২১ জানুয়ারী ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

১৮ হাজার বছর আগের কুকুরকে ঘিরে রহস্য

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০৮ পি. এম.
১৮ হাজার বছর আগের কুকুরকে ঘিরে রহস্য

অনলাইন ডেস্ক ॥ সাইবেরিয়ায় বরফের মধ্যে ১৮ হাজার বছর আগের একটি কুকুর ছানার মরদেহ পাওয়ার পর গবেষকরা দ্বিধায় পড়ে গেছেন। তারা বোঝার চেষ্টা করছেন যে, এটি কি আসলেও একটি কুকুর ছানা নাকি নেকড়ে।

কুকুরের মতো দেখতে ওই প্রাণীটির মৃত্যু হওয়ার সময় বয়স ছিল মাত্র দুই মাস। খুব ভালোভাবে রাশিয়ার ওই এলাকার ভূগর্ভস্থ চিরহিমায়িত অঞ্চলে সংরক্ষিত ছিল এটি। এর পশম, নাক এবং কান সবই অক্ষত রয়েছে। কিন্তু ডিএনএ পরীক্ষা করেও এই প্রাণীটির প্রজাতি নির্ধারণ করা যায়নি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এর মানে হয়তো এটাই হতে পারে যে এই প্রাণীটি নেকড়ে এবং বর্তমান সময়ের কুকুরের মধ্যকার বিবর্তনের একটি যোগসূত্র তুলে ধরছে।

রেডিওকার্বন ডেটিং ব্যবহার করে কবে এই প্রাণীটির মৃত্যু হয়েছে এবং কতদিন ধরে সেটি হিমায়িত হয়ে রয়েছে, সেটা বের করা সম্ভব হয়েছে। জিনোম বিশ্লেষণ করে বোঝা গেছে যে, এটি একটি পুরুষজাতীয় প্রাণী।

সুইডেনের সেন্টার ফর প্যালায়েজেনেটিকসের গবেষক ডেভ স্ট্যানটন সিএনএনকে বলেছেন, প্রাণীটির ডিএনএ বিশ্লেষণ করেও প্রাণীটির সঠিক প্রজাতি না পাওয়ার মানে এটা হতে পারে যে, এটি হয়তো এমন একটি প্রজাতির অংশ ছিল যা থেকে বর্তমান কুকুর ও নেকড়ে উভয়ই এসেছে।

এটি থেকে আমরা অনেক তথ্য সংগ্রহ করেছি। ওই সেন্টারের আরেক গবেষক, লভ ডালেন এক টুইট বার্তায় প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন যে, এই প্রাণীটি কি একটি নেকড়ে ছানা নাকি পৃথিবীতে পাওয়া সবচেয়ে পুরোনো কুকুর?

এখনও ডিএনএ বিশ্লেষণ অব্যাহত রেখেছেন বিজ্ঞানীরা এবং আশা করছেন যে, এই গবেষণার মাধ্যমে কুকুরের বিবর্তন প্রক্রিয়া সম্পর্কে অনেক কিছু জানা যাবে।

এই ছানাটির নাম রাখা হয়েছে, ডোগোর। রাশিয়ার ওই অঞ্চলের ইয়াকুট ভাষায় যার মানে হলো বন্ধু। ধারণা করা হয় যে, বর্তমান সময়ের কুকুর এসেছে নেকড়ে থেকে। কিন্তু ঠিক কখন থেকে কুকুর গৃহপালিত প্রাণী হয়ে উঠেছে, এ নিয়ে বিতর্ক আছে।

২০১৭ সালে প্রকাশিত হওয়া একটি গবেষণায় ইঙ্গিত দেয়া হয় যে, কুকুর প্রথম গৃহপালিত হয়ে উঠতে শুরু করে ২০ হাজার থেকে ৪০ হাজার বছর আগে থেকে।

প্রকাশিত : ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০৮ পি. এম.

০৩/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ:
ঢাকা সিটি নির্বাচন : ভোটে এবার সেনা নামছে না : ইসি সচিব || কিছু মৃত্যু সত্যিই অত্যন্ত কষ্টের, বেদনার ॥ প্রধানমন্ত্রী || সঙ্কট মোকাবেলায় সোয়া তিন লাখমেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানী করা হয়েছে ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী || আগামীকাল থেকে বিজিএমইএ ভবন ভাঙার কার্যক্রম শুরু || তাবিথের প্রচারণায় হামলার বিষয়টি ষড়যন্ত্র কিনা তা ক্ষতিয়ে দেখা প্রয়োজন ॥ তথ্যমন্ত্রী || ভুয়া ওয়ারেন্ট ইস্যুকারীদের খুঁজে বের করতে চার সদস্যের কমিটি সিআইডির || ৩২৯টি উপজেলায় টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ নির্মাণ করা হবে || সংসদ সদস্য ইসমত আরা সাদেক আর নেই || বরগুনার রিফাত হত্যা : হাইকোর্টে মিন্নির আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ || ৩৯তম বিসিএস: নিয়োগ পেলেন আরো ১৮ জন ||