ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

বগুড়ায় ভোটের মাঠে চার নারী প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস

প্রকাশিত: ২২:২৯, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩

বগুড়ায় ভোটের মাঠে চার নারী প্রার্থী

সাহাদারা মান্নান, শাহাজাদী আলম লিপি, বিউটি বেগম ও আরফিনা পারভিন

প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে বগুড়ার নির্বাচনী এলাকাগুলোতে প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের ভোট প্রার্থনার লড়াই জমে উঠতে শুরু করেছে। ভোটের মাঠে চলছে নানামুখী আলোচনা, সমীকরণ। প্রার্থীদের নানামুখী গণসংযোগ, ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার সব জায়গায় নির্বাচনী আমেজ বাড়িয়ে দেওয়ার সঙ্গে নানামুখী উপস্থাপনায় মাইকে প্রার্থীদের প্রচার ভোটের ময়দানের চির নতুন চিত্র এখন দৃশ্যমান। বগুড়ায় এবার প্রার্থীর সংখ্যাগত দিকটির সঙ্গে ভোটের ময়দানে নারী প্রার্থীর সংখ্যাও চোখে পড়ার মতো। নির্বাচনী ময়দানে পুরুষ প্রার্থীর সঙ্গে কোমর বেঁধে নেমেছেন নারী প্রার্থীরা। এ জেলায় এবার সর্বোচ্চ চার নারী প্রার্থী সরাসরি ভোটের ময়দানে রয়েছেন। বগুড়া-১, বগুড়া-২ ও বগুড়া-৩ আসনে নারী প্রার্থীরা ভোটের ময়দানে ছুটে বেড়াচ্ছেন অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মতোই।
বগুড়ার সাতটি আসনে মোট ভোটার ২৮ লাখ ২৮ হাজার ৩৪৪। ভোটযুদ্ধে নেমেছেন ৫৪ প্রার্থী। এর মধ্যে দলীয় প্রার্থী ৩৫, স্বতন্ত্র ১৯। সবচেয়ে বেশি প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম জিয়াউর রহমানের বাড়ির এলাকা হিসেবে পরিচিত বগুড়া-৭ আসনে। গাবতলী ও শাজাহানপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১১ জন। এবার বগুড়ার প্রতি আসনে সাতজনের বেশি প্রার্থী রয়েছেন। তবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মধ্যে ভোটের লড়াইয়ে এবার নেমেছেন চার নারী প্রার্থী। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়ায় এটি সর্বোচ্চ নারী প্রার্থী বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। এর মধ্যে বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনে মুখোমুখি দুই নারী প্রার্থী।

আওয়ামী লীগ থেকে এই আসনে নৌকার মাঝি বর্তমান এমপি সাহাদারা মান্নান। নদী তীরবর্তী এই আসনে যমুনার তীব্র ¯্রােতের মাঝে নৌকাকে বিজয়ের নোঙ্গর ফেলাতে ভোটের ময়দানে এগিয়ে চলছেন তিনি। নৌকার পালে হাওয়া অব্যাহত রাখতে তিনি ছুটছেন নির্বাচনী এলাকার এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। যমুনার দুর্গম চর থেকে সবখানে। সাহাদারা মান্নান জানালেন, ভোটের মাঠে নারী-পুরুষ সবাই এক। সবার ভালোবাসা নিয়েই তিনি চলছেন। এখানে যোগ্যতাই বড় কথা। এ ছাড়া ভোটের মাঠ তার নিকট নতুন নয়। প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নানের স্ত্রী হিসেবে ভোটের মাঠে আগেও ছিলেন। উপ-নির্বাচন করে জয়ী হয়েছেন। নয় বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্ব সামলেছেন। এবার শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতিতে জনগণ আবার আস্থা রাখবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

এই আসনে আরেক নারী প্রার্থী পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহাজাদী আলম লিপি নৌকার বিজয় রথ থামিয়ে দিতে মরিয়া। তিনিও থেমে নেই। ভোটের ময়দানে ছুটছেন। হলফনামা অনুযায়ী স্বামী ও নিজের নামে বিপুল সম্পদের তথ্য উঠে আসায় ইতোমধ্যে এই স্বতন্ত্র প্রার্থী আলোচনায়। নিজের ও স্বামীর বিপুল স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের আলোচনা নিয়ে নির্বাচনী ময়দানে অবস্থান গড়েছেন ভিন্নভাবে। বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন জেলা বিএনপির সাবেক নেতা ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বিউটি বেগম। বিএনপির বিদ্রোহী নেতা হিসেবে নির্র্বাচনে তার অংশগ্রহণ পৃথক পরিচিতি এনে দিয়েছে। আরেক নারী প্রার্থী বগুড়া-৩ (দুপচাঁচিয়া-আদমদিঘী) আসনে বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির আফরিনা পারভিন।

সংসদের নিজের প্রার্থী হওয়া প্রসঙ্গে জানালেন, এটিই তার প্রথম নির্বাচন। থাকেন ঢাকায়। তবে গ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। পিতার বাড়ি দুপচাঁচিয়ার তালোড়ায়। পরিবারের অন্য দুজন সদস্য এর আগে নির্বাচনে অংশ নিলেও তিনি নতুন। নিজের এলাকায় নারী ভোটারদের সংখ্যাধিক্য এবং দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নারীদের এগিয়ে যাওয়া নির্বাচনে অংশ নিতে সাহস জুগিয়েছে। অসহায় নারীদের পাশে দাঁড়াতে চান। ছেলে ও স্বজনদের মোটরসাইকেলে প্রত্যন্ত এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন। বগুড়া-২ আসনের বিউটি বেগম জানালেন নারী ও পুরুষের পার্থক্য ভোটের ময়দানে নেই। ৩০ বছর ধরে সংগঠন করছেন। নির্বাচনী মাঠে ভালো সাড়া পাচ্ছেন। গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। জয়ের বিষয়ে আশাবাদী।

×