৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

হাজার বছর ভাসছে তারা

প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারী ২০২০
 হাজার বছর ভাসছে তারা

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলে ‘মার্শ আরব’ জনগোষ্ঠী রয়েছে, যারা সব সময় ভাসমান অবস্থায় বসবাস করে। ‘মার্শ’ শব্দের অর্থ জলাভূমি। খ্রিস্টের জন্মের প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে ওই স্থানটিতেই সুমেরীয় সভ্যতার বিকাশ ঘটেছিল। ব্রিটিশ নৃতত্ত্ববিদদের মতে, সুমেরীয় সভ্যতার পতনের পর তাদের অল্পসংখ্যক বংশধর কিংবা আরব জাতি ওই অঞ্চলে বসবাস শুরু করে। ধীরে ধীরে জাতীগোষ্ঠীটি মা’দান নামক আরব উপজাতীয়দের সঙ্গে মিশে ‘মা’দান’ নামে পরিচিত হয়। মা’দানরাই পরবর্তী সময়ে ‘মার্শ আরব’ নামে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করে। চারদিকে ধুধু মরুভূমির মধ্যে দজলা ও ফোরাত নদীর মিলনস্থলে মার্শ আরব উপজাতি জনগোষ্ঠী প্রায় পাঁচ হাজার বছর ধরে জল আর প্রকৃতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এক আশ্চর্য জীবন ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে। তাদের বাড়িগুলো তৈরি হয় নলখাগড়াজাতীয় উদ্ভিদ দিয়ে। বাড়িগুলোকে বলা হয় মুদিফ। জলাভূমিতে জন্মানো নলখাগড়া থেকে তৈরি বাড়িগুলোতে কাঠ বা পেরেক ব্যবহার করা হয় না। প্রথমে মাটি ও নলখাগড়া দিয়ে পানির ওপর দ্বীপ তৈরি করে তারা। বাড়িগুলো ভাসমান দ্বীপের ওপর বানানো হয়। দ্বীপগুলো যেন ভেসে না যায়, তা নিশ্চিত করতে নৌকার মতো নোঙর করে রাখা হয়। ফলে মার্শ আরব অধিবাসীদের জনপদ উপর থেকে দেখলে হাজার হাজার দ্বীপের সমষ্টি বলে মনে হয়। পুরো বাড়িটাই বহনযোগ্য। -ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক

প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারী ২০২০

২১/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: