রবিবার ৫ বৈশাখ ১৪২৮, ১৮ এপ্রিল ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আজব হলেও গুজব নয়

একটি সুইয়ের চমক!

সাইবেরিয়ার একটি গুহায় বিজ্ঞানীরা ৫০ হাজার বছরের পুরনো একটি সুই খুঁজে পেয়েছেন। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, সেটি এখনও ব্যবহার উপযোগী রয়েছে। আবিষ্কারের পর পরীক্ষাগারে নিয়ে বিশেষভাবে পরীক্ষা করে দেখা গেছে, প্রাচীন এক পাখির হাড় দিয়ে সুইটি তৈরি করা হয়েছিল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুইটি তৈরি করে মানব জাতির বিলুপ্ত প্রজাতি ডেনিসোভানরা। আর এটি পাওয়া গেছে রাশিয়ার ডেনিসোভা গুহায়। সেখানে গত তিন দশক ধরে খননের কাজ চলছে। নভোসিবিরস্কের ইনস্টিটিউট অফ আর্কিওলজির প্রধান প্রফেসর মিখাইল শানকভ বলেন, ‘বর্তমান সময়ের সবচেয়ে চমক লাগানো এক আবিষ্কার এটি। হাড়ের তৈরি এই সুঁই মানব ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাচীন। এর বয়স ৫০ হাজার বছর।’

সে সময়ের ডেনিসোভান মানুষরা ধারণার বাইরে বুদ্ধিমান ছিল, এই আবিষ্কার সেটাই প্রমাণ করে বলছেন বিজ্ঞানীরা। ডেনিসোভা গুহা খনন প্রকল্পের প্রধান ড. মাকসিম কজলিকিন বলেন, ‘এটা ডেনিসোভা গুহায় পাওয়া সবচেয়ে বড় সুই। এর আগেও কিছু সুই পেয়েছিলাম আমরা, কিন্তু সেগুলো ছিল ছোট।’বিশেষজ্ঞরা এটা নিশ্চিত হয়েছেন যে, ওই সুই তৈরি করেছিল ডেনিসোভান পূর্বপুরুষরা। প্রাচীন মানব প্রজাতি ডেনিসোভানরা ছাড়াও হোমো সেপিয়েন্স, নিয়েনডারথালরা ওই গুহা ব্যবহার করেছে প্রায় ২ লাখ ৮৮ হাজার বছর আগে থেকে। ২০০৮ সালে গুহাটিতে এক তরুণী বসবাস করত বলে প্রমাণ পেয়েছে বিজ্ঞানীরা। ধারণা করা হয় ওই তরুণী ৪১ হাজার বছর আগে গুহাটিতে ছিল। তখন সেখান থেকে প্রায় ৪০ হাজার বছর আগের একটি ব্রেসলেট পাওয়া যায়। এতে এমন একটি গর্ত করা ছিল যা বর্তমান সময়ে ড্রিল দিয়ে গর্ত করার মতো। সে সময়ে এ ধরনের প্রযুক্তি কীভাবে পেল গুহা মানবরা, বিষয়টি ভাবিয়ে তোলে বিজ্ঞানীদের। আর ৫০ হাজার বছরের পুরনো সুই যে প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয়, সেটিও ভাবনার বিষয় বিজ্ঞানীদের জন্য। মজার ব্যাপার হলো, এটি এখনও ব্যবহার উপযোগী!

