২১ জানুয়ারী ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

এনা পরিবহনের চলন্ত বাসে শিশু ধর্ষনের চেষ্টা, সুপারভাইজার আটক

প্রকাশিত : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:৩৯ পি. এম.
এনা পরিবহনের চলন্ত বাসে শিশু ধর্ষনের চেষ্টা, সুপারভাইজার আটক

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ ॥ এনা পরিবহনের চলন্ত বাসে হবিগঞ্জের অলিপুর নামক স্থানে ৩য় শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে যাত্রীরা। তবে শনিবার বিকেলে সংঘটিত এই ঘটনার পরপরই সংশ্লিস্ট বাসের সুপারভাইজার নরপশু মানিক মোল্লা (৪৫) কে আটক করেছে পুলিশ। মানিক নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলার কাবিলপুর গ্রামের বাসিন্দা জনৈক নাজির মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, হবিগঞ্জের উপজেলা বানিয়াচঙ্গের কর্চা গ্রামের দরিদ্র পরিবারের ওই স্কুল পড়ূয়া শিশু সন্তান বিকেল পৌনে ৪ টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে চলাচলরত এনা পরিবহনের ঢাকা অভিমুখী একটি বাস নং-(ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৭৮৫১) করে বাবা অশ্বিনী বৈষ্ণব সহ শায়েস্তাগঞ্জ পুরানবাজার চৌমুহনা থেকে উঠে এবং ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। একপর্যায়ে অলিপুর ইন্ড্রাষ্ট্রিয়াল এলাকা অতিক্রমকালে কৌশলে সুপারভাইজার মানিক মোল্লা শিশুটিকে গাড়ীর পেছনের সিটে নিয়ে যায় এবং জোর পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা চালায়।

এসময় শিশুটির চিৎকারে তার বাবা, অন্যান্য যাত্রী ও ছাত্রীরা এগিয়ে আসে এবং মানিককে গণধোলাই দিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করলেও চালক গাড়ীটি টেনে মাধবপুর মুখী যেতে থাকে। এমতাবস্থায় যাত্রীদের মাধ্যমে এই ঘটনার খবর জানতে পেরে পুলিশ মাধবপুরের ইটাখোলা নামক স্থান থেকে গাড়ীর গতিরোধ করে এবং সুপারভাইজার মানিককে আটক করে এবং শিশুটিকেও নিরাপদে সরিয়ে নেয়।

এদিকে ওই শিশুর পিতা অশ্বিনী বৈষ্ণব জানান, তিনি ঢাকার টঙ্গীর পাঠান বাড়ি এলাকায় স্বপরিবারে বসবাস করেন এবং একটি ফুলের বাগানে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তার এই মেয়েটি স্থানীয় একটি ব্র্যাক স্কুলের ৩য় শ্রেনীতে পড়ে। তিনি জানান, হবিগঞ্জের নিজ বাড়ীতে বেড়াতে এসেছিলেন মেয়েকে নিয়ে।

এ ব্যাপারে মালিক মোল্লাকে আসামী করে থানায় একটি মামলা হয়েছে।

প্রকাশিত : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:৩৯ পি. এম.

১২/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: