ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

জাপানকে হারিয়ে গ্রুপ সেরা হওয়ার আশা স্পেন কোচ লুইস এনরিকের

তবু শেষ ষোলোতে খেলার স্বপ্ন জার্মানির

জাহিদুল আলম জয়

প্রকাশিত: ০০:২৯, ২৯ নভেম্বর ২০২২; আপডেট: ০০:৩০, ২৯ নভেম্বর ২০২২

তবু শেষ ষোলোতে খেলার স্বপ্ন জার্মানির

বিশ্বকাপে জার্মানি ও স্পেনের ধুন্ধুমার লড়াই

জাপানের কাছে অপ্রত্যাশিত হার দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু হয় জার্মানির। যে কারণে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের জন্য গ্রুপ পর্বের বাকি দুই ম্যাচ হয়ে গেছে বাঁচামরার। এই মিশনে রবিবার রাতে টগবগে স্পেনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে অদম্য জার্মানরা। আক্রমণ পাল্টা আক্রমণের ম্যাচে জয় না পেলেও এখনো নকআউট রাউন্ডে খেলার আশা জিইয়ে রেখেছে কোচ হ্যান্স ফ্লিকের দল।

তবে এই ড্রয়ে বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথমবার কোনো এক আসরে গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে জয়শূন্য রইল জার্মানি। ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছিল তারা। সেই হতাশার পুনরাবৃত্তি এড়াতে নিজেদের শেষ ম্যাচে জিততেই হবে জার্মানিকে। পাশাপাশি স্পেনকেও জিততে হবে তাদের ম্যাচ।
পরাজয়ে আসর শুরুর পর স্পেনের কাছেও একটা পর্যায়ে হারের শঙ্কায় পড়েছিল জার্মানি। সেখান থেকে শেষ মুহূর্তের গোলে মহামূল্যবান ১ পয়েন্ট পেয়ে শেষ ষোলোর ফিকে হয়ে পড়া সম্ভাবনা কিছুটা উজ্জ্বল করেছে ম্যানুয়েল নিউয়েরের দল। স্প্যানিশদের বিরুদ্ধে দলের লড়াকু মানসিকতার খুশি কোচ জার্মান কোচ। তার বিশ্বাস, সামনে এগিয়ে চলার রসদ তারা পেয়ে গেছেন। এজন্য অবশ্য গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে জার্মানির জয়ের বিকল্প নেই।

শুধু জিতলেই চলবে না, আরেক ম্যাচে স্পেনের কাছে জাপানের হারের প্রার্থনা করতে হবে। ‘ই’ গ্রুপে বর্তমানে দুটি করে ম্যাচ শেষে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শেষ ষোলোতে এক পা দিয়ে রেখেছে ২০১০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নের স্পেন। ৩ পয়েন্ট করে নিয়ে গোলগড়ে পরের দুই স্থানে যথাক্রমে জাপান ও কোস্টারিকা। ১ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে জার্মানি।
১ ডিসেম্বর গ্রুপের শেষ দুই ম্যাচে মুখোমুখি হবে স্পেন-জাপান ও জার্মানি-কোস্টারিকা। এশিয়ার সুপার পাওয়ার জাপানকে যদি স্প্যানিশরা হারিয়ে দেয় তাহলে নিজেদের ম্যাচে কোস্টারিকাকে হারালেই প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে জার্মানি। এই লক্ষ্য পূরণে আশাবাদী ইউরোপের পাওয়ার হাউসরা। নিজেদের শেষ ম্যাচে জয় পেলে গ্রুপ সেরা হবে স্পেন। ড্র করলেও নকআউট পর্বের টিকিট পেয়ে যাবে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

তবে দলটির কোচ লুইস এনরিকে কোনো সমীকরণে যেতে চান না। তিনি জানিয়েছেন, জাপানকে হারিয়েই গ্রুপ পর্ব শেষ করতে চায় তার দল। স্পেনের সঙ্গে হাইভোল্টেজ ম্যাচের জার্মানি কোচ হ্যান্স ফ্লিক জানিয়েছেন, জয়ের সুযোগ হাতছাড়া হলেও নিজেদের পারফরম্যান্সে তিনি সন্তুষ্ট। সাবেক বায়ার্ন মিউনিখ কোচের মতে, সঠিক পথেই আছে তার দল। ফ্লিক বলেন, ঝুঁকি সম্পর্কে আমরা অবগত ছিলাম। স্পেন ভালো ফুটবল খেলেছে। কিন্তু দুই দলই সমানে সমান ছিল। শেষের দিকে আমাদের জয়ের সুযোগ ছিল।

