ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২০ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

টি২০ সিরিজ

আজ বাংলাদেশ উইন্ডিজ প্রথম টি২০

মোঃ মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ২৩:১৯, ১ জুলাই ২০২২

আজ বাংলাদেশ উইন্ডিজ প্রথম টি২০

.

সেন্ট লুসিয়া থেকে ডোমিনিকার সামুদ্রিক যাত্রায় দূরত্ব ৯৩.১৫ নটিক্যাল মাইল (১৭২.৬৩ কিমি)। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম আটলান্টিক মহাসাগর পেরিয়ে যেতে হয়। গত মঙ্গলবার এই অঞ্চলে সাইক্লোনের প্রভাবে বৃষ্টি হয়েছে, উপকূলবাসীদের জন্য ছিল জরুরী সতর্কবার্তা। এর প্রভাব বৃহস্পতিবার অনেকটা কমে গেলেও বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের জন্য হয়েছে ভয়ানক অভিজ্ঞতা। রোমাঞ্চকর ভেবে ফেরিতে এই সমুদ্রযাত্রায় গিয়ে অসুস্থ হয়েছেন অনেকে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ডোমিনিকায় পৌঁছে শুক্রবারই শুধু অনুশীলনের সুযোগ পেয়ে আজ প্রথম টি২০ ম্যাচে নামবে বাংলাদেশ। উইন্ডসর পার্কে ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৩০ মিনিটে। স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৩ বছর আগে ২ ওয়ানডেই শুধু খেলেছে সফরকারীরা। টেস্ট সিরিজ হেরে বিপর্যস্ত মানসিকতায় থাকা ক্রিকেটারদের মানসিক ধকল হয়েছে সমুদ্রাভিযানে। এখন তা কাটিয়ে উঠে নামতে হবে নতুন লড়াইয়ে। আইসিসি টি২০ র‌্যাঙ্কিংয়ে সাতে উইন্ডিজ, আটে বাংলাদেশ এবং আগের ১৩ মোকাবেলায় ৭ জয় ক্যারিবীয়দের, ৫ বার বাংলাদেশের। তবে টেস্ট সিরিজ হার এবং সমুদ্রযাত্রায় ভয়াল অভিজ্ঞতার পর টানা ২ টি২০ ম্যাচে ভাল করতে অগ্নিপরীক্ষার মধ্যেই পড়তে হবে।
বাংলাদেশ টি২০ ক্রিকেটে কখনই তেমন ভাল দলে পরিণত হতে পারেনি। এখন পর্যন্ত সঠিক কম্বিনেশনটাই গড়ে ওঠেন এই ফরমেটে। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে এবার ৩ ম্যাচের টি২০ সিরিজে নেই অভিজ্ঞ তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম। এছাড়া ইনজুরির কারণে ছিটকে গেছেন নিজেকে অনেকটাই থিতু করে ফেলা ইয়াসির রাব্বি। তাই এখন নবাগত মুনিম শাহরিয়ার, কয়েক বছর পর ফেরা এনামুল হক বিজয়, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মেহেদি হাসান মিরাজদের নিয়ে ক্যারিবীয়দের মোকাবেলা করতে হবে। দলে টি২০ স্পেশালিস্ট অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুনিম, আফিফ হোসেন ধ্রুব আর মুস্তাফিজুর রহমানই ভরসা। তবে বাঁহাতি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান আছেন যা দলে ব্যালেন্স তৈরি করেছে। আর উইন্ডসর পার্কের উইকেট অনেকটাই স্পিনবান্ধব হওয়াতে বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদের ওপর বাড়তি ভরসা রাখবে বাংলাদেশ। অফস্পিন অলরাউন্ডার শেখ মেহেদি সর্বশেষ কয়েকটি ম্যাচে ভাল করতে পারেননি। তাই তার পরিবর্তে মিরাজ নামতে পারেন। সেক্ষেত্রে ২ পেসারে একাদশ সাজাতে পারে বাংলাদেশ। আর আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত বিপিএল পারফর্মেন্সে অভিষেক হওয়া মুনিম সুবিধা করতে না পারলেও তার ওপরই ভরসা রাখতে হবে বাংলাদেশ দলকে। কারণ ১৪ জনের স্কোয়াডে দীর্ঘ সময় পর ফেরা বিজয় ব্যতীত ওপেনার আছেন শুধু লিটন কুমার দাস। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের হয়ে সব ফরমেটেই দারুণ ফর্মে আছেন লিটন। টেস্ট সিরিজে দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সুবাদে সোহানও একাদশে জায়গা পেতে পারেন।