ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০

ব্রাজিলে শেষ ম্যাচে জোড়া গোল সুয়ারেজের

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫৯, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

ব্রাজিলে শেষ ম্যাচে জোড়া গোল সুয়ারেজের

জোড়া গোল সুয়ারেজের

বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে উরুগুয়েন তারকা লুইস সুয়ারেজ বিশ্বের কয়েকটি সেরা ক্লাবে খেলেছেন। সর্বশেষ তিনি খেলেছেন ব্রাজিলিয়ান ক্লাব গ্রেমিওর হয়ে। ক্লাবটির হয়ে বৃহস্পতিবার শেষ ম্যাচ খেলেছেন ৩৬ বছর বয়সী সুয়ারেজ। পেলের দেশে বিদায়ী ম্যাচটা তিনি রাঙিয়েছেন জোড়া গোল করে। সুয়ারেজের নৈপুণ্যে বিখ্যাত মারাকানা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে গ্রেমিও ৩-২ গোলে হারিয়েছে ফ্লুমিনেন্সকে। উরুগুয়ান ফুটবল আইকন সুয়ারেজ ম্যাচের ৪৩ মিনিটে প্রথম গোল করেন। পরে ৬৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে দ্বিতীয় গোল করেন।

এই জয়ে গ্রেমিও ব্রাজিলিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ শেষ করেছে দ্বিতীয় স্থানে থেকে। পালমেইরাস ২ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। গ্রেমিওতে দুই বছরের চুক্তি করেছিলেন সুয়ারেজ। কিন্তু ব্যস্ত সূচির কারণে মাত্র এক মৌসুম খেলে বিদায় নিলেন তিনি। ২০২৩ সালে গ্রেমিওর খেলা ৬৪ ম্যাচের ৫৪টিতেই মাঠে নেমেছেন সুয়ারেজ। এ সময়ে গোল করেছেন ২৯টি। করিয়েছেন আরও ১৭টি। সুয়ারেজের পরবর্তী গন্তব্য হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাব ইন্টার মায়ামির কথা শোনা যাচ্ছে। যেখানে আছেন তার বন্ধু লিওনেল মেসি। যদিও গ্রেমিওর মাঠে সর্বশেষ ম্যাচের দিন বিষয়টি পরিষ্কার করতে চাননি তিনি। সেদিন বলেছিলেন, পরিবারকে সময় দেওয়া ও স্বাস্থ্যের দিকে নজর দেয়া তার এই মুহূর্তের প্রধান লক্ষ্য।

গত জুলাইয়ে সুয়ারেজ গ্রেমিও ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানানোর পর ক্লাব ও স্থানীয় রাজনীতিবিদদের অনেকে তাকে সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বলেছিলেন। তবে শরীরের দিকটি প্রাধান্য দিয়ে সিদ্ধান্তে অটল থেকেছেন তিনি। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে আয়াক্সা, লিভারপুল, বার্সিলোনা, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদসহ আরও অনেক ক্লাবে খেলেছেন সুয়ারেজ। বার্সায় খেলাকালীন লিওনেল মেসি ও নেইমারের সঙ্গে তাদের ত্রয়ী ইতিহাসে বিখ্যাত হয়েছিল। ওই সময় ‘এমএসএন’ ত্রয়ী গোটা দুনিয়ায় আলোড়ন তুলেছিল। তখনকার সময় অনেক ম্যাচেই গোলের নেশায় মত্ত হয়েছিলেন সুয়ারেজ। যেমন একবার ডিপোর্টিভোলা করুণাকে ৮-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল কাতালানারা। ওই ম্যাচে নিজে চার গোল করাসহ আরও তিনটিতে সহায়তা করেছিলেন উরুগুইয়ান তারকা সুয়ারেজ। তার আগের ম্যাচেও করেছিলেন হ্যাটট্রিক।

টানা দুই ম্যাচে চার গোল করার কীর্তি স্প্যানিশ লা লিগার ইতিহাসে আর কোনো ফুটবলারের নেই। যেন সুয়ারেজ তখন একাই একশ’ ছিলেন। আয়াক্স-লিভারপুল হয়ে বার্সিলোনা। সময়ের পরিক্রমায় সুয়ারেজ আরও অনেক বেশি পরিপক্ব হয়েছেন। পারফর্ম্যান্সের বাইরেও বিতর্কিত কা- ঘটিয়ে আয়াক্স কিংবা লিভারপুলের সুয়ারেজ আলোচনায় এসেছেন বহুবার। কিন্তু সেই সুয়ারেজ বার্সিলোনায় দুর্দান্ত ছিলেন। বিতর্ক ভুলে সেখানে ছিলেন মনোযোগী ছাত্র। অর্থাৎ সব মনোযোগ ছিল শুধুই মাঠের খেলায়। সেই সুয়ারেজ এখন অবশ্য ক্যারিয়ারের সাহাহ্নে অবস্থান করছেন।

×