২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

মোংলা বন্দরে নোঙর করা জাহাজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নাবিক আছে সন্দেহ কতৃপক্ষের

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০২০, ০৪:২৭ পি. এম.
মোংলা বন্দরে নোঙর করা জাহাজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নাবিক আছে সন্দেহ কতৃপক্ষের

অনলাইন ডেস্ক ॥ মোংলা বন্দরে নোঙর করা ইন্দোনেশিয়া থেকে আসা একটি জাহাজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নাবিক আছে- এমন সন্দেহ থেকে জাহাজটির পণ্য খালাস বন্ধ রাখা হয়েছে।

সেরেনিটাস এন নামের জাহাজটি মার্শাল আইল্যান্ডের পতাকাবাহী। ইন্দোনেশিয়া থেকে কয়লা বোঝাই করে সিঙ্গাপুর ও চট্টগ্রাম বন্দর হয়ে বুধবার রাতে মোংলা বন্দরে এসে পৌঁছায় জাহাজটি।

রাতেই বন্দর জেটি থেকে কুড়ি কিলোমিটার দূরবর্তী হারবাড়িয়া নামক এলাকায় নোঙর করে জাহাজটি। এলাকাটি সুন্দরবনের প্রবেশপথ হিসেবে পরিচিত। সুন্দরবন ভ্রমণকারী পর্যটকবাহী নৌযানগুলো সাধারণত এই হারবাড়িয়া পয়েন্ট থেকেই জঙ্গলে প্রবেশ করে। মোংলা বন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বা পোর্ট হেলথ অফিসার সুফিয়া বেগম বিবিসি বাংলাকে বলেন, জাহাজের তিনজন ক্রুর শরীরে উচ্চ তাপমাত্রা রয়েছে। তিনজনই ফিলিপিন্সের নাগরিক।

বাংলাদেশের বন্দরগুলোতে কোন বিদেশি জাহাজ নোঙর করলে সে জাহাজের নাবিক এবং ক্রুদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে পোর্ট হেলথ অফিসার। বুধবার রাতে জাহাজটি মংলা বন্দরের নোঙর করার পর পোর্ট হেলথ অফিসার সেখানে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে গিয়ে তিনজন ক্রুর দেহে উচ্চমাত্রা শনাক্ত করেন। এরপর বিষয়টি জানানো হয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট বা আইইডিসিআরকে। আইইডিসিআর-এর পরামর্শে জ্বরে আক্রান্ত নাবিকদের জাহাজের ভেতরে তিনটি আলাদা কক্ষে রেখে স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সুফিয়া বেগম জানিয়েছেন, তিনজন ক্রুর মধ্যে দুজনের দেহের তাপমাত্রা গতরাতে তুলনায় কমলেও একজনের দেহে এখনো উচ্চ তাপমাত্রা রয়েছে।

সুফিয়া বেগম জানান, করোনাভাইরাস পর্যবেক্ষণের জন্য ক্রুদের দেহ থেকে কোন নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। এখন তাদের আপাতত পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। মোংলা বন্দরের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হামিদ বিবিসি বাংলাকে বলেন, জাহাজটি কয়লা নিয়ে সিঙ্গাপুর থেকে চট্টগ্রাম হয়ে মংলা বন্দরে আসে।

মি. হামিদ জানান এই জাহাজের ক্যাপ্টেন একজন গ্রিক এবং ক্রুদের অনেকেই ফিলিপিনো। সবমিলিয়ে জাহাজটিতে ২০ জন ক্রু রয়েছে।

এই জাহাজে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হবার পরেই পণ্য খালাস শুরু হবে বলে জানিয়েছেন মিঃ হামিদ।

তিনি বলেন, যে কোন বিদেশি জাহাজ বন্দরে নোঙর করলে সাধারণত ক্রুদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। সম্প্রতি করোনাভাইরাস নিয়ে সতর্কতার কারণে এই স্বাস্থ্য পরীক্ষা আরো জোরদার করা হয়েছে মি. হামিদ উল্লেখ করেন।

সূত্র : বিবিসি বাংলা

প্রকাশিত : ৫ মার্চ ২০২০, ০৪:২৭ পি. এম.

০৫/০৩/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: