ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদ-ম্যানচেস্টার সিটি মহারণ

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০১:১০, ৯ এপ্রিল ২০২৪

বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদ-ম্যানচেস্টার সিটি মহারণ

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবল

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের আসরে চলমান মৌসুমে যেন কোয়ার্টার ফাইনালেই শিরোপা লড়াইয়ের আমেজ। কেননা এই মঞ্চে মুখোমুখি হচ্ছে আসরের ইতিহাসের সর্বোচ্চ ১৪ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি। দু’দলের শেষ আটের প্রথম লেগের ম্যাচটি মাঠে গড়াবে আজ রাত ১টায়। ম্যাচটি হবে রিয়াল মাদ্রিদের মাঠ সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে। রাতে শেষ আটের প্রথম লেগের আরেক ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ইংলিশ ক্লাব আর্সেনাল ও জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখ।

ম্যাচে রিয়াল যদি সিটির বিরুদ্ধে সত্যিকার অর্থেই প্রতিশোধ নিতে চায় তবে তাদেরকে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে রড্রির দুর্দান্ত ৬৪ ম্যাচের অপরাজিত থাকার রেকর্ডকে থামাতে হবে। ২৭ বছর বয়সী স্প্যানিশ তারকা রড্রি সবশেষ ২০২৩ সালের মার্চে স্কটল্যান্ডের বিরুদ্বে ইউরো ২০২৪ বাছাইপর্বে স্পেনের হয়ে হারের স্বাদ পেয়েছিলেন।

এরপর তিনি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে গোল করে সিটিকে শিরোপা উপহার দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, সিটিকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, ইংলিশ এফএ কাপ, উয়েফা সুপার কাপ ও ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপের শিরোপাও জিতিয়েছেন। পাশাপাশি স্পেনের উয়েফা  নেশন্স লিগের শিরোপা জয়েও অবদান রেখেছেন।
যে কারণে সিটি কোচ পেপ গার্ডিওলা প্রায় সব সময় রড্রিকে বিশে^র সেরা মিডফিল্ডার হিসেবে প্রশংসা করে থাকেন। সিটিতে বেশ কয়েকজন তারকা খেলোয়াড় থাকার পরও সিটি কোচের কাছে রড্রি সবচেয়ে কার্যকর হিসেবে প্রমাণ করেছেন। দীর্ঘ ইনজুরির কারণে এবারের মৌসুমে বেশিরভাগ ম্যাচে সিটিজেনরা আর্লিং হালান্ড ও কেভিন ডি ব্রুইনাকে দলে পায়নি।

মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় সিটির চারটি হারের ম্যাচেই নিষেধাজ্ঞার কারণে রড্রি অনুপস্থিত ছিলেন। সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে দুই সপ্তাহ আগে স্পেন ও ব্রাজিলের মধ্যকার ৩-৩ গোলের ড্র হওয়া প্রীতি ম্যাচেও রড্রি জোড়া গোল করেছেন। গত সপ্তাহে অ্যাস্টন ভিলার বিরুদ্ধে মৌসুমের অষ্টম গোল করার পর গার্ডিওলা বলেন, রড্রিই সেরা। তার পজিশনে সেই সেরা। যে কারণে আমার কাছে মনে হয় আমার দলে সবকিছু আছে। যেভাবে রড্রি ম্যাচের আবহ বুঝতে পারে তাতে মনে হয় সবসময় সে প্রস্তুত থাকে। অনেক দিক থেকেই সে সেরা। উপস্থিতি, শারীরিক সক্ষমতা, সব মিলিয়ে একজন পরিপূর্ণ খেলোয়াড় হিসেবে রড্রি মাঠে নামে। 
গত গ্রীষ্মে জুড বেলিংহামকে দলে ভেড়ানোটা রিয়াল মাদ্রিদের জন্য অনেক বড় সফলতা। আর্থিকভাবে লাভবান প্রিমিয়ার লিগের কোনো ক্লাবই তাদের ঘরের ছেলেকে ধরে রাখতে পারেনি। কিন্তু সিটি বিশ^াস করে মাদ্রিদে জন্ম নেওয়া রড্রি প্রায় একইভাবে বেলিংহামের মতোই নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করে চলেছে। ভিয়ারিয়াল থেকে মাত্র এক মৌসুম অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে কাটানোর পর ২০১৯ সালে ৬২ মিনিয়র ইউরোতে রড্রিকে দলে ভেড়ায় সিটি। বেলিংহাম ও রড্রির মধ্যে মুখোমুখি লড়াইয়ে কে জিতবে তা সময়ই বলে দিবে। কিন্তু এ দু’জনই যে তাদের নিজ নিজ দলের লম্বা রেসের ঘোড়া তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। 
গত তিন মৌসুমে স্প্যানিশ ও ইংলিশ জায়ান্টের মধ্যে এটি তৃতীয় সাক্ষাৎ। দুই বছর আগে বার্নাব্যুতে সিটি দুই গোলে এগিয়ে থাকলেও অতিরিক্ত সময়ের গোলে সমতায় ফিরে এসে পরে রিয়াল ১৪তম ইউরোপিয়ান শিরোপা ঘরে তুলেছিল। এক বছর পর সেমিফাইনালে গার্ডিওলার দল রিয়ালকে তাদের ঘরের মাঠে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে মধুর প্রতিশোধ নেয়। এবার রিয়াল ওই হারের প্রতিশোধ নিতে পারে কি না সেটাই দেখার। তবে সেটা করতে হলে রড্রিকে আটকানোর বিকল্প নেই গ্যালাক্টিকোদের!

×