ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

৫ গোল করে অনন্য উচ্চতায় হালান্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫১, ১৬ মার্চ ২০২৩

৫ গোল করে অনন্য উচ্চতায় হালান্ড

গোলের উল্লাস ম্যানচেস্টার সিটির আলোচিত ফরোয়ার্ড আর্লিং হালান্ডের

গোল করা তার নেশা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের মতো সবচেয়ে কঠিন আসরে মুড়ি মুড়কির মতো গোল করে ইতোমধ্যে একাধিক গৌরবয়ময় রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন। এবার ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের আসর উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও রেকর্ড ভাঙাগড়ার খেলা খেলেছেন। এক ম্যাচে একাই করেছেন পাঁচ গোল। 
বলা হচ্ছে তরুণ তারকা আর্লিং হালান্ডের কথা। নরওয়ের এই তারকা ফরোয়ার্ড চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে জার্মান ক্লাব আরবি লাইপজিগের বিরুদ্ধে করেছেন হ্যাটট্রিকসহ একাই পাঁচ গোল। হালান্ডের অতিমানবীয় পারফরম্যান্সে ম্যানচেস্টার সিটি জিতেছে ৭-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে। মঙ্গলবার রাতে সিটির মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের হয়ে বাকি গোল দুটি করেন ইকে গুন্ডোগান ও কেভিন ডি ব্রুইনে। এর আগে জার্মানিতে প্রথম লেগের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছিল। ফলে দুই লেগ মিলিয়ে ৮-১ গোলের বিশাল জয়ে আসরের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ম্যানচেস্টার সিটি। প্রি-ে কোয়ার্টার ফাইনালের আরেক ম্যাচে পর্তুগিজ ক্লাব এফসি পোর্তোকে বিদায় করে শেষ আটে উঠেছে ইতালির ইন্টার মিলান। ফিরতি লেগের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হলেও প্রথম লেগে ১-০ গোলে জিতেছিল ইন্টার। 
লাইপজিগের বিরুদ্ধে সিটির হয়ে হালান্ড গোলগুলো করেন ম্যাচের ২২, ২৪, ৪৫+২, ৫৩ ও ৫৭ মিনিটে। গোলগুলো করে রেকর্ড বই উল্টাপাল্টা করে দিয়েছেন হালান্ড। চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সে ৩০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি। এই কীর্তি গড়ার দিন হালান্ডের বয়স ছিল ২২ বছর ২৩৬ দিন। এখন পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ২৫ ম্যাচে ৩৩ গোল হয়েছে হালান্ডের। সবচেয়ে কম বয়সী ফুটবলার হিসেবে ৩০ গোল করার পথে তিনি ভেঙেছেন পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপের রেকর্ড।

২২ বছর ৩৫২ দিন বয়সে আগের রেকর্ড গড়েছিলেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। কম ম্যাচে রেকর্ড গড়ার পথে হালান্ড ভেঙেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক ডাচ স্ট্রাইকার রুড ভ্যান নিস্টলরয়ের রেকর্ড। ৩০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করতে ৩০ ম্যাচ খেলতে হয়েছিল নিস্টলরয়কে। সবমিলিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ৩৩ গোল করতে নিস্টলরয়ের লেগেছে ৩৮ ম্যাচ, লিওনেল মেসির ৫২ ম্যাচ, রবার্ট লেভানডোস্কি ও কিলিয়ান এমবাপের সমান ৫৩ ম্যাচ, করিম বেঞ্জামার ৫৪ ম্যাচ ও নেইমারের খেলতে হয়েছে ৫৫ ম্যাচ।
গৌরবময় রেকর্ড গড়ার পথে ৯৪ বছর আগের রেকর্ডও ভেঙেছেন হালান্ড। ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে এক মৌসুমে (১৯২৮-২৯) সর্বোচ্চ ৩৮ গোলের রেকর্ড ৯৪ বছর ধরে দখলে রেখেছিলেন টমি জনস্টোন। হালান্ড এই ম্যাচে সেই রেকর্ডটি নিজের করে নিয়েছেন। ম্যাচের প্রথমার্ধেই মৌসুমে নিজের পঞ্চম হ্যাটট্রিক তুলে নেয়ার পর আরও দুই গোল করে লিওনেল মেসি ও লুইজ আদ্রিয়ানোকেও ছুঁয়েছেন হালান্ড। চ্যাম্পিয়নস লিগে তার আগে এক ম্যাচে একাই ৫ গোল করেছিলেন শুধু মেসি ও আদ্রিয়ানো।  ২০১২ সালে বেয়ার লেভারকুসেনের বিরুদ্ধে ৫ গোল করেছিলেন মেসি। হালান্ড এখানেও দ্রুততম। ৫৭ মিনিটের মধ্যে করেছেন ৫ গোল। আদ্রিয়ানোর লেগেছিল ৮২ মিনিট ও মেসির ৮৪ মিনিট।
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট রাউন্ডে একাই ৫ গোলের নজির এর আগে শুধু মেসির ছিল। এবার তার সঙ্গী হয়েছেন হালান্ড। নকআউটে প্রথমার্ধেই হ্যাটট্রিক তুলে নেয়া দ্বিতীয় খেলোয়াড়ও হালান্ড। ২০১০ সালে করেছিলেন মেসি। ম্যাচ শেষে হালান্ড বলেন, আমার সব শক্তি হলো গোল করার ক্ষমতা। গোল করার সময় আমার মাথায় অনেক কিছু কাজ করে। আমি চেষ্টা করি গোলরক্ষক যেখানে নেই সেখানে বলটি নিয়ে যেতে। তিনি আরও বলেন, প্রথমত এমন আসরে খেলতে পেরে আমি সত্যিই গর্বিত। তার ওপর পাঁচ গোল, পাশাপাশি ৭-০ গোলের জয়, সত্যিই অসাধারণ। ম্যাচ শেষের ২৫ মিনিট আগে হালান্ডের পরিবর্তে জুলিয়ান আলভারেজকে মাঠে নামান সিটি কোচ পেপ গার্ডিওলা। 
তা না হলে তিনি ছয় বা তারও অধিক গোল করলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকত না। এ প্রসেঙ্গ ম্যাচ শেষে গার্ডিওলা মজা করে বলেন, মাত্র ২২ বছর বয়সেই সে যদি সব মাইলফলক স্পর্শ করে ফেলে তবে তার জীবনটা একঘেয়ে হয়ে যাবে। পরের ম্যাচগুলোতে এই ক্ষুধা ধরে রাখার জন্য তাকে তুলে নিয়েছি।

×