সোমবার ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কয়লার অভাবে নওগাঁর ইটভাঁটিতে আগুন জ্বলছে না

বিশ্বজিৎ মনি, নওগাঁ ॥ চলতি মৌসুমে নওগাঁ জেলায় কয়লা সঙ্কটের কারণে ১১০ ইটভাঁটির মধ্যে প্রায় ৯০টিতেই এখন পর্যন্ত আগুন দেয়া হয়নি। যে ১৮-২০টি ভাঁটিতে আগুন দেয়া হয়েছে, তাতে ব্যবহার করা হচ্ছে বেশ কাঠ। এতে পরিবেশ দূষণ হলেও মালিকরা প্রয়োজনীয় খড়িও যোগাড় করতে পারছেন না। লাভের ভাবনা ছেড়ে, কোনভাবে খরচের টাকাটা উঠবে কিনা, এমন ভাবনা ভাঁটি মালিকদের পেয়ে বসেছে। ফলে মোটা অঙ্কের লোকসানের আশঙ্কায় হতাশ হয়ে পড়েছেন জেলার ইটভাঁটি মালিকরা। আগাম খরচের টাকা তোলার জন্য ভাঁটি মালিকদের কেউ কেউ বাধ্য হয়ে খড়ি ব্যবহার করছেন। এদিকে কয়লা অভাবে ইটভাঁটিগুলো বন্ধ হয়ে থাকায় জেলায় ২০ হাজারেরও বেশি ভাঁটি শ্রমিক পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

জানা গেছে, নওগাঁ জেলার ১১টি উপজেলায় ১১০টি ইটভাঁটি রয়েছে। মৌসুমের শুরু থেকে এসব ইটভাঁটিতে কাঁচা ইট তৈরি থেকে আরম্ভ করে পাকা ইট সরবরাহ পর্যন্ত প্রায় ২০ সহস্রাধিক শ্রমিক কাজ করে থাকে। এই মৌসুমে রাত দিন অবিরাম তাদের শ্রম বিক্রি করে পরিবারের ব্যয়ভার বহন করে থাকে।

নওগাঁ জেলা ইটভাঁটি মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি ও খিদিরপুর সুমি ব্রিকস্ ফিল্ডের স্বত্বাধিকারী মোঃ হারুন অর রশিদ জানান, শুধু কয়লার অভাবে জেলার ১১০টি ইটভাঁটির মধ্যে ১৮-২০টি ভাঁটিতে বিলম্বে হলেও আগুন দেয়া হয়েছে। বাকি ভাঁটিগুলোতে ইট তৈরির কাজও বন্ধ রাখা হয়েছে শুধু বিপুল পরিমাণ লোকসানের ভয়ে। ১০ হাজার টাকা টনের কয়লা দাম বেড়ে এবার ১৯ থেকে ২২ হাজার টাকা টন হয়েছে। এর পরেও পর্যাপ্ত মিলছে না। এই উচ্চ মূল্যে কয়লা কিনে ভাঁটি মালিকদের শুধু লোকসানই গুনতে হবে।

ঠাকুরগাঁওয়ে জ্বালানি তেল সঙ্কট চরমে

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও, ১৫ জানুয়ারি ॥ টানা অবরোধের কারণে ঠাকুরগাঁও জেলায় পেট্রোল ও ডিজেলের সঙ্কট চরম আকার ধারণ করেছে। জ্বালানি তেলের মজুদ না থাকায় অনেক পেট্রোল পাম্প বন্ধ রাখা হয়েছে। খোলা বাজারে প্রতি লিটার পেট্রোল ১১০ টাকা ও ডিজেল ৮৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এতে যেসব যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছিল সেগুলোও জ্বালানি তেলের সঙ্কটে অচল হয়ে পড়েছে। এর ফলে কৃষকরা চলতি বোরো মৌসুমে জ্বালানি তেল নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। জেলা পেট্রোল পাম্প মালিক সমিতি জানিয়েছেন, জ্বালানি তেলের মজুদ কমে যাওয়ায় বেশিরভাগ পাম্প বন্ধ রয়েছে। আর যেসব পাম্প চালু আছে সেসব পাম্পে তেলের মজুদ প্রায় শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে। এগুলো আগামী দু’একদিনের মধ্যে বন্ধ হয়ে যাবে। জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। জেলা প্রশাসন পুলিশের স্কট দিয়ে ডিপো থেকে জ্বালানি তেল সরবরাহের আশ্বাস দিয়েছেন।

কুমিল্লায় ১৫ কোটি টাকার সম্পত্তি দখলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা, ১৫ জানুয়ারি ॥ কুমিল্লায় সংখ্যালঘু কয়েকটি পরিবারের প্রায় ১৫ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন, মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ভুক্তভোগী পরিবারের নারী-পুরুষসহ স্থানীয় এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার বুড়িচং উপজেলার রামপাল-ফরিজপুর এলাকায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের পাশে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। রামপাল গ্রামের ভুক্তভোগী পরিবারের নেপাল চন্দ্র দেবনাথ, ঊষারঞ্জন দেবনাথ, গোপাল চন্দ্র দেবনাথসহ লোকজন অভিযোগ করে জানান, ওই এলাকার হাবিবুর রহমান হাবু, আবুল কালাম, হারুনুর রশীদসহ সহযোগীরা তাদের বিভিন্ন দাগের প্রায় ৫ একর মূল্যবান সম্পত্তি জবর দখল করে নিয়েছে, যার মূল্য প্রায় ১৫ কোটি টাকা। বিভিন্ন মামলা-মোকদ্দমায় জড়িয়ে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে। পরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তারা প্রতিকার দাবি করেন।

শীর্ষ সংবাদ:
‘বাংলাদেশের পরিস্থিতি শ্রীলঙ্কার মতো হওয়ার সুযোগ নেই’         নিবন্ধন ছাড়া কেউ ব্যবসা করতে পারবে না ॥ তাপস         আমরা বৈশ্বিক সমস্যার মধ্যে আছি ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী         দেশে ফিরতে চান পি কে হালদার         সম্রাটের উন্নত চিকিৎসা দরকার ॥ বিএসএমএমইউ         ‘রাজধানীতে বসে সমালোচনা না করে গ্রামে গিয়ে পরিবর্তনটা দেখুন’         আজ দিনের তাপমাত্রা বাড়তে পারে         স্পেনকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর         গুলশানে ৫০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২         অ্যালকোহল নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চ্যালেঞ্জ করে রিট         পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ চলছে         বাবার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন         রিজার্ভ নিয়ন্ত্রণে চ্যালেঞ্জ ॥ কঠোর অবস্থানে সরকার         পি কে হালদার তিন দিনের রিমান্ডে         ‘ফাতেমা’ ধানে নতুন আশা         দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার সাইমন্ডসের অকালমৃত্যু         এক হৃৎপিন্ডে জোড়া লাগা দুই শিশু         নিউইয়র্কে বাংলাদেশী অধ্যুষিত শহরে বন্দুক হামলা ॥ নিহত ১০         বছরে পানিতে ডুবে মারা যায় ১৯ হাজার শিশু         গমের বিকল্প উৎসের সন্ধান করছেন আমদানিকারকরা