ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯

মাদকসেবীর রোষানলে পড়ে খুন হলো দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র হৃদয়

প্রকাশিত: ০৫:২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬

মাদকসেবীর রোষানলে পড়ে খুন হলো দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র হৃদয়

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর, ২২ সেপ্টেম্বর ॥ নালিতাবাড়ীতে মাদকসেবী এক পাষ- যুবকের রোষানলে পড়ে খুন হয়েছে হৃদয় মিয়া (৮) নামে এক শিশু। নিখোঁজের তিন দিন পর বৃহস্পতিবার দুপুরে শেওড়াতলী গ্রামের একটি পুকুর থেকে ওই শিশুর ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত হৃদয় জয়নদ্দিনপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র ও স্থানীয় দরিদ্র তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। বিকেলে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে নিহত হৃদয়ের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ওই ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। অন্যদিকে এলাকায় শুরু হয়েছে ব্যাপক তোলপাড়। জানা যায়, গত মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে এলাকায় খেলার সাথীদের সঙ্গে বেরিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি শিক্ষার্থী হৃদয় মিয়া। অনেক খোঁজাখুঁজির পর হৃদয়কে না পেয়ে বুধবার আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় নিখোঁজ সংবাদের মাইকিং করে তার পরিবার। একপর্যায়ে বৃহস্পতিবার সকালে নালিতাবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে বাড়ি ফেরেন তার পিতা তোফাজ্জল হোসেন। এর কিছুক্ষণ পর দুপুর দেড়টার দিকে বাড়ির কাছে তোফাজ্জলেরই এক বছর মেয়াদী লিজ নেয়া একটি পুকুরে হৃদয়ের ভাসমান লাশ দেখেন এলাকাবাসী। পরে হৃদয়ের বাবা ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলের লাশ শনাক্ত করেন। ওই সময় লাশটি ফুলে-ফেঁপে ছিল। গলায় ও শরীরে ক্ষত-বিক্ষত চিহ্ন দেখা যায়। ধারণা করা হচ্ছে শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ পুকুরে ফেলা হয়েছে। পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাছ চাষের পুকুর লিজ নেয়া নিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী পরিবারের মিজানুর রহমান (৩৮) নামে এক মাদকসেবী যুবকের সঙ্গে নিহত শিশুর পিতা তোফাজ্জলের বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের জের ধরেই হৃদয়কে হত্যা করা হতে পারে। সূত্রমতে, মঙ্গলবার বিকেলে নিখোঁজের এক ঘণ্টা আগে স্থানীয় সাথীদের সঙ্গে খেলাধুলা করার সময় মাদকসেবী ওই যুবক দোকান থেকে হৃদয়কে সিগারেট নিয়ে দিতে বললে সে তা না শোনায় চটে যায় ওই যুবক। এর এক ঘণ্টা পরই নিখোঁজ হয় হৃদয়। এলাকাবাসীর ধারণা, নিখোঁজের দিনই হৃদয়কে হত্যা করে লাশ গুমের চেষ্টা করা হয়। এ বিষয়ে নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফছিহুর রহমান জানান, নিখোঁজের তিন দিন পর শিশু হৃদয়ের লাশ উদ্ধার হওয়ায় তা ফুলে-ফেঁপে গেছে। গলায় ও শরীরে জখমের মতো কিছু মনে হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ছাড়া এখনই তার মৃত্যুর কারণ বলা সম্ভব না হলেও অভিযোগ উঠেছে, এলাকার এক মাদকসেবী যুবকের সঙ্গে হৃদয়ের বাবার পূর্ববিরোধের জের ধরে সে রোষানলের শিকার হয়েছে। অভিযোগ থাকায় মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে।