মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

ভারতীয় ভিসা সহজ করার প্রতিশ্রুতি মরীচিকায় পরিণত

প্রকাশিত : ২৭ জুন ২০১৬, ১২:২৩ পি. এম.
ভারতীয় ভিসা সহজ করার প্রতিশ্রুতি মরীচিকায় পরিণত

অনলাইন ডেস্ক॥ বাংলাদেশীদের জন্য ভারতীয় ভিসা সহজ করার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ভারত তা মরীচিকায় পরিণত হয়েছে। ভারতের দেয়া এ সংক্রান্ত প্রস্তাবে ঘোরতর আপত্তি তুলেছিল গোয়েন্দা সংস্থাগুলো, পশ্চিমবঙ্গ ও আসাম সরকার। এর ফলে প্রস্তাবটি ‘কোয়াইটলি ড্রপড’ বা চুপিসারে ফেলে রাখা হয়েছে। বিজেপি সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর ২০১৪ সালে ঢাকা সফরে আসেন সুষমা স্বরাজ। তখন তিনি বাংলাদেশীদের জন্য ৫ বছর মেয়াদী মাল্টিপল ভিসা দেয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। প্রতিথ্রুতি দেয়া হয়েছিল বাংলাদেশী ৬৫ বছরের ওপরে ও ১৮ বছরের নিচে যাদের বয়স তাদের ভিসার নিয়মকানুন শিথিল করা হবে। কিন্তু এখনও তা বাস্তবায়ন হয় নি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য হিন্দু। এতে বলা হয়, আর বিলম্ব না করে ভারতের দেয়া ওই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে চায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিব্রতকর এ অবস্থা থেকে নিজেদের মুখ রক্ষার জন্য কর্মকর্তারা প্রায় ১৫ দিন আগে একটি বৈঠক করেছেন। সেই বৈঠক থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে মানদ- নির্ধারনের আহ্বান জানানো হয়েছে। বিজয়িতা সিংয়ের লেখা ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সুষমা স্বরাজ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর তার প্রথম বিদেশ সফরে বাংলাদেশে এসেছিলেন। সে সময় তিনি সুনির্দিষ্ট কিছু মানদন্ড অনুসরণ করে বাংলাদেশীদের ৫ বছর মেয়াদী প্রবেশ ভিসা দেয়ার ঘোষণা দেন। কিনউ তার সে প্রস্তাবে শক্ত আপত্তি তোলে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো, পশ্চিমবঙ্গ ও আসাম সরকার। এতে ওই প্রস্তাব আটকে যায়। সিনিয়র একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেছেন, এ বিষয়ের সঙ্গে জড়িত এমন সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা না করেই ওই ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। ফলে ওই সময় আসামে বিরোধী দলে থাকা ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে সবচেয়ে বেশি বাধা এসেছিল। বর্তমানে আসামে এ দলটি ক্ষমতায়। কিন্তু সেই বাধা এখনও আছে। ওই কর্মকর্তা বলেন, সেই বাধা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন তারা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেছেন, গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ওই সময় সতর্ক করে বলেছিল যে, ভারতের এমন উদ্যোগে অনুপ্রবেশ বৃদ্ধি পাবে। এ বিষয়ে চেক অ্যান্ড ব্যালেন্স নীতি অনুসরণ করতে হবে। কোন বাংলাদেশী ভিসার কোন বিধি লঙ্ঘন করছেন কিনা তা সনাক্ত করার জন্য আমাদেরকে সিস্টেম শক্তিশালী করতে হবে। মাল্টিপল ভিসার জন্য প্রতি বছর আমরা ফরেন রিজিওনাল রেজিস্ট্রেশন অফিসে ব্যক্তিগত সাক্ষাতের বিষয়টি নিয়ে আমরা পরিকল্পনা করছি। এ বিষয়টি এরই মধ্যে ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাই এটা বাস্তবায়ন করতে হবে। এ উদ্যোগ বাস্তবায়নের জন্য এরই মধ্যে চিঠি লিখেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশন। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু দ্য হিন্দুকে বলেছেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে দ্রুতই একটি সিদ্ধান্ত নেবে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের বিষয়টি তো জানাই। কিন্তু জাতির স্বার্থে ও বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের কথা বিবেচনা করে আস্থার একটি পর্যায়ে পৌঁছাতে হবে। উল্লেখ্য, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বাংলাদেশের ৬৫ বছরের বেশি বয়সী ও ১৮ বছরের কম বয়সী নাগরিকদের ভিসামুক্ত প্রবেশের সুবিধা দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে। পৌঁছামাত্র ইলেকট্রনিক টুরিস্ট ভিসা দেয়ার কথা বলা হয়েছে ১৫০টি দেশকে। এর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ। ৫ বছর মেয়াদী মাল্টিপল ভিসা, ৬৫ বছরের ওপরে ও ১৮ বছরের নিচের নাগরিকদের ভিসামুক্ত প্রবেশ এ দুটি প্রস্তাবেই গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ঘোরতর বিরোধিতা করেছে। ফলে তা চুপিসারে ফেলে রাখা হয়েছে। সূত্র - দ্য হিন্দুর রিপোর্ট

প্রকাশিত : ২৭ জুন ২০১৬, ১২:২৩ পি. এম.

২৭/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: