ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

তীরন্দাজ রোমান সানার আকস্মিক অবসর

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ২২:৩৪, ৩ মার্চ ২০২৪

তীরন্দাজ রোমান সানার আকস্মিক অবসর

দেশের তারকা আরচার রোমান সানা

জনজোয়ারের বিচারে বাংলাদেশে বর্তমানে এক নম্বর খেলা ক্রিকেট। এর পরই অবস্থান ফুটবল, হকিসহ অন্যান্য খেলার। কিন্তু প্রধান খেলাগুলো বাংলাদেশকে বলার মতো সাফল্য এনে দিতে পারেনি এখন পর্যন্ত। এর বাইরে অন্যান্য কয়েকটি খেলায় দারুণ সম্ভাবনা দেখা গেছে। এর মধ্যে শীর্ষ নাম আরচারি। তীর-ধনুকের এই খেলাটার নামও জানতেন না দেশের অনেক মানুষ। অথচ এই খেলাটাই বিগত কয়েক বছর ধারাবাহিকভাবে বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশের মর্যাদা বাড়িয়ে তুলেছে। বিশেষ করে বলতে হয় আরচার রোমান সানার কথা। দেশসেরা এই আরচার ধারাবাহিক চোখ ধাঁধানো সাফল্যের কারণে জাতীয় বীরে পরিণত হন। 
কিন্তু সবার নয়নের মণি হওয়া রোমান গত এক-দেড় বছরে ধীরে ধীরে পাদপ্রদীপের আলো থেকে সরে যাচ্ছিলেন। বেশ কিছু দিন ধরে চোট আর অফফর্মের কারণে হতাশও ছিলেন। সম্প্রতি জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। এর আগে শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে নিষিদ্ধও হয়েছিলেন। মাঝখানে মেয়েদের আরচারির বড় তারকা দিয়া সিদ্দিকীকে বিয়ে করেছেন।

সব মিলিয়ে আরচারিতে হয়তো মনোযোগ হারিয়ে ফেলেছেন ২৮ বছর বয়সী রোমান, সে প্রমাণ তিনি দিয়েছেন আচমকা বাংলাদেশ জাতীয় আরচারি দল থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়ে। রবিবার মিডিয়াপাড়ায় তার অবসরের ঘোষণা জানাজানি হওয়ার পর বিভিন্ন অঙ্গনের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের বিস্ময় প্রকাশ করতে দেখা গেছে। আকস্মিক এমন সিদ্ধান্তের পেছনের কারণ জানতে রোমান সানাকে বারবার ফোন দিলেও তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে মেসেজ দিলেও তিনি কোনো জবাব দেননি। আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল ও জাতীয় দলের কোচ মার্টিন ফ্রেডরিখ রোমানের অবসরের খবরটি নিশ্চিত করেছেন। কিন্তু তারা কেউই নেপথ্যের কারণ জানাতে পারেননি। অবসর নিয়ে আরচারি ফেডারেশনকে একটা চিঠি দিয়েছেন রোমান। সেখানে অবসরের পেছনে তিনি ‘ব্যক্তিগত কারণ’ লিখেছেন বলে জানা গেছে।

আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল বলেন, রোমান ফেডারেশনকে যে চিঠি দিয়েছে, সেখানে অবসরের কারণ হিসেবে ব্যক্তিগত কারণ উল্লেখ করেছে। আমরা তাকে সিদ্ধান্ত বিবেচনার অনুরোধ করেছি। কিন্তু সে তার সিদ্ধান্তে অনড়। ব্যবসা-বাণিজ্য করতে চাই, এগুলো বলেছে।
চপল আরও বলেন, কিছুদিন আগে আমার ছেলের বিয়েতে এসেছিল। হাসিখুশিই দেখলাম। তখনো অবসর বিষয়ে আমাকে কিছু বলেনি। আমাদের কারও সঙ্গেই এ নিয়ে কোনো আলোচনা সে করেনি। ক’দিন আগে ইরাকে যে টুর্নামেন্ট (এশিয়া কাপ স্টেজ-১ ওয়ার্ল্ড র‌্যাঙ্কিং টুর্নামেন্ট), সেটার ট্রায়ালের জন্য তাকে ডাকা হয়েছিল। কিন্তু সে আসেনি। নানা কারণে গত এক-দেড় বছর তেমন একটা পাদপ্রদীপের আলোয় ছিল না রোমান।

এই বিষয়গুলো তাকে সিদ্ধান্ত নিতে প্রভাবিত করে থাকতে পারে বলে মনে করেন কোচ ফ্রেডরিখ। তিনি বলেন, জাতীয় দল থেকে রোমান অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটা আমাদের জন্য মেনে নেওয়া কঠিন। অবসর নেওয়ার কারণ কেবল সেই বলতে পারে। কিন্তু আমার মনে হয়, কিছু বিষয় তাকে প্রভাবিত করে থাকতে পারে। যেমন বেশ কিছুদিন ধরে সে চোটে ছিল, পারফরম্যান্সও খুব ভালো ছিল না। এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপের ট্রায়ালে সে আসেনি।

বাংলাদেশ কোচ আরও বলেন, তা ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে সে আরচারি খেলছে। প্রায় ১৫ বছর ধরে জাতীয় দলের হয়ে খেলেছে। এগুলোর ক্লান্তিও থাকতে পারে। সে বাংলাদেশের আরচারির তারকা। তার অবসরে যাওয়াটা আমাদের জন্য দুঃখের। তবে তার সিদ্ধান্ত আমাদের মেনে নিতে হবে। তা ছাড়া আমি মনে করি, কারও চলে যাওয়া ব্ল্যাকহোল  তৈরি করে না। নতুনরা উঠে আসছে, তারা শূন্যতা পূরণ করবে। তবে আমি আশাবাদী সে নিজের সিদ্ধান্ত নিয়ে আবার ভাববে।
রোমান সানাকে দিয়েই মূলত বিশ্ব আরচারি বাংলাদেশকে চিনেছে। এই খেলার  বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় রোমানের আছে ব্রোঞ্জপদক। যা তিনি জিতেছিলেন ২০১৯ সালের বিশ্ব আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপে। বাংলাদেশের প্রথম ক্রীড়াবিদ হিসেবে অলিম্পিকে সরাসরি কোয়ালিফাই করেছিলেন তিনি। মহামারি করোনার কারণে ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে খেলেছিলেন রোমান।

২০২১ বিশ্বকাপ আরচারিতে দিয়া সিদ্দিকীকে সঙ্গী করে রিকার্ভ মিশ্র দ্বৈতের ফাইনালে উঠেছিলেন। হল্যান্ডের জুটির কাছে ফাইনালে হেরে অবশ্য রৌপ্যপদক নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল। ২০১৯ বিশ্ব আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপের সাফল্যের কারণে রাতারাতি তারকায় পরিণত হয়েছিলেন রোমান। কিন্তু তার শেষটা অন্তত সুখের হলো না।

×