ে রাজশাহীর টিএসআই মাহবুবেব সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জানান, সেফহোম ও ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার থেকে মেয়ে ও মাকে আদালতে হাজিরার কথা বলা হয়। উল্লেখ্য, গেল জুলাই মাসের ১৭ তারিখে বগুড়ার দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারি তুফান সরকার মাধ্যমিক উত্তীর্ণ এক শিক্ষার্থীকে ভাল কলেজে ভর্তির প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর তুফান সরকারের স্ত্রী, জ্যাঠাশ ও শাশুড়ি এবং ক্যাডাররা ধর্ষিতা মেয়ে ও তার মাকে বর্বরোচিত নির্যাতন চালিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দেয়।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
১৩৬১৩০০৪৩
আক্রান্ত
৬৯৭৯৮৫
সুস্থ
১০৯৫১৪৯৭৭
সুস্থ
৫৮৫৯৬৬
শীর্ষ সংবাদ:
সবার আগে জীবন ॥ বেঁচে থাকলে আবার সব গুছিয়ে নিতে পারব         সর্বাত্মক লকডাউন শুরু         ঘুরে দাঁড়ানোর নতুন স্বপ্ন নিয়ে এসেছে বৈশাখ         আতিকউল্লাহ খান মাসুদের মৃত্যুতে শোক অব্যাহত         শুরু হলো পবিত্র মাহে রমজান         হাসপাতালে ঠাঁই মিলছে না রোগীদের         খালেদার চিকিৎসা বাসায় রেখেই করা হবে         ভেঙ্গে যাচ্ছে বাবুনগরী মামুনুলদের হেফাজত         জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্রোতের মতো ঢাকা ছাড়ে মানুষ         করোনায় মৃত্যু কমেছে         অবকাঠামো নির্মাণ কাজ লকডাউনের মধ্যেও চলবে         সরকার জনগণের ওপর শাটডাউন চাপিয়েছে ॥ ফখরুল         হেফাজত এখন ব্যাকফুটে         শেষ মুহূর্তে নিত্যপণ্য কেনাকাটার হিড়িক         আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ, প্রবাসীদের ফেরা নিয়ে অনিশ্চয়তা         স্বাস্থ্যের সব প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার নির্দেশ, কর্মস্থল ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা         ঘরে বসে পয়লা বৈশাখ উপভোগ করুন : প্রধানমন্ত্রী         পবিত্র মাহে রমজানের মোবারকবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী         মানুষের জীবন সর্বাগ্রে : জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী         চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে রোজা