৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

বায়ুদূষণ- ঢাকায় আর্থিক ক্ষতি জিডিপির প্রায় পাঁচ শতাংশ

প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সম্প্রতি দেশে সবচেয়ে বেশি আলোচনার জন্ম দিয়েছে রাজধানীর বায়ুদূষণ। প্রায় প্রতিদিনই বিশ্বের বিভিন্ন শহরের দূষণের তালিকায় এক নম্বর অবস্থানে চলে যাচ্ছে ঢাকার বায়ুদূষণ। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার পর্যবেক্ষণে দেখা যাচ্ছে গত নবেম্বর থেকেই ঢাকার বায়ুদূষণ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে গেছে। পরিবেশ ও মানবস্বাস্থ্যের ওপর এই দূষণের মারাত্মক প্রভাব পড়লেও এর আর্থিক ক্ষতির দিকও কম নয়। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়েছে বায়ুদূষণে প্রতিবছর বাংলাদেশকে যে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে, তার পরিমাণ মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রায় ৫ শতাংশ।

গত এক দশকের বেশি সময় ধরেই ঢাকার বায়ুদূষণ মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। পরিবেশ অধিদফতরের পর্যবেক্ষণের দেখা গেছে প্রতিবছর শুষ্ক মৌসুমের শুরু থেকেই ঢাকায় দূষণের মাত্রা বেড়ে যাচ্ছে। বায়ু দূষণের জন্য দায়ী আশপাশের এলাকাজুড়ে গড়ে ওঠা অবৈধ ইটভাঁটি। এর সঙ্গে সম্প্রতি যোগ হয়েছে রাজধানীর উন্নয়ন কর্মকা-ও। তবে এর সবচেয়ে বড় প্রভাব পড়ছে শিশু ও বয়স্কদের উপর। এক জরিপে দেখা গেছে, রাজধানীর বাসিন্দা শিশু ও বয়স্কদের একটি বড় অংশ বায়ুদূষণজনিত এ্যাজমা শ্বাসকষ্টসহ নানা ধরনের অসুখে ভুগছেন।

সম্প্রতি গ্রীনপিস নামে একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার গবেষণায় বলা হচ্ছে বায়ুদূষণের আর্থিক ক্ষতিও কম নয়। সেন্টার ফর রিসার্চ অন এনার্জি এ্যান্ড ক্লিন এয়ার ও গ্রীনপিসের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া শাখায় করা এই গবেষণায় বলা হয়েছে, জীবাশ্ম জ্বালানি যে বায়ুদূষণ ঘটাচ্ছে, তাতে বিশ্বে প্রতিদিন ৮শ’ কোটি ডলারের আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। টাকার এই অংক বিশ্বের মোট জিডিপির ৩.৩ শতাংশ। আর বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এই আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ বছরে ১৪শ’ কোটি ডলার, যা মোট জিডিপির প্রায় ৫ শতাংশ।

‘জীবাশ্ম জ্বালানির খেসারত’ শীর্ষক এই প্রতিবেদন বায়ুদূষণে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়েও একটি ধারণা দেয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, বাতাসে ২.৫ পিএম (পার্টিকুলেট ম্যাটার) আকারের ভারি কণার দূষণে ২০১৮ সালে ৪৫ লাখ মানুষের জন্য ডেকে এসেছে অকাল মৃত্যু। এর মধ্যে ৪০ হাজার শিশু মারা গেছে বয়স পাঁচ বছর হওয়ার আগেই। আর বাংলাদেশে অকালমৃত্যু হয়েছে ৯৬ হাজার মানুষের। প্রতিবেদনটি বলছে, ওই বছর বায়ুদূষণের কারণে বিভিন্ন বয়সী ৭৭ লাখ মানুষকে এ্যাজমা বা শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে যেতে হয়েছে। বায়ুদূষণের প্রভাবে অসুস্থতায় ২০১৮ সালে পুরো বিশ্বের মানুষ যত কর্মদিবস ছুটি কাটাতে বাধ্য হয়েছে, সব যোগ করলে সংখ্যা দাঁড়ায় ১৮০ কোটি দিন।

প্রকাশিত : ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০

১৪/০২/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: