ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১

মেঘনায় গোসল করতে নেমে যুবক নিখোঁজ, ৪৫ ঘণ্টা পর ভেসে উঠল মরদেহ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রায়পুরা (নরসিংদী)

প্রকাশিত: ১৮:৪০, ১৮ জুন ২০২৪

মেঘনায় গোসল করতে নেমে যুবক নিখোঁজ, ৪৫ ঘণ্টা পর ভেসে উঠল মরদেহ

মরদেহ উদ্ধার খবরে নদীর পাড়ে উৎসুক জনতার ভিড়।

নরসিংদীর রায়পুরায় ঈদের আগের দিন বন্ধুদের সঙ্গে মেঘনায় গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়ার ৪৫ ঘণ্টা পর মৃদুল মিয়া (১৯) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকাল ৯টায় উপজেলার শ্রীনগর ইউনিয়নের ফকিরের চর এলাকার মেঘনা পাড় থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে নৌ পুলিশ। নিহত মৃদুল উপজেলার পলাশতলী ইউনিয়নের কমলপুর এলাকার অটোরিকশা চালক মুজিবর রহমান ছেলে এবং রাজধানীর একটি কারখানার শ্রমিক ছিল।

স্থানীয় সূত্র জানায়, রবিবার (১৬ জুন) দুপুরে চার বন্ধুর সঙ্গে উপজেলার পান্থশালা ফেরিঘাটে গোসল করতে নেমে স্রোতে তলিয়ে যান মৃদুল। এ সময় তাঁর তিন বন্ধুকে উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। বিকেলে খবর পেয়ে আসেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে অভিযান সমাপ্ত করেই চলে যান তারা। পরে আজ সকালে স্থানীয়রা ফকিরের চর মেঘনার পাড়ে একটি ভাসমান লাশ পান। পরে নৌ পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। উদ্ধার হওয়া লাশটি শনাক্ত করেন নিহত মৃদুলের স্বজনরা।

নিহত নানা মো. রউফ বলেন, মৃদুল আমার ভাইঝির সন্তান। সে তাদের একমাত্র সন্তান ছিল। একটি কলেজে একাদশ শ্রেনিতে ভর্তির পর রাজধানীতে একটি কারখানায় চাকরি করত মৃদুল। চার বন্ধুর সঙ্গে ঈদের আগের দিন পান্থশালা মেঘনা নদীতে নেমে নিখোঁজ ছিল। আজ তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 গোসলে নেমে মৃদুলের দুই বন্ধু সিয়াম ও জুবায়ের আহত হয়। তাদেরকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে দুজন সুস্থ আছে। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ আমার ভাইঝি ও তাঁর স্বামী। মৃদুলকে নিয়ে তাদের স্বপ্ন ছিল। সে এ ভাবে সবাইকে কাঁদিয়ে পরপারে চলে যাবে কেউ ভাবিনি।

সংবাদ পেয়ে সকালে নিহত মৃদুলের লাশ শনাক্ত করতে গিয়ে অচেতন হয়ে পড়েন বাবা মুজিবুর রহমান। পরে তাকে বাড়িতে নিয়ে যান স্বজনরা।

পলাশতলী ইউপি সদস্য শাহজাহান জানান, পরিবারের একমাত্র সন্তানের মৃত্যুতে ঈদের খুশি বিষাদে পরিণত হয়েছে। সাঁতার না জানাই এমন মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তিনি। 

লাশ উদ্ধার করে পান্থশালা মেঘনা ঘাটে আনা হয়েছে বলে জানান মির্জাচর নৌ-পুলিশের উপপরিদর্শক আসাদুজ্জামন। তিনি বলেন, উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে আলাপ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

 

এসআর

×