আংটি জানাবে প্রিয়জনের হৃদস্পন্দন

শিরোনাম পড়ে আপনি হয়ত ভাবছেন- একটি আংটির এত গুণ! হাজার মাইল দূর থেকেও লাইফ পার্টনারের হৃদস্পন্দন স্পষ্ট উপলব্ধি করাবে। সত্যি কি সম্ভব? হ্যাঁ, সত্যি। প্রযুক্তিনির্ভর প্রতিষ্ঠান ‘টাচ’ এবার নিয়ে এসেছে এমন একটি আংটি, যেটি ব্যবহার করে আপনি শত বা হাজার মাইল দূরে থাকলেও আপনার পার্টনারের হৃদস্পন্দন সঠিকভাবেই জানতে পারবেন। বলা হচ্ছে, এটি বিশ্বের সবচেয়ে স্পেশাল আংটি। ‘টাচ এইচ রিং’ নামের এই আংটি আপনার প্রিয়জনের হৃদস্পন্দন পাঠাতে বা গ্রহণ করতে পারবে। এর জন্য যা করতে হবে, তা হলো স্মার্টফোনে এ সংক্রান্ত এ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। এরপর আংটির সঙ্গে ওই এ্যাপ সংযুক্ত করতে হবে। আর আপনার প্রিয়জনের প্রোফাইলটাও যোগ করতে হবে এ্যাপে। আপনি ও আপনার পার্টনারের আঙুলে থাকতে হবে আংটিটি। এরপর যখনই আপনি যতদূর থেকেই ওই আংটিতে আলতো চাপ দেবেন, তখন প্রিয়জনের হৃদস্পন্দন উপলব্ধি করতে পারবেন। মজার ব্যাপার তাই না? প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে, এই বিশেষ আংটিগুলো স্টেইনলেস স্টিল, রোজ গোল্ড, মূল্যবান নীলা পাথর এসব দিয়ে তৈরি। আর প্রচলিত স্বর্ণের তুলনায় এটি বেশ শক্ত, দাগ বা পানি নিরোধক। শুধু তাই নয়, এতে আছে একটি ব্যাটারি, চার্জিং কানেকটর, মাল্টি ডাইমেনশনাল মাদারবোর্ড, সেন্সর ও একটি ফিজিকাল ফিডব্যাক মোটর।

মাত্র ৩.৮ মিলিমিটার মোটা ও ১২.১ মিলিমিটার চওড়া এই ছোট আংটিতে এতসব চমক যেহেতু আছে, তাই স্বাভাবিকভাবেই এর দামও চড়া। রোজ গোল্ডে তৈরি আংটির মূল্য ধরা হয়েছে ৩ হাজার ডলার। স্টেইনলেস স্টিলের আংটির দাম হবে ৬০০ ডলার। আগামী নবেম্বর থেকে বাজারে আসবে ১৮ ক্যারেট স্বর্ণের এই আংটি।

আহমেদ শরীফ

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
১৩৯৮০৯২৪৪
আক্রান্ত
৭১১৭৭৯
সুস্থ
১১৮৮৩৬২৩৩
সুস্থ
৬০২৯০৮
শীর্ষ সংবাদ:
আর হয়রানি নয় ॥ অনলাইনে ভূমি ব্যবস্থাপনা         বাঁশখালীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ         মুজিবনগর দিবসে অপশক্তিকে পরাস্ত করার শপথ         আতিকউল্লাহ খান মাসুদের মৃত্যুতে শোক অব্যাহত         বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবরী         ফেসবুকের পোস্টটিই শাহীনের জন্য কাল হয়ে দাঁড়াল         করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আবারও ১০১ রোগীর মৃত্যু         বিশেষ ফ্লাইটের প্রথম দিনেই হোঁচট         এবারের নির্বাচনে তৃণমূল সাফ হয়ে যাবে         বিএনপি-জামায়াত হেফাজতের ৪ শতাধিক নেতাকর্মী পলাতক         লকডাউনে কারখানা মালিকরা পরিবহনের ব্যবস্থা করেননি         বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ৪৬৭ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক         বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে         খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল         জলবায়ু বাস্তুচ্যুতদের জন্য ‘বিশেষ বৈশ্বিক উদ্যোগ’ দাবি নাগরিক সমাজের         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১০১         বাঁশখালী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ ॥ নিহত ৫         মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা         বনানী কবরস্থানে চিরশায়িত হলেন কবরী         “করোনা ও সাম্প্রদায়িক শক্তিকে পরাজিত করাই বর্তমানে বড় চ্যালেঞ্জ”