ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস খেলে সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ

দ্রুততম অর্ধশতকের রেকর্ড লিটনের

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ০০:১৩, ৩০ মার্চ ২০২৩

দ্রুততম অর্ধশতকের রেকর্ড লিটনের

লিটন কুমার দাস

সাগরিকার আকাশ মেঘে ঢাকা, সঙ্গে ঝড়ো বৃষ্টিতে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে সময়মতো শুরু হয়নি। প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা অপেক্ষায় থেকে যেন বৃষ্টি শেষে ঝড় তোলার মানসিকতায় ছটফট করেছেন লিটন কুমার দাস। টি২০ ম্যাচে এমনিতেই ব্যাটাররা থাকেন বোলারদের ওপর আগ্রাসী। বৃষ্টির কারণে ম্যাচ ১৭ ওভারে নেমে আসার পর বুধবার লিটন যেন আরও রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন। গত বছর বিশ^কাপে এডিলেডে অল্পের জন্য দেশের পক্ষে দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড ছুঁতে পারেননি, ভারতের বিপক্ষে করেন ২১ বলে ফিফটি।

সেই আক্ষেপ কাটাতেই যেন ব্যাট হাতে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে চালিয়েছেন তা-বলীলা। মাত্র ১৮ বলেই ক্যারিয়ারের দশম অর্ধশতক পেয়েছেন তিনি। শুধু টি২০ ম্যাচেই নয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ফরম্যাটে এটিই বাংলাদেশের পক্ষে দ্রুততম অর্ধশতকের রেকর্ড। না থেমে ঝড়ো ব্যাটিং চালিয়ে সেঞ্চুরির পথে এগিয়ে যান। যথেষ্ট সময় ও সুযোগ থাকলেও ১২তম ওভারে সাজঘরে ফিরেছেন সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ নিয়ে। তবে যেকোন পর্যায়ের স্বীকৃত টি২০-তে ৪১ বলে ১০ চার, ৩ ছক্কায় ৮৩ রানের ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস উপহার দিয়েছেন। 
দীর্ঘ বৃষ্টির জন্য অপেক্ষা। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ। নির্দিষ্ট সয়ের সোয়া এক ঘণ্টা পর খেলা শুরুর কথা থাকলেও আবার বৃষ্টি নেমে প্রায় আধা ঘণ্টা পিছিয়ে দিয়েছে খেলা। বল গড়ানোর অপেক্ষায় ব্যাটে যেন শাণ দিচ্ছিলেন লিটন ড্রেসিংরুমে বসে। তার সঙ্গে রনি তালুকদারও নিজেকে প্রস্তুত করছিলেন। অবশেষে ব্যাট হাতে নেমেই আয়ারল্যান্ডের বোলারদের কড়া শাসন শুরু করেন লিটন। একপ্রান্তে দাঁড়িয়ে নিরব দর্শক হয়ে বিস্ফোরোন্মুখ লিটনকে চেয়ে চেয়ে দেখেছেন রনি।

দ্বিতীয় ওভারে নিজের মোকাবেলা করা পঞ্চম বলে প্রথম বাউন্ডারি হাঁকান লিটন পেসার মার্ক এডায়ারকে। তৃতীয় ওভারে প্রথম ছক্কা হাঁকান গ্রাহাম হিউমকে। এরপর থেকেই লিটনের ব্যাটের ধ্বংসলীলায় একেএকে তছনছ হতে থাকেন আইরিশ বোলাররা। চতুর্থ ওভারে এডায়ারকে রীতিমতো বিপর্যস্ত করেন তিনি। প্রথম বলে ছক্কা, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে টানা দুই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে বাংলাদেশ দলের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড গড়ে দেন। পাওয়ার প্লে’র সুযোগটা কাজে লাগিয়ে অবলীলায় আইরিশ বোলারদের উইকেটের চারদিকে ইচ্ছেমতো পিটাতে থাকেন লিটন।

