১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ময়মনসিংহে ছাত্র শাকিল হত্যায় ৩ বন্ধু আটক


স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ ॥ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী মোতাহসিম বিল্লাহ শাকিল হত্যাকা-ে জড়িত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ সোমবার রাতে কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর ও ময়মনসিংহের পাগলা থানা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে। গ্রেফতার হওয়া তিনজন হচ্ছে ময়মনসিংহ সদরের চুকাইতলা এলাকার আলী আহমদের ছেলে আসাদুজ্জামান পিয়াস (২০), গফরগাঁও উপজেলার ময়রা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে জামিল হোসেন পিয়াস ওরফে এল পিয়াস এবং শহরের গলগন্ডা এলাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে তোবা। এরা শহরের রয়েল মিডিয়া কলেজের শিক্ষার্থী।

কোতোয়ালি থানা পুলিশ মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতার তিন শিক্ষার্থীকে সাংবাদিকদের সামনে হাজির করে।

এ সময় কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুর রশিদ জানান, টাউনহল প্রাঙ্গণে হস্তশিল্প মেলায় মেয়ে বন্ধুকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদের জের ধরে এই হত্যাকা- ঘটেছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে গ্রেফতার শিক্ষার্থী। এই হত্যাকান্ডে রয়েল মিডিয়া কলেজ, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ, নটরডেম কলেজ ও সরকারী আনন্দ মোহন কলেজের মোট ১৪ শিক্ষার্থী অংশ নেয় বলেও জানিয়েছে গ্রেফতার তিনজন। গত ২৮ জানুয়ারি বন্ধুদের ছুরিকাঘাতে শহরের কলেজ রোড এলাকায় খুন হয় শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজের শিক্ষার্থী শাকিল। এ ব্যাপারে তিনজন এজাহারভুক্ত এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১১ জনকে আসামি করে নিহত শাকিলের বাবা এমদাদুল হক কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

গরুর ওপর ঝাল মেটাল প্রতিপক্ষ

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাগ মানুষের ওপর। আর এ রাগের ঝাল মিটিয়েছে জীবন্ত গরুকে ধারালো হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে। এ নৃশংস ঘটনাটি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার দানগাছি সাজিপাড়ার। পশুর সঙ্গে এমন নৃশংসতায় হতবাক এলাকাবাসী। হাসুয়ার উপুর্যুপরি কোপে ক্ষতবিক্ষত দুটি গরু নিয়ে এখন বিপাকে মালিক জার্মান আলী। গরু দুটির শরীরে ৫০টির বেশি সেলাই দিতে হয়েছে। রক্তক্ষরণ হলেও বেঁচে আছে গরু দুটি। জার্মান আলী জানান, পূর্বশত্রুতার জেরে হাসুয়া দিয়ে গরু দুটিকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। একটি ষাঁড় অপরটি গাভী। রবিবার রাতে প্রতিদিনের মতো গরু দুটিকে বাড়ির গোয়ালে রেখে তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। সোমবার সকালে ঘুম থেকে উঠে গরু বের করতে গিয়ে দেখেন, গরুর গা থেকে অঝোরে রক্ত ঝরে পড়ছে। এরপর ঘর থেকে বাইরে আনার পর জার্মান আলী দেখতে পান, হাসুয়া দিয়ে গরু দুটির পেটসহ একাধিক জায়গায় কোপানো হয়েছে। তিনি ভবানীগঞ্জ থেকে পশু চিকিৎসককে ডেকে এনে গরু দুটির চিকিৎসার ব্যবস্থা করান।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: