ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ক্রিকেটারদের নিয়ে কোচ হাতুরুর প্রত্যাশা

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫৩, ১৯ মে ২০২৪

ক্রিকেটারদের নিয়ে কোচ হাতুরুর প্রত্যাশা

চান্দিকা হাতুরুসিংহে

প্রায় ২৫ ঘণ্টার দীর্ঘ ভ্রমণ শেষে শুক্রবার ভোর রাতে যুক্তরাষ্ট্র পৌঁছেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টি২০ বিশ^কাপ খেলার জন্য গেলেও বেশ আগেই টাইগারদের সেখানে যাওয়ার কারণ মূলত স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলা। এর পেছনে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে ওঠাই মূল লক্ষ্য।

যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে বিশ^কাপ স্কোয়াডের ১৫ সদস্যকে নিয়ে তার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন। দলের দুই সিনিয়র সদস্য মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও সাকিব আল হাসানকে নিয়ে বিশেষ করে নিজের বড় প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন।

বিশ^কাপের গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ এবার খেলবে শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ আফ্রিকা, নেদারল্যান্ডস ও নেপালের বিপক্ষে। এবার টি২০ বিশ^কাপের দল ঘোষণা সবার পরে করেছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি২০ হোম সিরিজ এবং কয়েকজন ক্রিকেটারের ইনজুরি সমস্যা থাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ^কাপ দল ঘোষণায় বিলম্ব করেছে বিসিবি।

তবে ১ মে আইসিসির দেওয়া ডেডলাইন অনুসারে একটি দল পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সিরিজ শেষে সেই দলে মাত্র একটাই পরিবর্তন এসেছে। এই দলটিকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র রওনা হওয়ার আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান কোচ হাতুরু প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন আগের যে কোনো আসরের চেয়ে ভালো কিছু করার। প্রাথমিক লক্ষ্য হিসেবে তিনি গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে সুপার এইটে ওঠার কথা জানান।

তবে আলাদাভাবে সাক্ষাৎকারে বিসিবির কাছে স্কোয়াডের প্রতিটি ক্রিকেটারকে নিয়ে নিজের পর্যালোচনা ও প্রত্যাশার বিষয়ে জানিয়েছেন। বিশেষ করে বিশ^সেরা টি২০ অলরাউন্ডার সাকিবকে নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘সে এই খেলাটির একজন কিংবদন্তি। আমরা জানি সাকিব সব টি২০ বিশ্বকাপই খেলেছে। এটা তার জন্য খুব বড় একটি টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে। আমি আশা করব তিন বিভাগেই সে অবদান রাখবে।

সে অসাধারণ একজন নেতাও। খেলোয়াড়দের সঙ্গে সে দারুণভাবে মিশে যায়। সবাই তাকে শ্রদ্ধাও করে। ম্যাচের পরিস্থিতি খুব ভালো বুঝতে পারে সে।’ এটি সাকিবের নবম বিশ^কাপ। তিনি বিশে^র মাত্র দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে সব টি২০ বিশ^কাপে অংশ নিচ্ছেন। সবচেয়ে সিনিয়র ক্রিকেটার এই স্কোয়াডে মাহমুদুল্লাহ। একটি বাদে বাকি ৭ বিশ^কাপেই খেলেছেন তিনি। অন্যতম ফিনিশার হিসেবে তার ওপরে বাংলাদেশ দলের বড় আস্থা।

তাকে নিয়ে হাতুরু বলেছেন, ‘মাহমুদুল্লাহ সম্ভবত এই দলটির ‘স্পিরিট’। সে ড্রেসিংরুমে অসাধারণ এক প্রশান্তি বয়ে এনেছে। যখন সে কথা বলে বাকিরা শোনে। আমি মনে করি তার মাথাও খুব ভালো। সম্প্রতি তার ব্যাটিং অন্য পর্যায়ে চলে গেছে। সে খুবই নির্ভীক ব্যাটিং করছে...যা দলের জন্য খুবই ভালো। বিশ্বকাপে সে চাপের মুহূর্তগুলো সামলে নেবে এবং তরুণদের পথ দেখাবে।’ 
বাংলাদেশ দলকে এই প্রথম বিশ^কাপের মতো বড় আসরে নেতৃত্ব দেবেন নাজমুল হোসেন শান্ত। যদিও ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক হিসেবে ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ^কাপে তিনি দুটি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন। এবার স্থায়ী অধিনায়ক হিসেবে তার গুরুদায়িত্ব টি২০ বিশ^কাপে। তাকে নিয়ে হাতুরু বলেছেন, ‘শান্ত খুবই ভালো একজন নেতা।

তার নেতৃত্বগুণেই আমরা খেলব। ড্রেসিংরুমে সতীর্থদের সঙ্গে আনন্দফুর্তি করলেও, যখন মাঠে নামে খুবই লড়াকু মানসিকতা দেখায়। বিশ্বকাপে প্রথমবার নেতৃত্বের বাহুবন্ধনী পাওয়ায় তার কাঁধে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব আছে। আমি নিশ্চিত সে চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত।’ 
এবার সহঅধিনায়ক হিসেবে খেলবেন দলের পেসস্তম্ভ তাসকিন আহমেদ। তাকে নিয়ে হাতুরু বলেছেন, ‘তাসকিন খুবই আবেগপ্রবণ মানুষ। সে যেদিন মনের দিক থেকে ভালো থাকে আমরা তার কাছ থেকে সেরাটা পাই। খেলোয়াড় এবং কোচদের কাছেও খুবই জনপ্রিয় সে। সব সময় চেষ্টা করে দলকে সেরাটা দিতে এবং নিজের উন্নতি করতে।’

সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাট হাতে একেবারে ভালো সময় যাচ্ছে না লিটন কুমার দাসের। অথচ তার তার কাছে প্রত্যাশা অনেক বেশি বাংলাদেশ দলের। এ বিষয়ে হাতুরু বলেছেন, ‘লিটন আমাদের শীর্ষ ব্যাটারদের একজন। এই বিশ্বকাপে তার ব্যাট থেকে বড় কিছু প্রত্যাশা করছি। ঈশ্বর প্রদত্ত একজন মেধাবী ব্যাটার। যে কোনো পজিশনে সে আমাদের অন্যতম একজন ফিল্ডার। 
যদিও মাঠের বাইরে কিছুটা শান্ত, তবে খেলাটা ভালো বুঝতে পারে। আর কৌশলগত দিক থেকেও দলকে সমর্থন দেয়।’ এ ছাড়া তরুণ ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম, মিডলঅর্ডারে আস্থা হয়ে ওঠা তাওহিদ হৃদয়কে নিয়ে উচ্ছ্বাস জানিয়েছেন হাতুরু এবং তাদের দুর্দান্ত ফিল্ডার ও রোমাঞ্চকর ব্যাটার হিসেবে অভিহিত করেছেন। ব্যাট হাতে বিগ শট নেওয়ার সামর্থ্য থাকা জাকের আলী অনিককে নিয়ে হাতুরু দাবি করেছেন এবার বিশ^কাপে বিস্ময়কর কিছু করতে পারেন তিনি।

×