ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বিশ্বকাপ কন্ডিশন বোঝার সিরিজ টাইগারদের

শাকিল আহমেদ মিরাজ

প্রকাশিত: ০০:৪৫, ২১ মে ২০২৪

বিশ্বকাপ কন্ডিশন বোঝার সিরিজ টাইগারদের

বাংলাদেশ ও ইউএসএ ক্রিকেট

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ যদি বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য হয় তাইলে ক্যামনে কি! খারাপ শোনালেও তির্যক মন্তব্যে বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেদের অবস্থান এবং কোথায় দৃষ্টি রাখতে হবে, সেটিই পরিষ্কার করে দিয়েছিলেন বড় তারকা সাকিব আল হাসান। অপরিচিত যুক্তরাষ্ট্রকে অবশ্য সেই কাতারে ফেলার সুযোগ নেই! কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে এবারের টি২০ বিশ্বকাপের সহ-আয়োজক তারা।

সুতরাং কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে নাজমুল হোসেন শান্তদের জন্য তিন ম্যাচের এই সিরিজটার গুরুত্ব অনেক। টেক্সাসে পা-রেখেই বিরুপ আবহাওয়ার মধ্যে পড়ে টিম-বাংলাদেশ। ঝড়ে ল--ভ- হয়ে যায় গোটা এলাকা। দুদিন হোটেলবন্দি থাকা টাইগাররা রবিবার প্রথমবারের মতো অনুশীলনে নামে। সুখবর হচ্ছে, ইউএসএ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন (ইউএসএসিএ) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সিরিজে ঝড়ের কোনো প্রভাব পড়ছে না, ম্যাচগুলো নির্ধারিত সময়ে নির্বিঘেœই অনুষ্ঠিত হবে। হিউস্টনের প্রেইরি ভিউ ক্রিকেট কমপ্লেক্সে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় শুরু প্রথম টি২০, পরের দুই ম্যাচ বৃহস্পতি ও শনিবার।  
বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের জন্য প্রেইরি ভিউ ক্রিকেট কমপ্লেক্সকে প্রস্তুত করে রেখেছিল আমেরিকান বোর্ড। ঝড়ের পর তোলা এক ছবিতে দেখা যায়, এখানে-সেখানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে অস্থায়ী স্থাপনা। ডাগআউট ও ভিআইপি টেন্ট মিশে গেছে মাটির সঙ্গে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাইটস্ক্রিন ও প্র্যাকটিস নেট। তবে দ্রুততম সময়ের মধ্যে মাঠকর্মীরা ভেন্যু খেলার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত করে তুলেছেন। ইউএসএ বোর্ডের পক্ষ থেকে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে।

যে কোনো ঘারনার ক্রিকেটেই যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ প্রথম সিরিজ এটি। সেই অর্থে বিশ্ব রাজনীতির সুপার পাওয়ার আমেরিকার জন্য সিরিজটা ‘ঐতিহাসিক’! বাস্কেটবল ও বেসবলের দেশে ক্রিকেটের দর্শক যে খুব বেশি নেই ইউএসএ বোর্ডও সেটি ভালো করে জানে। তাই তো এই সিরিজের টিকিট বিক্রির জন্য টাইগারদের ছবি ব্যবহার করে একটি পোস্ট দিয়ে ক্রিকেট ইউএসএ তার ক্যাপশনে লিখেছে, ‘প্রেইরি ভিউ ক্রিকেট কমপ্লেক্সে টি২০ সিরিজ সামনে রেখে প্রস্তুতি চলছে।