পঞ্চম ওভারে ফিওন হ্যান্ডের প্রথম দুই বলে চার এবং তৃতীয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ১৭ রান তুলে নেন তিনি। ষষ্ঠ ওভারে ক্রেইগ হোয়াইটের প্রথম বলেই ১ রান নিয়ে অর্ধশতক পূর্ণ করেন লিটন মাত্র ১৮ বলে। গড়ে ফেলেন বাংলাদেশের পক্ষে দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড। 
আন্তর্জাতিক টি২০তে ৭০তম ম্যাচে নেমে ক্যারিয়ারের দশম অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন লিটন। বাংলাদেশী ব্যাটারদের মধ্যে আর শুধু সাকিব আল হাসানেরই ১০টির বেশি আন্তর্জাতিক টি২০ হাফসেঞ্চুরি আছে। দেশের পক্ষে সর্বাধিক ১২টি আন্তর্জাতিক টি২০ অর্ধশতক সাকিবের। তবে ১০ নম্বর হাফসেঞ্চুরি পেতে তাকে খেলতে হয়েছে ৯৭ ইনিংস। লিটন ৬৯ ইনিংসেই করলেন ১০টি। ২০১৫ সালের জুলাইয়ে আন্তর্জাতিক টি২০ অভিষেক লিটনের।

৭ বছরে মাত্র ৪ ফিফটি হাঁকিয়েছিলেন ৪৫ ম্যাচের ৪৪ ইনিংস ব্যাট করে। আর গত বছর মার্চ থেকে বুধবার পর্যন্ত মাত্র এক বছরে ২৫ ম্যাচে ৬টি অর্ধশতক হাঁকালেন লিটন। অথচ আন্তর্জাতিক টি২০তে প্রথম ফিফটি পেতে তার খেলতে হয়েছে ১৫ ম্যাচ। এর আগে বাংলাদেশের পক্ষে টি২০তে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি ছিল মোহাম্মদ আশরাফুলের। তিনি ২০০৭ টি২০ বিশ্বকাপে ২০ বলে অর্ধশতক হাঁকান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জোহানেসবার্গে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই লিটন ৩ ফরম্যাট মিলিয়ে বাংলাদেশের পক্ষে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড গড়লেন।

ওয়ানডে ও টেস্টের দ্রুততম ফিফটিও আশরাফুলের দখলে। তিনি ২০০৫ সালে নটিংহ্যামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২১ বলে দেশের দ্রুততম ওয়ানডে ফিফটি করেন। আর ২০০৭ সালে ভারতের বিপক্ষে মিরপুরে ২৬ বলে দেশের পক্ষে দ্রুততম ফিফটি করেন আশরাফুল। যে কোনো পর্যায়ের টি২০তে কোনো বাংলাদেশীর এটি দ্বিতীয় দ্রুততম অর্ধশতক। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে শুভাগত হোম প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) টি২০ আসরে মিরপুরে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ১৬ বলে ফিফটি হাঁকান। এরপরই লিটন। গত টি২০ বিশ্বকাপে দ্রুততম ফিফটি হাঁকানোর সুযোগ পেয়েছিলেন লিটন।

এডিলেডে ভারতের বিপক্ষে ২১ বলে ফিফটি করে বাংলাদেশের পক্ষে আন্তর্জাতিক টি২০তে দ্বিতীয় দ্রুততম অর্ধশতকটি হাঁকিয়েছিলেন তিনি। সেদিন না পারলেও এদিন পেরেছেন এবং দ্রুত এগোতে থাকেন সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু শতকের জন্য ৫ ওভার সুযোগ থাকতেই ইনিংসের ১২তম ওভারে মাত্র ৪১ বলে ১০ চার, ৩ ছক্কায় ৮৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন লিটন। ৪৪ রান করে আগেই ফিরে যাওয়া রনির সঙ্গে ওপেনিংয়ে দেশের রেকর্ড ১২৪ রানের জুটি গড়েছেন তিনি। ২০২১ সালে বাংলাদেশের সেরা টি২০ ওপেনিং জুটি ছিল ১০২ রানের।

নাইম শেখ ও সৌম্য সরকার হারারেতে ১০২ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন। ৮৩ রানে লিটন থামেন সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১৭ রান দূরে থেকে। তবে যে কোনো পর্যায়ের স্বীকৃত টি২০তে ব্যক্তিগত সেরা ইনিংস পেয়েছেন। এর আগে তার সেরা ইনিংস ছিল অপরাজিত ৭৮। আর আন্তর্জাতিক টি২০তে লিটনের সেরা ছিল ৭৩। এবার নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার দিন।

×