৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

নওগাঁয় এবার আমন ধানের বাম্পার ফলনের আশা করছেন খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:২৪ পি. এম.
নওগাঁয় এবার আমন ধানের বাম্পার ফলনের আশা করছেন খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ ॥ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি নওগাঁর বিভিন্ন ধানের মাঠ ঘুরে দেখে বলেন, এবার নওগাঁ জেলায় আমন ধানের বাম্পার ফলন হবে। আজ শনিবার দুপুরে তিনি জেলার নিয়ামতপুরের বিভিন্ন ধানের মাঠ ঘুরে নতুন ধানের ঘ্রান আর সোনালী ধানের শীষ হাতে নিয়ে নাড়াচারা করতে করতে তিনি যেন আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। মন্ত্রী বলেন, এসব কৃষকের স্বপ্ন। কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে না পড়লে কৃষকের এ স্বপ্ন পূরন হবেই।

মন্ত্রী মাঠে গিয়ে চাষীদের সঙ্গে কথা বরেন এবং তাদের সঙ্গে কুষল বিনিময় করেন। কৃষি ও কৃষকের জন্য বর্তমান সরকার যে সব পদক্ষেপ নিয়েছেন, তার বিস্তারিত আলোচনা করেন। এছাড়াও অন্যান্য চাষাবাদ ও গ্রামীণ অর্থণীতির খোঁজ খবর নেন। কৃষকরাও মন্ত্রীর এমন খোলা-মেলা আলোচনায় খুশি হয়ে কৃষকবান্ধব বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এসময় নওগাঁ জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জিএম ফারুক হোসেন পাটোয়ারী, প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল খালেক, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক এমপি শাহিন মনোয়ারা হক, সাংগঠনিক সম্পাদক বিভাস মজুমদার গোপাল, স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

কৃষকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, কৃষকদের উৎপাদিত ফসলে লাভবান করতে অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙ্গে প্রথমবারের মত সরকারীভাবে ৬ লাখ মেঃটন ধান কেনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ২০ নবেম্বর থেকে ২৬ টাকা কেজি দরে সারাদেশে একযোগে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ শুরু হবে। চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এজন্য স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগীতায় কৃষি বিভাগ থেকে প্রকৃত কৃষকের তালিকা তৈরীর কাজ চলছে। মাঠের ধান দেখে মন্ত্রী এবার বিঘা প্রতি ২২ থেকে ২৫ মন ফলনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সারাদেশে এবার আমনের উৎপাদন ধরা হয়েছে প্রায় দেড় কোটি মেঃটন। ফলন ভাল হলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে। ধানের পাশাপাশি সরকারীভাবে সাড়ে ৩লাখ মেঃটন সিদ্ধ চাল ও ৫০ লাখ মেঃটন আতপ চাল সংগ্রহ করা হবে।

কৃষকদের কাছে খাদ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, সরকারী গুদামে ধান-চাল সরবরাহে কোন মধ্যস্বত্বভোগী, দালাল চক্র কিংবা দলীয় নেতা-কর্মী স্থান পাবেনা। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সরসরি খাদ্যগুদামে ধান সরবরাহ করতে কৃষকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, দেশ এখন খাদ্যে উদ্বৃত্ত। দেশের চাহিদা ও আপদকালীন মজুত রেখে চাল রফতানির পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে। আমন ওঠার পর রফতানির নতুন লক্ষ্য ঠিক করা হবে।

প্রকাশিত : ৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:২৪ পি. এম.

০৯/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: