ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাশরাফি খেলবেন তো?

প্রকাশিত: ০৬:৫৫, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাশরাফি খেলবেন তো?

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জাতীয় নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত মাশরাফি বিন মর্তুজা। আর ঠিক এমন সময়ই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল বাংলাদেশে এসে পড়েছে। নির্বাচনের কাজে ব্যস্ত থাকতে হবে মাশরাফিকে। তাই প্রশ্নও উঠছে, মাশরাফি কী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে খেলবেন? মাশরাফির খেলা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। সেই সংশয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কথাতেই মিলছে। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে মিরপুর টেস্ট জেতার পর পুরস্কার বিতরণী শেষে বিসিবি সভাপতির কাছে মাশরাফির খেলা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। বিসিবি সভাপতি জানান, ‘কঠিন প্রশ্ন। ওর মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার একটা তারিখ আছে। কবে পূরণ করবে, ওখানে ওর কর্মসূচী কি ঠিক জানি না। আজ (বৃহস্পতিবার) ওর সঙ্গে দেখা হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তখন বিস্তারিত কথা হবে। যদি সুযোগ থাকে সে অবশ্যই খেলবে। একদিনের জন্যও যদি সময় থাকে সে অবশ্যই খেলবে। খেলাটা ওর কাছে সবসময়ই প্রাধান্য পাবে।’ বিসিবি সভাপতি কথাতেই মাশরাফির খেলা নিয়ে সংশয়ের দেখা দিয়েছে। অবশ্য মাশরাফি খেলাটাকে প্রাধান্য দিয়ে খেলতে চাইলে সেই সুযোগ তার আছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুরুতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ২২ নবেম্বর প্রথম ও ৩০ নবেম্বর দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট শুরু হবে। এরপর শুরু হবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। ওয়ানডে সিরিজের তিনটি ম্যাচ হবে ৯, ১১ ও ১৪ ডিসেম্বর। এরপর তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজও অনুষ্ঠিত হবে। টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচ ১৭ ডিসেম্বর, দ্বিতীয় ম্যাচ ২০ ডিসেম্বর ও তৃতীয় ম্যাচ ২২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। মাশরাফি বিন মর্তুজা শুধু ওয়ানডে খেলেন। তিনি ওয়ানডে দলের অধিনায়কও। তাই মাশরাফিকে ৯ থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত দলের হয়ে খেলতে হবে। এমন সময় নির্বাচনের ডামাডোল পুরোপুরি বাজবে। ৩০ ডিসেম্বর যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ চূড়ান্ত করা হয়েছে। ভোট গ্রহণ হবে সেদিন। এর আগে অবশ্য মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিন ২৮ নবেম্বর। কিন্তু মাশরাফি যদি খেলেন তাহলে এক সপ্তাহের বেশি সময় খেলার মধ্যেই থাকতে হবে। নির্বাচনী কাজ করতে পারবেন না। প্রচারণামূলক কোন কাজে যোগ দিতে পারবেন না। ওয়ানডে সিরিজ শেষ হবে ১৪ ডিসেম্বর। তখন নির্বাচনের জন্য হাতে থাকবে ১৫দিন। আর তাই কথা উঠেছে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে কী খেলবেন মাশরাফি? মাশরাফি খেলতে পারেন। ৯ ডিসেম্বর প্রথম ওয়ানডে। এর দুইদিন আগে দলের সঙ্গে যোগ দিলেই হলো। তার আগে নির্বাচনী কাজ করলেই হয়। আবার ১৪ ডিসেম্বরের পর থেকে যেহেতু ১৫ দিনের সময় থাকবে, তাই সেই সময়ও নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত থাকলে হবে। তাছাড়া খেললে মাশরাফির প্রচারওতো হয়ে যাবে। তাই খেলার সুযোগ মাশরাফির খুব ভালভাবেই আছে। মাশরাফির সঙ্গে সাকিব আল হাসানেরও নির্বাচন করার কথা শোনা গিয়েছিল। কিন্তু সাকিব নির্বাচন করছেন না তা জানিয়ে দেন। এ বিষয়েও বিসিবি সভাপতি বিস্তারিত জানান। তিনি বলেন, ‘সাকিবও করতে চেয়েছিল। যেহেতু সে আরও চার-পাঁচ বছর খেলবে। সাকিবকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ঠিক আছে তুমি খেল। মাশরাফির ব্যাপারটা ভিন্ন। ও কতদিন খেলবে ঠিক নিশ্চিত না। ওর যে শারীরিক অবস্থা, এখনও যে খেলছে এটাই তো অনেক। সে খেলোয়াড় হিসেবে খেলে না, আমাদের দলে অধিনায়ক হিসেবে খেলে। ওর অধিনায়কত্ব আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। ওর মতো অধিনায়ক খুঁজে পাচ্ছি না, পাবও না মনে হয়। সেদিক দিয়ে চিন্তা করলে বড়জোর বিশ্বকাপের পর হয়তো অবসরে যাবে। সেটি যদি হয় মাত্র কয়েক মাসের ব্যাপার। এটা হলে এরচেয়ে ভাল প্রস্থান আর কিছু হতে পারে না। কয়েক মাস পর অবসর নিলে সে এই সাড়ে চার বছর আর করবেটা কী? আরেকটি ক্ষেত্রে সে থাকল, যেখান সে ক্রীড়াক্ষেত্রে জোরাল অবস্থান রাখতে পারবে বলেই আমার বিশ্বাস।’ অবসরের পর ক্রীড়াক্ষেত্রে জোরালো অবস্থান রাখার জন্য নির্বাচন করছেন মাশরাফি। কিন্তু সামনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ রয়েছে। সেই সিরিজে মাশরাফিকে সবাই চান। জিম্বাবুইয়ে সিরিজ টেস্টে নেতৃত্ব দেয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও যেমন বলেছেন, ‘ইনশাআল্লাহ মাশরাফি ভাইকে পাব, আশাকরি। কারণ তিনি আমাদের ওয়ানডে অধিনায়ক। তিনি যদি সুস্থ থাকেন, অবশ্যই ওনাকে আমাদের মাঝে পাব। আর ওনাকে আমরা চাই।’ সত্যিই কী মিলবে? সেই প্রশ্ন উঠছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফির খেলা নিয়েই যে সংশয় তৈরি হয়েছে।