ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১

সংস্কৃতি সংবাদ

বিভিন্ন আয়োজনে জাদুঘর দিবস উদ্যাপিত

সংস্কৃতি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২৩:৪৬, ১৮ মে ২০২৪

বিভিন্ন আয়োজনে জাদুঘর দিবস উদ্যাপিত

আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস উপলক্ষে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘর থেকে শোভাযাত্রা বের হয়

শনিবার ছিল আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস। বহুমাত্রিক আনুষ্ঠানিকতায় উদ্যাপিত হলো দিবসটি। এদিন সকাল থেকেই সরব হয়ে ওঠে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘর আঙিনা। বিরাজ করে উৎসবমুখর আবহ। বের করা হয় বর্ণিল শোভাযাত্রা। অনুষ্ঠিত হয় দিবসভিত্তিক সেমিনার। ছিল সংগীতে সজ্জিত  সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। উদ্বোধন করা হয় ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর।

ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর উদ্বোধনের মাধ্যমে দিবসনির্ভর কার্যক্রমের সূচনা হয়। এর ফলে দীর্ঘদিন ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর প্রদর্শনী কার্যক্রম বন্ধ থাকার পর পুনরায় চালু হলো ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর বাসটি। জাদুঘরের বেশকিছু উল্লেখযোগ্য নিদর্শন দিয়ে এই ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর সাজানো হয়েছে। বাসরূপী ভ্রাম্যমাণ জাদুঘরটি শিক্ষার্থীদের প্রদর্শনের জন্য বিভিন্ন প্রান্তিক জনপদে পাঠানো হবে।

ভ্রাম্যমাণ জাদুঘর উদ্বোধনের পর বের হয় শোভাযাত্রা। জাদুঘরের সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে প্রাণবন্ত শোভাযাত্রাটি জাদুঘর থেকে বের হয়ে চারুকলা অনুষদের সামনে ঘুরে পুনরায় জাদুঘরে এসে শেষ হয়। এরপর আয়োজনটি চলে যায় কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে। সেখানে  ‘শিক্ষা ও গবেষণায় জাদুঘর’  শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব মো. আবুল মনসুর। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব  মো. ইমরুল  চৌধুরী। মূল  প্রবন্ধ উপস্থাপন  করেন আহসান মঞ্জিল জাদুঘরের উপকিপার ও আইকম বাংলাদেশ জাতীয় কমিটির সেক্রেটারি  মো. সেরাজুল ইসলাম।

প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতœতত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মালিহা নার্গিস আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন জাদুঘরের মহাপরিচালক মো. কামরুজ্জামান। 
প্রবন্ধে সেরাজুল ইসলাম বলেন, ‘শিক্ষা ও গবেষণায় জাদুঘর’ শব্দগুচ্ছের অর্থ দাঁড়ায় জাদুঘর-সংশ্লিষ্ট বিদ্যমান জ্ঞানকে নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা এবং গবেষণালব্ধ জ্ঞান শেখানো ও শিক্ষণের মাধ্যমে কীভাবে জ্ঞানকে প্রসারিত ও আত্মীকৃত হচ্ছে তা উপলব্ধির  চেষ্টা করা। আর শিক্ষা ও গবেষণা একবিন্দুতে মিলিত না হলে বিশ্বব্যাপী উন্নয়ন টেকসই হবে না। তাই শিক্ষা ও গবেষণায় গুরুত্বারোপ এ বছর জাদুঘর দিবসের আহ্বান। জাদুঘরের শিক্ষা জীবনব্যাপী শিক্ষার সমরূপ। জাদুঘরের সাফল্য পরিমাপের ক্ষেত্রে শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম ও তার পরিবীক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দুটি সূচক। তিনি আরও বলেন, গবেষণার মাধ্যমে সৃজিত জ্ঞান শিক্ষামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে জনগণের বোধগম্য ভাষায় পৌঁছানোই জাদুঘরের মূল লক্ষ্য। 
অধ্যাপক মালিহা নার্গিস আহমেদ বলেন, শিক্ষার গুরুত্ব সবসময়ই ছিল। জাদুঘরের ইতিহাস বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, শিক্ষা ও গবেষণার জন্যই জাদুঘরে নিদর্শন সংগ্রহ করা হতো। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে আর্ট হিস্টোরি অ্যান্ড মিউজিওলজি সার্টিফিকেট  কোর্সটি চালু করা জাদুঘরের সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত। পাশাপাশি ভবিষ্যতে সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচি গ্রহণে জাদুঘরকে উদ্যোগ নিতে হবে।  
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবুল মনসুর বলেন, শিক্ষা ও গবেষণায় জাদুঘর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শিক্ষার কোনো বয়স নেই। জাদুঘর পরিদর্শনের মাধ্যমে যে কোনো বয়সের মানুষ শিক্ষা অর্জন করতে পারে। আমাদের প্রত্যেকের উচিত বেশি-বেশি জাদুঘর পরিদর্শন করা এবং অন্যকে উৎসাহিত করা। বিশেষ করে আমাদের নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা ও গবেষণার জায়গা জাদুঘর।
মো. ইমরুল চৌধুরী বলেন, জাদুঘর হলো একটি দেশের ঐতিহ্যের সংগ্রহশালা বা ভা-ার। মূলত জাদুঘর থেকে ইতিহাস-ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও  আপন সংস্কৃতির ধারণা পাওয়া যায়। সভাপতির বক্তব্যে মো. কামরুজ্জামান বলেন, জাদুঘরকে বলা হয় জনগণের বিশ্ববিদ্যালয়।

কারণ দর্শনার্থীগণ সরাসরি জাদুঘর পরিদর্শনের মাধ্যমে শিক্ষা বা জ্ঞান লাভ করেন। দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ভবিষ্যৎ প্রজন্মের নিকট তুলে ধরার মাধ্যমে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর দেশের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে নিরন্তর।  সেমিনার ও আলোচনা শেষে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এই পর্বে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী সুজিত মোস্তফা ও বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর শিল্পীগোষ্ঠী।

×