ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

জামালপুরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত সাংবাদিক নাদিম মারা গেছেন

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর 

প্রকাশিত: ১৬:৪৯, ১৫ জুন ২০২৩; আপডেট: ১৭:৫৩, ১৫ জুন ২০২৩

জামালপুরে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত সাংবাদিক নাদিম মারা গেছেন

নিহত সাংবাদিক নাদিম

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় বুধবার রাতে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। 

বুধবার রাত ১০টার দিকে বকশীগঞ্জ পৌর এলাকার পাটহাটি মোড়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন তিনি। সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম বাংলানিউজ২৪ ডটকমের জামালপুর জেলা প্রতিনিধি এবং ৭১ টিভির বকশীগঞ্জ উপজেলার সংবাদ সংগ্রাহক হিসেবে সাংবাদিকতা পেশার সাথে নিয়োজিত ছিলেন। 

সাংবাদিক গোলাম রাব্বানীর শোকার্ত স্ত্রী মনিরা বেগম জানান, তার স্বামী সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম বুধবার রাত ৯টার দিকে ল্যাপটপ নিয়ে বাসা থেকে বেরিয়ে যান। রাত ১০টার দিকে খবর পাই বকশীগঞ্জ বাজারের পাটহাটি মোড়ে ১০/১২ জনের একটি সন্ত্রাসী দল তার ওপর হামলা করেছে। 

স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে বকশীগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। রাতেই তাকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু তার অবস্থা আরো অবনতি হওয়ায় বৃহস্পতিবার ভোরে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বেলা আড়াইটার দিকে সেখানে তিনি মারা যান। 

মনিরা বেগম অভিযোগ করে বলেন, বকশীগঞ্জ উপজেলার সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাধুরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহমুদুল আলম বাবুর নারী কেলেঙ্কারির ঘটনা নিয়ে আমার স্বামী সংবাদ লিখেছিলেন। সেই সংবাদকে কেন্দ্র করে ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু ও তার লোকজনরা আমার স্বামীর ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন এবং তাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিলেন। সেই সংবাদের কারণে মাহমুদুল আলম বাবু আমার স্বামীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছিলেন। 

বুধবার আদালত সেই মামলাটি খারিজ করে দিয়েছে। একইদিন রাত ১০টার দিকে মাহমুদুল আলম বাবু তার সন্ত্রাসী বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে আমার স্বামী গোলাম রব্বানী নাদিমের ওপর অমানবিক নির্যাতন চালায়। আমার স্বামীর মৃত্যুতে আমি তিন সন্তান নিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেলাম। আমার স্বামীর হত্যাকারীদের আমি ফাঁসি চাই। 

এদিকে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিমের মৃত্যুতে বকশীগঞ্জ উপজেলাসহ জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বিক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা নিহত সাংবাদিকের শোকার্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন। এই ঘৃণ্য ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা।  

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সোহেল রানা জনকণ্ঠকে বলেন, সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিমের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর ঘটনাস্থল থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। আসামিদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

এমএস

সম্পর্কিত বিষয়:

×