২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৯ ফাল্গুন ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

হেঁটে আর বৃষ্টির ফোঁটায় পাওয়া যাবে বিদ্যুত

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী ২০২০
  • আইটি ডট কম ডেস্ক

শক্তি সব সময়ই অনেক বেশি আকাক্সিক্ষত ব্যাপার। নতুন সব শক্তির উৎস খুঁজতে মানুষ যখন হন্যে হয়ে ঘুরছে, ঠিক তখনই পৃথিবীর নানা প্রান্তে আবিষ্কৃত হচ্ছে নতুন সব শক্তি তৈরির উপায়। কখনও প্রকৃতি, কখনও নিজস্ব চিন্তা- মানুষ নিত্যনতুন উপায়ে শক্তির খোঁজ চালিয়েছে বছরের পর বছর। আর সফলও হয়েছে। এমন কিছু ভিন্ন রকম শক্তির উৎস নিয়েই আজকের আলোচনা। যার একটি ট্রাইবোইলেক্ট্রিক ন্যানো জেনারেটর আর অন্যটি রেইনড্রপ পাওয়ার।

প্রতিনিয়ত আমরা নানারকম শক্তি ব্যবহার করছি। নানারকম উৎস থেকে শক্তি গ্রহণ করছি। তবে নিজেদের চলাফেরা, কাজ ইত্যাদির মাধ্যমে শক্তির খরচটাও হচ্ছে একই সঙ্গে। এই যে আমরা হাঁটছি, কীবোর্ডে চেপে কাজ করছি, হাত নাড়াচ্ছি – এসবই কি কিছু পরিমাণ শক্তি খরচ করছে না? কিন্তু সেই শক্তি কি আর ফেরত আসছে? না! শক্তির এই অপচয়কে থামাতেই সম্প্রতি স্কুল অব ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং জর্জিয়া টেক উদ্ভাবন করেছে সম্পূর্ণ নতুন ও চমকে দেয়ার মতো একটি উপায়। আর এই উপায়টির নাম ট্রাইবোইলেক্ট্রিফিকেশন। এক্ষেত্রে, মোট দুটো উপাদান উপস্থিত থাকে। যাদের একটি গতিশীল এবং অন্যটি স্থির অবস্থায় থাকে। গতিশীল অংশটি বারবার স্থির অংশের ওপর নড়লে ও চাপ প্রয়োগ করলে এতে করে শক্তি উৎপন্ন হয়। বিজ্ঞানের ভাষায় একে ডাকা হয় কন্ট্যাক্ট ইলেক্ট্রিফিকেশন নামে। এই প্রযুক্তিতে আমাদের চেনা পরিচিত প্রায় সব বস্তুই শক্তি উৎপন্ন করতে সাহায্য করতে পারে। তবে এক্ষেত্রে ন্যানোম্যাটেরিয়াল ব্যবহারের মাধ্যমে সারফেসকে অনেকটা বাড়িয়ে তোলা হয়, যার ফলে শক্তির গভীরতাও হয় হাজারগুণ বেশি। ২০১১ সালে আবিষ্কৃত এই প্রযুক্তিটিতে তিন হাজার ভোল্ট উৎপন্ন করা যেত। আর সেই পরিমাণ এখন এসে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ভোল্টে। খুব বেশি নয়, আর বছর পাঁচেকের মধ্যেই ট্রাইবোইলেক্ট্রিফিকেশন মানুষের দৈনন্দিন জীবনে প্রবেশ করবে এমনটাই আশা করেন এর উদ্ভাবকগণ। ভেবে দেখুন, এই প্রযুক্তি প্রয়োগ করে ন্যানো জেনারেটরগুলো গাড়ি চলার ও হাঁটার রাস্তায় স্থাপন করা হলো। ওই সকল রাস্তা দিয়ে আমরা হেঁটে চলেছি কিংবা গাড়ি নিয়ে যাচ্ছি আর ন্যানো জেনারেটরগুলোর গতিশীল অংশটি বারবার স্থির অংশের ওপর চাপ প্রয়োগ করে বিদ্যুত উৎপন্ন করছে। কোন ব্যস্ত সড়কে এভাবে ন্যানো জেনারেটর প্রতিনিয়ত বিদ্যুত উৎপন্ন করতে সক্ষম হবে কোন প্রকার কার্বন নিঃসরণ ছাড়াই।

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী ২০২০

২৫/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: