ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বাবার মরদেহ রেখে পরীক্ষার হলে নিলুফা

প্রকাশিত: ১৪:৫২, ৮ নভেম্বর ২০২২

বাবার মরদেহ রেখে পরীক্ষার হলে নিলুফা

হ্নীলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

কক্সবাজারের টেকনাফে বাবার মরদেহ ঘরে রেখে পরীক্ষা দিয়েছেন এক শিক্ষার্থী। সেই শিক্ষার্থীর নাম নিলুফা ইয়াছমিন। 

মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) ভোর ৫টায় নিলুফার বাবা পেঠান আলী (৬০) বাড়িতে মারা যান। নিলুফা টেকনাফের হ্নীলা রঙ্গিখালী মঈন উদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজ থেকে উপজেলার হ্নীলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে বাংলা দ্বিতীয় পত্র বিষয়ে পরীক্ষায় অংশ নেন। তার বাড়ি রঙ্গিখালী মাদরাসা পাড়া এলাকায়।

টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,মঙ্গলবার ভোররাতে নিলুফার বাবা স্ট্রোক করে মারা গেছেন। তিনি রাতে ক্যাম্পাসে সুপারি বাগান দেখাশোনা করতেন। বাবার মৃত্যুতে নিলুফা মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। সে সকাল থেকেই কাঁদছিল। তাকে সান্ত্বনা দিয়ে সহপাঠী ও স্বজনরা পরীক্ষা দিতে উৎসাহিত করে।

চেয়ারম্যান আরও বলেন, বাবার মরদেহ ঘরে রেখে মেয়েটি সকালে কাঁদতে কাঁদতে পরীক্ষাকেন্দ্রে গেছে। স্বজনরা সাহস দিলেও বাবার মৃত্যু সহজে মেনে নেওয়া কোমলমতি শিক্ষার্থীটির জন্য কঠিন ছিল।

নিলুফার বড় ভাই শাখাওয়াত হোছাইন বলেন, বাবার মৃত্যুর পর নিলুফা পরীক্ষা দিতে চাচ্ছিল না। যেহেতু বোর্ড পরীক্ষা তাই তাকে অনেক বুঝিয়ে সাহস ও সান্ত্বনা দিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়ে গেছে তার সহপাঠীরা। তবে সে দেড় ঘণ্টা লিখে বাড়িতে চলে আসে।

পরীক্ষাকেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা ছিদ্দিক আহমদ ও কলেজের প্রতিনিধি ইব্রাহিম খলিল বলেন, বেলা ১১টায় পরীক্ষায় অংশ নেয় নিলুফা ইয়াছমিন। তবে সে সাড়ে ১২টায় খাতা জমা দিয়ে হল থেকে বের হয়ে যান। তার পিতার মৃত্যুর খবর শুনে সবাই তাকে মানসিক সাহস জোগাতে সহযোগিতা করেছি।

টিএস

সম্পর্কিত বিষয়:

×