২১ মে থেকে শুরু হচ্ছে।’ প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের মতো টেস্ট খেলুড়ে এলিট দেশের সঙ্গে তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ, যুক্তরাষ্ট্র বোর্ডের সঙ্গে দেশটির ক্রিকেটাররাও নিশ্চয়ই রোমাঞ্চিত। নিশ্চিত ফেভারিট বলেই শান্তদের জন্য সিরিজটা ‘চ্যালেঞ্জিং’। বিশ্বকাপের ঠিক আগে র‌্যাঙ্কিংয়ের ১৯ নম্বরে থাকা দলটার কাছে কোন ম্যাচ হেরে বসলে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হবে বাংলাদেশকে (৯ নম্বরে)। অচেনা প্রতিপক্ষ, অচেনা উইকেট-কন্ডিশন, তার ওপর খেলা দিনের আলোয়, স্থানীয় সময় সকাল নয়টায়। 
বাংলাদেশ কেন বিশ্বের কোন বড় দলই এখন আর সকালে আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচ খেলছে না। অবশ্য বিশ্বকাপ এবং যুক্তরাষ্ট্র সিরিজ মাথায় রেখে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে সিরিজের একটা ম্যাচ সকালে খেলে সেটাতেই হেরে গিয়েছিল শান্তর দল! বাংলাদেশের সাবেক কোচ স্টুয়ার্ট ল বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান কোচের দায়িত্বে। সাকিব-মুস্তাফিজদের ভেতরের খবর জানা তার। এ অস্ট্রেলিয়ান জানিয়েছেন, সিরিজে চমক দেখাতে চাইবে যুক্তরাষ্ট্র।

নিজ আঙিনায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪-১এ সিরিজ জিতলেও দুটি ম্যাচে হারতে হারতেও বেঁচে গেছে বাংলাদেশ। অধিনায়ক শান্তসহ টপঅর্ডারে অফ-ফর্ম, ধারাবাহিকতার অভাব আর মন্থর স্ট্রাইক রেটের ব্যাটিংয়ে বিশ্বকাপের আগে বেশ চাপে টাইগাররা। এই সিরিজে বেশির ভাগ দর্শক যে হবেন বাংলাদেশী, সেটা না বললেও চলছে। প্রবাসী বাংলাদেশীরা তো আছেনই। যুক্তরাষ্ট্রের দলে মার্কিন ক্রিকেটারের সংখ্যা খুবই কম।

এই দলে আছেন একসময় নিউজিল্যান্ডের তারকা ক্রিকেটার কোরি অ্যান্ডারসন। আছেন মোনাঙ্ক প্যাটেল, আলি খানের মতো উপমহাদেশীয় ক্রিকেটাররাও। অথচ যুক্তরাষ্ট্রের ক্রিকেট ইতিহাস অনেক পুরনো। ১৮৪৪ সালে কানাডার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এই ১৮০ বছরের মধ্যে দেশটির জাতীয় দল কেবল কানাডার বিপক্ষেই খেলেছে। যে কারণে মার্কিন মুল্লুকে ওইভাবে ক্রিকেটের বিস্তার ঘটেনি।

পরিতাপের বিষয় হচ্ছে, এত পুরনো যাদের ক্রিকেট ইতিহাস, সেই দেশটি ঘরের মাঠে বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে প্রায় সব অভিবাসী খেলোয়াড় নিয়ে। দেশটির অভিবাসী ক্রিকেটারদের মধ্যে বড় তারকা অবশ্যই কোরি অ্যান্ডারসন। যুক্তরাষ্ট্রের এই দলটিতে ভারতীয় ক্রিকেটারেরও ছড়াছড়ি।

গুজরাটে জন্ম নেওয়া ডানহাতি ব্যাটার মোনাঙ্ক প্যাটেল দলটির অধিনায়ক। নিউজিল্যান্ডের হয়ে ২০১৪ ও ২০১৬ সালের টি২০ বিশ্বকাপ আর ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলেছেন অ্যান্ডারসন। এরপর নিজের দেশের ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় দলে যোগ দেন এই কিউই ব্যাটার।  
সিরিজ শেষে ২৮ মে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষেই আইসিসি কর্তৃক নির্ধারিত ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ১ জুন ভারতের বিপক্ষে হবে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ। বিশ্বকাপের লড়াই শুরুর আগে সবমিলিয়ে বাংলাদেশ নিজেদের প্রস্তুতির জন্য পাচ্ছে ৫টি ম্যাচ। ৮ জুন ডালাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে শান্তদের মিশন। বাকি তিন ম্যাচের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা, নেদারল্যান্ডস ও নেপাল। প্রথম দুটি ম্যাচ যুক্তরাষ্ট্রে বাকি দুটি ওয়েস্ট ইন্ডিজে।

×