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটিও এবার নতুন চেহারার। নিকোলাস পুরান অধিনায়ক হয়েছেন যার একারই শুধু এই স্কোয়াডের মধ্যে আন্তর্জাতিক টি২০ ক্রিকেটে ১ হাজারের বেশি রান আছে। দ্বিতীয় সর্বাধিক ৪২১ রান টপঅর্ডার ব্র্যান্ডন কিংয়ের। তবে ফর্মে থাকা কাইল মেয়ার্স, শামারহ ব্রুকস আর রোভম্যান পাওয়েলের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের আশায় থাকবে উইন্ডিজ দল। ওডিয়ান স্মিথও আছেন শেষদিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলার জন্য। এই ভেন্যুতে মাত্র ২ টি২০ হয়েছে এর আগে ২০১৪ সালে। নিউজল্যিান্ড খেলে ১টি জিতেছে এবং একটি হেরেছে। দুই ম্যাচেই পরে ব্যাট করা দল হেরেছে খুব বেশি রান না করেও। অর্থাৎ এই ভেন্যুতে টস জিতে আগে ব্যাটিং করাটা জরুরী ফলাফল নিজেদের পক্ষে আনার জন্য। ৮ বছর পর এখানে আন্তর্জাতিক টি২০ হলেও সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ হিসেবে ২০১৭ সালে এখানে টেস্ট খেলেছে পাকিস্তান। সফরকারী দল এই ভেন্যুতে বেশি সফল। সফরকারীরা ৩ টেস্ট, ৪ ওয়ানডে ও ১ টি২০ জিতেছে। আর স্বাগতিক হয়েও ক্যারিবীয়রা এখানে জিতেছে মাত্র ১ টেস্ট ও ১ টি২০। ২০০৯ সালে এই মাঠের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে বাংলাদেশই। সেবার দ্বিতীয় সারির উইন্ডিজ দলকে পরপর দুই ওয়ানডেতে এখানে হারিয়েছে তারা। ১৩ বছর পর ভিন্ন ফরমেট টি২০ ক্রিকেটে একই সাফল্যের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারবে বাংলাদেশ? ক্যারিবীয়দের শারীরিক সামর্থ্য ও বিগ হিটিংয়ের দক্ষতা অনেক বেশি। কিন্তু দুদলের ১৩ বারের মোকাবেলায় বেশ প্রতিদ্বন্দ্বী দল হিসেবেই নিজেদের প্রমাণ করেছে বাংলাদেশ। ৭ বার জিতেছে উইন্ডিজ, ৫ বার বাংলাদেশ। র‌্যাঙ্কিংয়েও এক ধাপ এগিয়ে উইন্ডিজ। তাই পার্থক্যটা খুব বেশি নয়। তাই সিরিজ শুরুর আগেই বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ জয়ের প্রত্যয় জানিয়েছেন। এমনকি টেস্ট সিরিজ হারের পর টেস্ট অধিনায়ক সাকিবও প্রত্যাশা জানিয়েছেন ভাল করার। এখন সেসব মাঠে প্রমাণ করার অপেক্ষা। উইকেট স্পিনারদের জন্য সহায়ক হলেও বাংলাদেশের চেয়ে ক্যারিবীয়রা পিছিয়ে থাকবে না। কারণ তাদের আছে হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র।
বাংলাদেশ দলের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ এখন পরিবেশ-পরিস্থিতির সঙ্গে মাত্র একদিনে মানিয়ে উঠে খেলতে নামা। মাত্র একদিনে সমুদ্রযাত্রার ভয়াল অভিজ্ঞতা পেছনে ফেলে নিজেদের গুছিয়ে নেয়া এবং দারুণ কিছু করা বেশ কঠিনসাধ্য ব্যাপার। সাকিবের এই সিরিজে ৯২ রান হলেই মাহমুদুল্লাহর পর দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে ২ হাজার আন্তর্জাতিক টি২০ রান হবে। তার দিকেই তাকিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। আর অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ টি২০ স্পেশালিস্ট হলেও সম্প্রতি এই ফরমেটে নেই তেমন ফর্মে। তারও নিজেকে ফিরে পাওয়ার চ্যালেঞ্জ। সর্বশেষ ৭ ম্যাচে তার সর্বোচ্চ ইনিংস ২১ রানের! গত মার্চে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ টি২০ খেলেছে বাংলাদেশ এবং হেরেছে দ্বিতীয় ম্যাচ। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষেও সর্বশেষ মোকাবেলায় গত বছর আরব আমিরাতে হওয়া বিশ্বকাপে ৩ রানে হেরেছে। এই লম্বা বিরতির পর টানা দুটি টেস্ট সিরিজ খেলে টি২০ ম্যাচে ভাল করার কঠিন চ্যালেঞ্জ বিপর্যস্ত বাংলাদেশের।