ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

রাজধানীতে ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধা খুন, কেউ গ্রেফতার হয়নি

প্রকাশিত: ০৬:১১, ৩০ জুন ২০১৭

রাজধানীতে ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধা খুন, কেউ গ্রেফতার হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর উত্তরখানে নিজ বাড়িতে ছুরিকাঘাতে খুন হলেন আবেদা বেগম নামের এক বৃদ্ধা। তাকে নির্মমভাবে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকা-ের সময় ওই বৃদ্ধা ফজরের নামাজ আদায় করার জন্য অজু করছিলেন। হত্যাকা-ের প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। তবে বাড়ির রাস্তা নিয়ে দ্বন্দ্বের সূত্র ধরে হত্যাকা-ের ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে বলে নিহতের বোন জামাইয়ের ধারণা। এ ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি। তবে চেষ্টা চলছে। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে উত্তরখানের ধোপাদিয়া বেপারি পাড়ার ৬৩/২/এ নম্বর একতলা টিনশেড বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গ থেকে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলেই নিহতের দাফন সম্পন্ন হয় গাজীপুর জেলার কালিগঞ্জের গ্রামের বাড়িতে। এ ঘটনায় নিহতের বড় বোনের জামাই আব্দুর রাজ্জাক (৮০) বাদী হয়ে অজ্ঞাত খুনীদের আসামি করে উত্তরখান থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার বাদী জনকণ্ঠকে বলেন, নিহত আবেদা বেগমরা চার বোন। আবেদা ছিল সবার ছোট। আবেদার বাবা-মা আগেই মারা যান। অনেক আগেই স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। আবেদার ঘরে আদুরি (১৮) নামের এক মেয়ে রয়েছে। সে স্থানীয় একটি কলেজ থেকে এবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে। স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর থেকেই এককাঠা জমির ওপর নির্মিত টিনশেড নিজ বাড়িটিতেই মেয়েকে নিয়ে বসবাস করছিল। ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর থেকেই মেয়ের ভরণপোষণ বাবদ স্বামী মাসিক ৫ হাজার টাকা করে দিয়ে আসছিল। তাতেই মা মেয়ের সংসার চলত। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান, বুধবার রাত চারটার দিকে প্রতিদিনের মতো আবেদা ঘুম থেকে ওঠে। ফজরের নামাজ আদায় করার জন্য বাড়ির সামনে থাকা টিউবওয়েলে অজু করতে যায়। এ সময় কে বা কারা আবেদাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে হত্যা করে পালিয়ে যায়। বাড়ির কাছের রাস্তা নিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে আবেদার ঝামেলা ছিল বলে শুনেছি। তবে তার জের ধরে নাকি অন্য কোন কারণে হত্যাকা-ের ঘটনাটি ঘটেছে তা তিনি নিশ্চিত নন। উত্তরখান থানার ওসি শেখ সিরাজুল হক জানান, হত্যাকা-ের কারণ জানার চেষ্টা চলছে। বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ছয়টা পর্যন্ত এ ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি। মমতার সাহায্য চাইলেন এরশাদ কোচবিহারে ভিটারক্ষা কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ কোচবিহারে পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষার জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাহায্য চেয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সে অনুযায়ী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনিক ব্যবস্থাও গ্রহণ করেছেন। বৃহস্পতিবার ভারতের দ্যা হিন্দু পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের সাবেক সেনা প্রধানের পৈত্রিক সম্পত্তির ওপরে অবৈধভাবে একটি মন্দির প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চলছিল। কোচবিহারের দিনহাটায় এই মন্দির প্রতিষ্ঠার বিরুদ্ধে এরশাদের আত্মীয়স্বজনরা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেন। তবে সেই অভিযোগ আমলে নেয়নি প্রশাসন। এরপর হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কাছে তার স্বজনরা বিষয়টি অবহিত করেন। এ প্রেক্ষিতে এরশাদ মমতার কাছে পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষার জন্য অনুরোধ করেন। এরশাদের অনুরোধে মমতা প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিয়েছেন।
monarchmart
monarchmart