ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ-জমি উদ্ধার, জরিমানা আদায়

গজারিয়ায় বিআইডব্লিউটিএ’র দ্বিতীয় দিনের অভিযান

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ২২ জানুয়ারি ২০২৪; আপডেট: ১৯:১৭, ২২ জানুয়ারি ২০২৪

গজারিয়ায় বিআইডব্লিউটিএ’র দ্বিতীয় দিনের অভিযান

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার নতুন চরচাষীতে অবৈধ স্থাপনার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দিনের মতো উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। অভিযানে নদীর জায়গা উদ্ধার, কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের দখলে থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পাশাপাশি জরিমানাও আদায় করা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মারুফের নেতৃত্বে সোমবার সকাল থেকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। মুন্সিগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার থান্দার খাইরুল হাসান, বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক (কুমিল্লা-নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ জোন) শরিফুল ইসলাম ও গজারিয়া থানার ওসিসহ অন্যান্যরাও অভিযানে উপস্থিত ছিলেন। 

অভিযান পরিচালনকারী সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতিতে সকাল থেকে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় প্যাসিফিক জিন্স গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির এক তলা স্টীল স্ট্রাকচারাল বিল্ডিংয়ের ৪০০ ফুট অংশ বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। গ্রামবাংলা এনপিকে ফার্টিলেজার কারখানার সামনের ২০০ ফুটের সীমানা প্রাচীর ভেঙে দেওয়া হয়। এছাড়া বল্লি পাইলিং এবং আরসিসি খুঁটিসহ ২০০ ফুট বালির বস্তা, মেঘনা প্যাকেজিং কোম্পানির ১০০ ফুট বল্লি জেটি, বাঁশের তিনটি জেটি অপসারণ এবং নদীর প্রায় ২০ বিঘা জায়গা দখলমুক্ত করা হয়েছে। এছাড়াও মেঘনা লজিস্টিকের মালিক ও কয়লার গাদিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য ও নগদ আদায় করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

বিআইডব্লিউটিএ’র কুমিল্লা-নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ জোনের উপ-পরিচালক শরিফুল ইসলাম জানান, দ্বিতীয় দিনের মতো অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। রবিবারও চরচাষীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছিল। দুই দিনে প্রায় ১২০ বিঘা জমি উদ্ধারের পাশাপাশি বেশ কিছু অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। 

 

ফজলু

×