ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

টাইগারদের পারফরমেন্সের প্রশংসা করেছেন অনেক ক্রিকেট বোদ্ধা

‘বিশ্বকাপ জয়ের সামর্থ্য আছে বাংলাদেশের’

শাকিল আহমেদ মিরাজ

প্রকাশিত: ০০:৫৭, ২১ জুন ২০২৪

‘বিশ্বকাপ জয়ের সামর্থ্য আছে বাংলাদেশের’

চলমান টি২০ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে এভাবেই বারবার হেসেছে টিম বাংলাদেশ

মার্কিন মুলুকে উড়াল দেওয়ার আগেই নাজমুল হোসেন শান্ত বলেছিলেন, বিশ্বকাপে দলের কাছ থেকে ভক্তরা যেন খুব বেশি কিছু প্রত্যাশা না করেন। প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপুর কণ্ঠেও ছিল অধিনায়কের বক্তব্যের প্রতিফলন। দুর্বল যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২-১এ সিরিজ হারের পর বিশ্বমঞ্চে প্রত্যাশার মাত্রাটা যেন শূন্যের কোঠায় নেমে আসে! কিন্তু তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২ উইকেটের জয়ে মোমেন্টাম পেয়ে যায় টাইগাররা।

প্রবল প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে মাত্র ৪ রানের আফসোসের হারের পর নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ২৫ ও সর্বশেষ নেপালের বিপক্ষে ২১ রানের জয়ে ‘ডি’ গ্রুপে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে থেকে সুপার এইটে উঠে আসে বাংলাদেশ। ব্যাটসম্যানরা এখনো প্রত্যাশিত পারফর্ম করতে না পারলেও দুর্দান্ত বোলিংয়ে বড় অবদান তিন পেসার মুস্তাফিজুর রহমান, তানজিম হাসান সাকিব, তাসকিন আহমেদ ও লেগস্পিনার রিশাদ হোসেনের। দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি ডেল স্টেইনের মতে, ‘এই বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জয়ের সামর্থ্য আছে।’ 
সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ গ্রেট কার্টলি অ্যামব্রোস বলছেন, ফাইনাল না হলেও সেমিফাইনালে যেতে পারে শান্তর দল। এদিকে গ্রুপ পর্বের পারফরমেন্স দেখে তানজিম সাকিব, রিশাদ, মুস্তাফিজকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন ভারতীয় তারকা দীনেশ কার্তিক। টাইগারদের সামর্থ্য নিয়ে স্টেইন বলেন, ‘আমি মনে করি তাদের বিশ্বকাপ জয়ের সামর্থ্য আছে। তবে ব্যক্তিগতভাবে মনে করি তারা জিতবে না, আমি এক্ষেত্রে আরও ১-২টি দলকে এগিয়ে রাখব। তবে তাদেরও সুযোগ আছে। এটাই ক্রিকেটের সৌন্দর্য। সেমিফাইনালে ওঠে গেলে বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জয় থেকে মাত্র ২ ধাপ দূরে থাকবে। পিচ তাদের পক্ষে, যদি কন্ডিশন তাদের বোলারদের সহায়তা করে আর ভাগ্য পাশে থাকে তাদের ফাস্ট বোলাররা সত্যিই ভালো করছে। স্পিনাররা তো সবসময় ভালো করছে।’ এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের ৪ ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে গ্রুপ-পর্ব শেষে যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি বাংলাদেশের তানজিম সাকিব।

বোলিং করেছেন ৪.৮০ ইকোনমিতে। তার প্রসঙ্গে স্টেইন বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ম্যাচে আমি মাঠে ধারাভাষ্যের কাজ করছিলাম, তখন কিছুটা কথা হয়েছে। তার গতি আছে। সুইং করতে পারে। ইয়র্কার, চেঞ্জ অব পেস সবই তার আছে। ওভার দ্য উইকেট বা রাউন্ড দ্য উইকেটেও দারুণ বোলিং করে।’ সাবেক প্রোটিয়া পেসার আরও যোগ করেন. ‘তাদের (বাংলাদেশ) এই অভিজ্ঞতা ও বিশ্বাস আছে ম্যাচ জিততে পারে। ১২-১৫ আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলতে গেলে মনে হতো তারা এখনকার নেপাল দলের মতো। তারা এখন ম্যাচ জিতছে, বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষকে হারাচ্ছে, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলকেও হারাচ্ছে, তাদের মধ্যে এই বিশ্বাস জন্মেছে যে তারা জিততে পারে।’

বাংলাদেশকে সুপার এইটে তুলতে রিশাদও রেখেছেন বড় ভূমিকা। ৪ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়েছেন তরুণ এ লেগস্পিনার। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, দলকে প্রয়োজনের মুহূর্তে উইকেট এনে দিয়েছেন। গ্রুপ পর্বে রিশাদের পারফরমেন্সে মুগ্ধতার জানিয়েছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার দীনেশ কার্তিক, ‘আমার পছন্দ একটু ভিন্ন ধরনের। আমার পছন্দ রিশাদ। সে যেভাবে বোলিং করেছে, তাতে আমি মুগ্ধ। উইকেট থেকে ‘বাইট’ আদায় করে টার্ন পেয়েছে। খুব বেশি উইকেট পায়নি। তবে তাকে দুর্দান্ত প্রতিভা মনে হচ্ছে। বাংলাদেশ দলে রিস্ট স্পিনার খুব বেশি দেখা যায় না।

আমার মনে হয় রিশাদের মধ্যে তারা দারুণ কিছু খুঁজে পেয়েছে।’ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারায়। সেই ম্যাচে জিতেই মূলত সুপার এইটে যাওয়ার পথে অনেকটা এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। এ প্রসঙ্গে কার্তিক বলেছেন, ‘বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচে যে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ মনোভাব থেকে, তা ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ বা ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সঙ্গে লড়াই করতে পারে। তারা নিজেদের কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আবহ তৈরি করেছে। এবারের বিশ্বকাপেও নিউইয়র্কের লো স্কোরিং ম্যাচটি  শেষ পর্যন্ত গেছে। ’
একই অনুষ্ঠানে ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভনও বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন। তবে সেমিফাইনালে বাংলাদেশকে দেখছেন না তিনি, ‘স্পিনিং উইকেটে বাংলাদেশ ভয়ংকর, যে কোনো দলের বিপক্ষে লড়াই করতে পারে। সাকিব ফর্মে ফিরেছে, কিছু রান করেছে, উইকেট পেয়েছে। ফিজ ও তানজিম নেপালের বিপক্ষে ৮ ওভারে ১৪ রান দিয়ে ৭ উইকেট পেয়েছে। পেসাররাও ভালোই করছে। কিন্তু বাংলাদেশ কি সেমিফাইনালে যেতে পারবে? আমার মনে হয় না।’ সুপার এইটে বাংলাদেশের তিন প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও আফগানিস্তান।

×