কিন্তু এ ব্যাপারগুলো হতেই পারে। আপনি যখন জিততে শুরু করবেন তখন এগুলো আপনার হাতে ধরা দেবে। সম্ভবত এমন একটা আবহ দরকার ছিল। তিনি আরও বলেন, দল কঠিন লড়াই করেছে। খেলোয়াড়দের মানসিকতায় আমি খুব সন্তুষ্ট। আমরা এমনটাই দেখতে চাই। শেষ ষোলোর পথে আমরা প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছি বলেই আমার বিশ্বাস।
আসরের শুরুতে অঘটনের শিকার জার্মানি তারুণ্যনির্ভর জার্মানদের সঙ্গে সমানতালে লড়াই করে। কিন্তু ৬২ মিনিটে বদলি আলভারো মোরতার গোলে পিছিয়ে পড়ে তারা। পিঠ ঠেকে যায় দেয়ালে। এরপরই জার্মানরা ঘুরে দাঁড়ায়। বদলি খেলোয়াড় নিকলাস ফুয়েলখুগের গোলে বিশ্বকাপে টিকে থাকার আশা জাগিয়েছে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। তবে জিততে না পারায় হতাশা প্রকাশ করেছেন স্পেন কোচ লুইস এনরিকে। তিনি এখন শেষ ম্যাচে জাপানকে উড়িয়ে দেয়ার আশা করছেন। স্পেন কোচ বলেন, ড্রেসিংরুমে একটা অদ্ভুত অনুভূতি হচ্ছিল।

কারণ আমাদের সামনে জার্মানিকে হারানোর সুযোগ ছিল। আমরা তা হাত ফসকে যেতে দিয়েছি। এটি হতাশাজনক ছিল। তবে আমাদের মনে রাখতে হবে যে, তথাকথিত গ্রুপ অব ডেথের শীর্ষে আছি আমরা। আমাদের ইতিবাচক থাকতে হবে। জাপানের বিরুদ্ধে ড্র করলেই আমরা নকআউট পর্বে জায়গা করে নেব। তবে আমরা কোনো কিছু অনুমান করে নেব না। আমরা আমাদের পূর্ণশক্তি ব্যবহার করব। গ্রুপে শীর্ষস্থান নিশ্চিত করতে জয়ের জন্যই খেলব।
২০১৪ সালের বিশ্বকাপ জয়ের পর থেকেই জার্মানি আর সেই জার্মানি নেই। ওই বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ব্রাজিলের বিরুদ্ধে ৭-১ গোলের জয়ই তাদের জন্য অভিশাপ বয়ে এনেছে কিনা কেইবা বলতে পারে! ঠিক ওই টুর্নামেন্টের পর থেকেই যে একদম মাটিতে পড়ে গেছে জার্মানরা। ২০১৪ বিশ্বকাপের পর জার্মানি এখন পর্যন্ত দুটি করে ইউরো, উয়েফা নেশন্স লিগ ও বিশ্বকাপে খেলেছে। কিন্তু শিরোপা দূরে থাক, আসরগুলোতে তেমন প্রতিরোধই গড়তে পারেনি অদম্য জার্মানরা।

২০১৬ ইউরোর সেমিফাইনালে ফ্রান্সের কাছে ০-২ ব্যবধানে হেরে বিদায় নেয়। ২০২০ ইউরোর পারফরম্যান্স তো আরো খারাপ। সেবার নকআউট রাউন্ডের শেষ ষোলোতেই ইংল্যান্ডের কাছে ২-০ ব্যবধানে হেরে বিদায় নিতে হয়। উয়েফা নেশন্স লিগের পারফরম্যান্সও যাচ্ছে তাই। ২০১৮-১৯ মৌসুম থেকে শুরু হওয়া উয়েফা নেশন্স লিগেও জার্মানরা এখন পর্যন্ত শিরোপার মুখ দেখতে পারেনি। লিগ ‘এ’-তে ফ্রান্স, হল্যান্ড ও জার্মানি ছিল  এ১ গ্রুপে। যেখানে তারা চার ম্যাচ খেলে একটিও জিততে পারেনি। ধারাবাহিকভাবে এমন ব্যর্থতার কারণে অনেকে মজা করে বলে থাকেন, ব্রাজিলের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানের ওই জয়ই হয়ত অভিশাপে ফেলেছে অদম্য জার্মানদের!

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart