ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

ডরিনকে ডেকেছে ভারতের সিআইডি

শংকর কুমার দে

প্রকাশিত: ২৩:৪৭, ২০ জুন ২০২৪

ডরিনকে ডেকেছে ভারতের সিআইডি

আনোয়ারুল আজিম আনার

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিনকে বৃহস্পতিবার ফোন করেছে ভারতের সিআইডি। ভারতের সিআইডি এক সপ্তাহের মধ্যে কলকাতায় যাওয়ার জন্য বলেছে এমপি আনার কন্যা ডরিনকে। ভারতের সিআইডি ফোনে তাকে কলকাতায় যাওয়ার কথা বলার বিষয়টি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)কে জানিয়েছেন তিনি। ডরিন কলকাতায় যাওয়ার সময়ে তার সঙ্গে যাবে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি)র একটি টিম।

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই ডরিন ও ডিবির একটি টিম ভারতের কলকাতায় যাচ্ছে। ভারতের কলকাতায় তার ডিএনএ টেস্ট হবে। সঞ্জীবা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংক থেকে যে মাংসপিন্ড পাওয়া গেছে তা ফরেনসিক রিপোর্টে মানুষের মাংসপি- বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই মাংসপি- এমপি আনারের কি না তা ডিএনএ টেস্ট করানোর জন্যই ভারতের কলকাতায় যাচ্ছেন মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র ও এমপি আনারকন্যা ডরিনের ঘনিষ্ঠ সূত্রে এ খবর জানা গেছে।
তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার ভারতে খুন হওয়ার ঘটনার নেপথ্যের কুশীলবরা ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে। পর্দার অন্তরাল থেকে অদৃশ্য প্রভাবশালী মহল কলকাঠি নেড়ে তদন্তে প্রভাব বিস্তার করার অভিযোগ উঠেছে। সোনা চোরাচালান নিয়ে এমপি আনার ভারতে খুন হয়েছেন বলে তদন্ত করে যাচ্ছেন ভারতের সিআইডি। অপরদিকে রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে তদন্ত করে যাচ্ছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তদন্তে তালগোল পাকিয়ে ফেলেছে বলে অভিযোগে উঠেছে। ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুকে ৮ দিনের রিমান্ডে এনে ৩ দিন জিজ্ঞাসাবাদ করার মাথায় কোনো ধরনের ১৬৪ ধারা জবানবন্দি ছাড়াই ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়ার ঘটনায় তদন্তে প্রভাব ফেলার বা চাপ সৃষ্টির ইঙ্গিত বহন করছে। এমপি আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন অভিযোগ করেছেন, অনেক  বড় জায়গা থেকে তদ্বির হচ্ছে, চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে, অভিযোগের আলামত ক্রমেই স্পষ্ট হচ্ছে।

এমপি আনার ১৩ মে খুন হওয়ার এক মাস ৭ দিন পরও তার লাশ না পাওয়ায় হত্যাকা-ের মামলার বিচারের ভবিষ্যৎ নিয়েও নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এই পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার ডরিনের কাছে ভারতের সিআইডি তাকে কলকাতায় যাওয়ার অনুরোধ পাওয়ার পর তদন্তে নয়া মোড় নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।
তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) এমপি আনার হত্যাকা-ের তদন্তের তৎপরতার ক্ষিপ্রতা অনেক কমে গেছে। এখন আর ডিবির কর্মকর্তারা এই হত্যাকা-ের তদন্ত নিয়ে আগের মতো মিডিয়ায় বেশি কথা তো বলছেনই না, বরং চুপসে গেছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সোনা চোরাচালানের বিষয়ে বেশি গুরুত্ব না দিয়ে রাজনৈতিক দ্বন্ধকে সামনে এনে রাজনৈতিক ব্যাক্তিদের টার্গেট করে গ্রেপ্তার করা, রিমান্ডে আনা, জিজ্ঞাসাবাদের মধ্যে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ে।

অথচ প্রথম থেকেই ভারতের সিআইডি তদন্তের বিষয়ে কথা বলেছে কম, কাজ করেছে বেশি। ভারতের সিআইডি এমপি আনার খুনের ঘটনায় রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের গন্ধও খুঁজে পায়নি। ভারতের সিআইডি প্রথম থেকেই সোনা চোরাচালানকে গুরুত্ব দিয়ে তদন্তে সাফল্য পাচ্ছে, কসাই সিয়ামকে গ্রেপ্তার করেছে, নেপাল থেকে ঘাতক সিয়ামকে ফিরিয়ে এনেছে, বাঘজোলা খাল থেকে হাড়গোড় উদ্ধার করেছে, সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে মাংসপি- উদ্ধার করে ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য পাঠিয়েছে। বাংলাদেশ ও ভারতের তদন্তের দ্বিমুখিতায় প্রশ্ন উঠেছে, সোনা চোরাচালান নাকি রাজনৈতিক দ্বন্দ্বে এমপি আনার খুন হয়েছেন ? 
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সচিবালয়ে তার দপ্তরে সাক্ষাৎ শেষে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন অভিযোগ করেছেন, অনেক বড় জায়গা থেকে তদ্বির হচ্ছে, এমন অভিযোগ করেছেন তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন। তদ্বিরের চাপে যাতে বিচার প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত না হয় সেজন্য যারা হত্যাকা- ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সঠিক বিচার নিশ্চিত করতে হবে।

মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন অভিযোগ করে বলেছেন, হত্যাকা-ের ঘটনায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তৎপরতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেছেন, শুরুতে যে তৎপরতা ডিবি দেখিয়েছিল, এখন তেমনটি নেই। হত্যাকা-ের সঙ্গে কারা জড়িত তাদের নামও আমি বলিনি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করে হত্যাকারীদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করেছে। মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দিন দিন কেন ডিবির তৎপরতা কমে যাচ্ছে? আমি বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি এখন নাকি চাপ আসছে। যার কারণে বাবার হত্যা মামলাটির কার্যক্রম দিন দিন কমে যাচ্ছে। ডিবির কার্যক্রমও কমে যাচ্ছে।
ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেছেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যা মামলার তদন্তে আটক করা ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুকে রক্ষায় কোনো তদ্বির নাই। এখানে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ বা এ ধরনের কোনো কিছুই আমাদের ওপর নেই। স্বাধীনভাবে কাজ করার জন্য আমাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেছেন, এমপি আনার হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্ত সঠিকভাবে এগিয়ে চলছে। তদন্তে কারও হস্তক্ষেপ বা কোনো চাপ নেই। স্বাধীনভাবে আমরা তদন্তের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

×