ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ০৯ জুন ২০২৩, ২৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০

টাঙ্গাইলে ডাকাত দলের ৪ সদস্য আটক

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল

প্রকাশিত: ২০:২৮, ২১ মার্চ ২০২৩

টাঙ্গাইলে ডাকাত দলের ৪ সদস্য আটক

আটককৃত ডাকাত

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার কাঠুরী গ্রামে ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার দুপুরে টাঙ্গাইল র‌্যাব কার্যালয়ে সিপিসি-৩ কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আটককৃতরা হলেন- মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর থানার বাঁচা মারা গ্রামের মৃত রহমউদ্দিনের ছেলে শেখ সোনা মিয়া, ভাষা মিয়ার ছেলে ঠান্ডু মিয়া, টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতী উপজেলার হরিপুর গ্রামের খাদেমুল ইসলামের ছেলে মোশারফ হোসেন ও বাসাইল উপজেলার কাশিল গ্রামের রবিন মিয়ার ছেলে আকাশ মিয়া।

এ বিষয়ে কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের বলেন, জেলার নাগরপুর উপজেলার কাঠুরী গ্রাম ও মানিকগঞ্জের দৌলতপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভুঁয়া ডিবি পুলিশ পরিচয় দানকারী ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। তাদের আটক করার পর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা সংঘবদ্ধভাবে মহাসড়কে ও বিভিন্ন আন্তঃমহাসড়কে ডাকাতি করে থাকে।

তিনি বলেন, তাদের মধ্যে মোশারফ নামের একজন ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ডাকাতি করতে সহায়তা করে। পরে তাদের কাছ থেকে একটি হ্যান্ডকাফ, একটি পিস্তল সদৃশবস্তু, একটি সুইস চাকু, পুলিশের একটি ভুয়া ভিজিটিং কার্ড, পাঁচটি মোবাইল, একটি হায়েস, একটি টর্চ লাইটসহ নগদ এক হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এই ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

চা মারা গ্রামের মৃত রহমউদ্দিনের ছেলে শেখ সোনা মিয়া, ভাষা মিয়ার ছেলে ঠান্ডু মিয়া, টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতী উপজেলার হরিপুর গ্রামের খাদেমুল ইসলামের ছেলে মোশারফ হোসেন ও বাসাইল উপজেলার কাশিল গ্রামের রবিন মিয়ার ছেলে আকাশ মিয়া।

এ বিষয়ে কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের বলেন, জেলার নাগরপুর উপজেলার কাঠুরী গ্রাম ও মানিকগঞ্জের দৌলতপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয় দানকারী ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। তাদের আটক করার পর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা সংঘবদ্ধভাবে মহাসড়কে ও বিভিন্ন আন্তঃমহাসড়কে ডাকাতি করে থাকে।

তিনি বলেন, তাদের মধ্যে মোশারফ নামের একজন ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ডাকাতি করতে সহায়তা করে। পরে তাদের কাছ থেকে একটি হ্যান্ডকাফ, একটি পিস্তল সদৃশবস্তু, একটি সুইস চাকু, পুলিশের একটি ভুয়া ভিজিটিং কার্ড, পাঁচটি মোবাইল, একটি হায়েস, একটি টর্চ লাইটসহ নগদ এক হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এই ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এমএস