২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ঠাকুরগাঁওয়ে ফসলি জমিতে নির্মাণ হচ্ছে বিদ্যুত কেন্দ্র

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০১৯

এসএম জসিম উদ্দিন, ঠাকুরগাঁও ॥ বিদ্যুত বিভ্রাট বন্ধ ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ করতে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের গৌরীপুর এলাকায় ১১৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। জানা যায়, জেলায় আগের দুটি পুরনো বিদ্যুত কেন্দ্রের প্রায় ১০ একর জায়গা অব্যবহৃত অবস্থায় খালি পড়ে আছে। স্টাফ কোয়ার্টার করার জন্যও রয়েছে পর্যাপ্ত খালি জায়গা।

মাত্র কয়েক শ’ গজের মধ্যেই ছিল গ্রিড উপকেন্দ্র আর একেবারে গা ঘেঁষেই ছিল সড়ক ও রেলপথ। তারপরেও সেসব সুযোগ সুবিধা উপেক্ষা করে সেখান থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার দূরে নতুন করে ফসলি জমি কিনে গড়ে উঠছে ১১৫ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন নতুন একটি বিদ্যুত কেন্দ্র। ঠাকুরগাঁও-দিনাজপুর মহাসড়কের পাশেই সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের গৌরীপুর এলাকায় তিন ফসলি জমিতে তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুত জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন আইএ এবং বাংলাদেশ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের পিপিএ আওতাধীন ঠাকুরগাঁও ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুত কেন্দ্র। ২০২০ সালের মার্চ মাসে প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। সরকারের পক্ষে ‘এনার্জি প্যাক’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান কাজটি বাস্তবায়ন করছে। বিদ্যুত কেন্দ্রের জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত হবে ফার্নেস অয়েল।

উল্লেখ্য, ঠাকুরগাঁও শহর থেকে ৬ কিমি পশ্চিমে রেল স্টেশনের পাশেই ১৯৬৪-৬৬ সালে ৭টি জেনারেটর নিয়ে ১০.৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ‘ঠাকুরগাঁও ডিজেল বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র (ডিপিএস)’ স্থাপন করা হয়েছিল। তৎকালীন সময়ে এটিই ছিল উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র। এখানকার উৎপাদিত বিদ্যুত রংপুর দিনাজপুরে সরবরাহ করা হতো। জার্মানির ডয়েজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান এটি নির্মাণ করেন। এর দেয়াল ঘেঁষেই গড়ে ওঠে ১৩২/৩৩ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্র। দুটি কলোনিসহ বিদ্যুত কেন্দ্রের রয়েছে প্রায় ২০ একর নিজস্ব জায়গা। ২০০৯ সালের দিকে এসে ঠাকুরগাঁও ডিজেল বিদ্যুত কেন্দ্র অতি পুরাতন হয়ে যাওয়া এবং খুচরা যন্ত্রাংশের দুষ্প্রাপ্যতার কারণ দেখিয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয় এ কেন্দ্রটি। এর পরই বিদ্যুত কেন্দ্রের পাশের জায়গায় আর জেড পাওয়ার লিঃ এর ৫০ মেগাওয়াট রেন্টাল বিদ্যুত কেন্দ্র তৈরি করা হয়।

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০১৯

১৭/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: