ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

খেলোয়াড়, অধিনায়ক হিসেবে পারেননি, এবার কোচ হয়েও পারলেন না মিস্টার ডিপেন্ডেবল

তারপরও গর্বিত রোহিত, নেতৃত্বে মুগ্ধ দ্রাবিড়

জিএম মোস্তফা

প্রকাশিত: ২২:৪৪, ২০ নভেম্বর ২০২৩

তারপরও গর্বিত রোহিত, নেতৃত্বে মুগ্ধ দ্রাবিড়

অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও কোচ রাহুল দ্রাবিড়

পুরো বিশ্বকাপই এবার ভারতের একক দাপট দেখেছে গোটা ক্রিকেট দুনিয়া। কোহলি-রোহিত-শামিদের দুর্ধর্ষ ব্যাটিং আর আগুনে বোলিং পারফর্ম্যান্সের সৌজন্যে তাই দীর্ঘ এক যুগের শিরোপাখরা ঘুচানোর স্বপ্নে এবার বিভোর ছিল স্বাগতিক শিবির। কিন্তু বিধিবাম। ভারতের আহমেদাবাদের নীল সমুদ্রে রবিবার হলুদ উৎসব করেছে হেড-কামিন্স-স্টার্কদের অস্ট্রেলিয়া। ফাইনালে ভারতকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জয়ের নজির গড়ল অজিরা।

এবারের বিশ^কাপে প্রথম ১০ ম্যাচে টানা জয়ের অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়েছিল ভারত। যে কারণে ফাইনালে এমন হার কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না স্বাগতিক সমর্থকরা। অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজয়ের পর ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা অকপটেই স্বীকার করে নিয়েছেন যে তার দল মোটেই ভালো খেলেনি। এ ব্যাপারে ফাইনালের শেষে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত বলেন, ‘আমি মনে করি এই ফলাফল আমাদের পারফর্ম্যান্সের সঙ্গে যায় না। আজ আমরা যথেষ্ট ভালো খেলতে পারিনি। কিন্তু তারপরও এই দল নিয়ে আমি গর্বিত। এটা হওয়ার কথা ছিল না। সত্যি বলতে কি ২০ থেকে ৩০ রান বেশি হলে ফলাফল ভিন্ন হতে পারত। রাহুল আর কোহলি যখন ব্যাটিংয়ে ছিল আমরা তখন ২৭০-২৮০ রানের দিকে তাকিয়ে ছিলাম। কিন্তু উইকেট পড়ে যাওয়ায় বড় স্কোর হয়নি।’
ভারতীয় দলপতির মতে, হেড আর লাবুশেনই এদিন ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে। রোহিত শর্মার ভাষ্যমতে, ‘২৪০ রান স্কোরবোর্ডে রেখে আমরা দ্রুতই উইকেট তুলে নিতে  চেয়েছিলাম। কিন্তু হেড ও লাবুশেনকে আসলেই কৃতিত্ব দিতে হয়। তারা আমাদের সম্পূর্ণভাবে ম্যাচ থেকে ছিটকে দিয়েছে। আমি মনে করি ফ্লাডলাইটের আলোয় ব্যাট করার সুবিধা ছিল। আমি বলতে চাচ্ছি রাতে আমরা ব্যাটিং করার সুবিধাটা জানতাম। কিন্তু এসব কোনো অযুহাত নয়।’
ঘরের মাটিতে বিশ্বকাপের ১৩তম সংস্করণে ভারতের অপ্রতিরোধ্য যাত্রায় নায়কের ভূমিকায় ছিলেন বিরাট কোহলি।

টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান করে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারটাও নিজের করে নিয়েছেন তিনি। ১১ ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৭৬৫ রান করার পথে অবশ্য এই বিশ্বকাপে বেশ কিছু রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন টিম ইন্ডিয়ার সাবেক অধিনায়ক। কোহলির পরই ব্যক্তিগত রান সংগ্রাহকের তালিকার দ্বিতীয় স্থানটি রোহিত শর্মার। ১১ ইনিংসে তার সংগ্রহ ৫৯৭। অধিনায়ক হিসেবে ভারতের মতো দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি নিয়মিতই ব্যাট হাতে দারুণ সূচনা করে এই বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলার তাই অন্যতম নায়কও রোহিত।

তাই ফাইনালে হারলেও টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়কের ভূয়সী প্রশংসা করেন কোচ রাহুল দ্রাবিড়। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি সে একেবারেই ব্যতিক্রম একজন নেতা। সত্যিই রোহিত দলকে দারুণভাবে নেতৃত্ব দিয়েছে। ছেলেদের সঙ্গে ড্রেসিংরুমে যথেষ্ট সময়ের পাশাপাশি তার শক্তিও দিয়েছেন রোহিত। আমাদের যে কোনো আলোচনার বিষয়-বস্তুতেই তাকে সবসময় পাওয়া গেছে। নেতৃত্বের পাশাপাশি তার ব্যাটিংও বেশ চমৎকার।’
২০২৩ বিশ্বকাপে ভারতের দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্সের নৈপথ্যে নায়ক ছিলেন টিম ইন্ডিয়ার কোচ রাহুল দ্রাবিড়। ২০ বছর পর আবারও রাহুল দ্রাবিড়ের সামনে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জয়ের সুবর্ণ সুযোগ ছিল। কিন্তু সেই মঞ্চেই তীরে এসে তরী ডুবলো ভারতের। যে কারণে চরম হতাশা নিয়েই ফাইনাল শেষ করতে হলো তাকে। তার অপ্রতিরোধ্য দেওয়ালে হয়ত ক্রিকেট বিশ্বের বহু বাঘা বাঘা বোলার প্রতিহত হয়ে ফিরে গিয়েছেন। কিন্তু আক্ষেপ একটাই যে তার ঝুলিতে কোনো আইসিসি ট্রফি নেই।

১৯৯৯ এবং ২০০৩ সালে ক্রিকেটার হিসেবে সুযোগ থাকলেও বিশ্বকাপ জিততে পারেননি দ্রাবিড়। এরপর ২০০৭ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন। কিন্তু সেবার ভরাডুবি হয়েছিল ভারতের। তারপর আর ক্রিকেটার হিসেবে খেলেননি। অবশেষে ২০২৩ সালে কোচ হিসেবে তার বিশ্বকাপ জয়ের একটা সুযোগ এসেছিল। এমনকি অধিনায়ক রোহিত শর্মাও জানিয়েছিলেন যে দ্রাবিড়ের জন্যই তিনি এবারের বিশ্বকাপটা জিততে চান। কিন্তু এবারও সেই ব্যর্থতাই সাক্ষী রইল দ্রাবিড়ের।

×