ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

ভগ্নিপতিকে খুন করে শ্যালক থানায় ॥ লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ০৪:১৫, ১৮ অক্টোবর ২০১৬

ভগ্নিপতিকে খুন করে শ্যালক থানায় ॥ লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ভগ্নিপতিকে খুন করে থানায় এসে স্বীকারোক্তি দিলেন শ্যালক। বললেন, বোনকে নির্যাতন করায় হত্যা করেছি। পরে পুলিশ তাকে নিয়ে বাসা থেকে উদ্ধার করে বস্তাবন্দী মরদেহ। ঘটনাটি ঘটেছে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি থানার টেরিবাজার আফিনী গলির পূজার মাঠের পাশে একটি ভবনে। কোতোয়ালি থানা সূত্রে জানা যায়, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত অঞ্জন ধর (৩৫) হাজারী গলির একজন স্বর্ণাকার। তার ৭ বছর বয়সী একটি মেয়ে ও ৩ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। শ্যালক বাবুল ধরও (২১) স্বর্ণের দোকানের কর্মচারী। ঘটনাটি ঘটে রবিবার সকালে। আর পুলিশ বাসা থেকে লাশ উদ্ধার করে সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে। হত্যাকারী শ্যালক বাবুল ধর সোমবার সকালে থানায় এসে জানায় যে, সে তার ভগ্নিপতি অঞ্জনকে খুন করেছে। বিভিন্ন সময়ে অঞ্জন তার বোনের ওপর নির্যাতন চালাত। তাদের দাম্পত্য কলহ ছিল। সহ্য করতে না পেরে সে ভগ্নিপতিকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। রবিবার সকালে তার বোন দুই জনকে নিয়ে স্কুলে যাওয়ার পরই সে এই হত্যাকা- ঘটিয়ে বাইরে থেকে বাসায় তালা দিয়ে চলে যায়। আর বোনকে বলে যে, অঞ্জন মানিকছড়ি গেছেন। পরে বোন বাসায় ফিরে দরজায় তালা দেখে চলে যান। কোতোয়ালি থানার এসআই সুমিত দাশ জানান, বাসার চাবিটি শ্যালক বাবুল ধরের কাছেই ছিল। স্বীকারোক্তির পর তাকে নিয়েই তালা খুলে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়, যা ছিল বস্তাবন্দী অবস্থায়। এ সময় সেখান থেকে রক্তমাখা ছোরাও উদ্ধার করা হয়। নিহত অঞ্জনের গলায় ও শরীরে বিভিন্ন অংশে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২