ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৯ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

টাইগারদের সহকারী কোচ পোথাসের দাবি, ক্রিকেটাররা নিজেদের গর্বিত করতে চায়

বিশ্বকাপ জেতার জন্যই খেলবে বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫৭, ২ জুন ২০২৩

বিশ্বকাপ জেতার জন্যই খেলবে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সহকারী কোচ নিক পোথাস

এবার আইসিসি ওয়ানডে বিশ^কাপ সুপার লিগে দুর্দান্ত খেলেছে বাংলাদেশ দল। কিছুদিন পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানেও ছিল। সুপার লিগ শেষ করেছে অবশ্য তিন নম্বরে থেকে। কিন্তু দুইয়ে থাকা ইংল্যান্ডের সমান ১৫৫ পয়েন্ট টাইগারদের। এবার বিশ্বকাপে নবীন-তরুণের সমন্বয়ে দারুণ একটি দল নিয়েই বিশ্বকাপ মঞ্চে যাবে বাংলাদেশ দল। অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল তো নিশ্চিতভাবেই থাকছেন। আবার সর্বজ্যৈষ্ঠ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদও থাকতে পারেন বিশ^কাপে। আবার দেশের মতোই সদৃশ কন্ডিশন ভারতে হবে বিশ^কাপ। তাই অনেকেই এবার বাংলাদেশ দলকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখছেন। এবারই হয়তো সাকিব-তামিমরা বিশ^কাপ জয় করবেন। সহকারী কোচ হিসেবে টাইগারদের দায়িত্ব নেওয়া নিক পোথাস নিজেও আশাবাদী সে ব্যাপারে। 
বৃহস্পতিবার তিনি জানিয়েছেন, নিজেদের গর্বিত করতে এই বাংলাদেশ দলের সবার মধ্যেই বেশ উচ্চাকাক্সক্ষা কাজ করছে। ১৯৯৯ সালে বাংলাদেশ দল প্রথমবার বিশ^কাপ খেলেছে। এরপর টানা এই মর্যাদার মঞ্চে নেমে নিজেদের সেরা সাফল্য পেয়েছে ২০১৫ আসরে। সেবার কোয়ার্টার ফাইনাল খেলে টাইগাররা। সেই দলের কয়েকজন আসন্ন বিশ^কাপও খেলবেন। অন্যতম পারফর্মার হিসেবে সাকিব, মুশফিক ও তামিম আছেন এই দলটির বড় নির্ভরতা হয়ে। এছাড়া তাদের তুলনায় তরুণ মেহেদি হাসান মিরাজ, লিটন কুমার দাস ও নাজমুল হোসেন শান্তরা এখন দলে থিতু হয়েছেন নিজেদের দারুণ কিছু পারফর্ম্যান্সে। তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমানদের সঙ্গে আছেন ধারাবাহিক পারফর্মার এবাদত হোসেন চৌধুরী, হাসান মাহমুদ, তাওহিদ হৃদয়রা।

সবমিলিয়ে এই দলটি যে অনেক কিছুই করতে সক্ষম সেটি ওয়ানডে সুপার লিগে টাইগারদের পারফর্ম্যান্স থেকেই স্পষ্ট। ২৪ ম্যাচের ১৫টিতেই জিতেছে বাংলাদেশ, হেরেছে মাত্র ৮টি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইংল্যান্ডের সঙ্গে সমান ১৫৫ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় অবস্থান নিয়েই শেষ করেছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ বিশে^র তৃতীয় সেরা দল হিসেবেই এবার বিশ^কাপ মঞ্চে নামবেন তামিম-সাকিবরা। নিশ্চিতভাবেই তাই বিশ^কাপের ফেভারিট বলা যেতে পারে বাংলাদেশ দলকে। আর মাত্র ৪ মাসের কিছু বেশি সময় বাকি আছে বিশ^কাপ মাঠে গড়ানোর। আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে শুরু হতে যাওয়া বিশ^কাপ আসরের চূড়ান্ত স্কোয়াড কেমন হতে পারে, তা নিয়ে প্রায় মাসখানেক আগে থেকেই আলোচনা শুরু হয়েছে। বেশ কিছু ক্রিকেটারের মধ্যে জোর প্রতিযোগিতা বিশ^কাপ দলে জায়গা পাওয়ার ক্ষেত্রে।

মাত্র কয়েকদিন আগে এমন একটি দলের সহকারী কোচ হয়ে পোথাস দারুণ আশান্বিত। তিনি বলেছেন, ‘সব দেশই বিশ্বকাপের জন্য খেলবে, আমার মনে হয় না আমরা ব্যতিক্রম। এই দল, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, খেলোয়াড়রা সবাই অত্যন্ত উচ্চাকাক্সক্ষী। আমরা বিশ্বকাপে নিজেদের গর্বিত করতে চাই। কে জানে বিশ্বকাপে আপনাকে কি দেয়?’ বিশ^কাপ স্কোয়াড কেমন হতে পারে, সেজন্য বেশ আগে থেকেই পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছে বাংলাদেশ। চলতি মাসে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ শুরু হবে যার ওয়ানডে ও টি২০ মাঠে গড়াবে আগামী মাসে। সেখান থেকেই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যাবে আসন্ন বিশ^কাপের স্কোয়াড কেমন হবে। বিশ্বকাপে ভালো করতে হলে নিজেদের সেরাটা দেয়ার বিকল্প নেই বাংলাদেশের সামনে।

সেই লক্ষ্যেই বাংলাদেশ দল নিজেদের ম্যানেজমেন্ট সাজাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের এই সহকারী কোচ। এরই মধ্যে প্রতিপক্ষ দলগুলোকে নিয়ে গবেষণা শুরু করে দিয়েছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন পোথাস। তিনি বলেছেন, ‘যেটা আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই সেটা নিয়ে আমরা ভাবছি না। যতখানি সম্ভব আমরা প্রস্তুতি নিতে চাই। প্রতিপক্ষ সম্পর্কে গবেষণা করব। নিজেদের সেরাটা দেব। যে কোনো খেলার বিশ্বকাপে আপনি এসবই করতে পারেন।  আমরা যদি নিজেদের নিয়ে ভাবি তাহলে সব ঠিকঠাক হবে।’ আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ সামনে রেখে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন ক্যাম্প। আগামী ১৪ জুন আফগানদের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

আরও অনেকের মতোই পোথাস মনে করেন, আফগানদের স্পিন সামলানো বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে। তিনি বলেছেন, ‘আফগানিস্তানের স্পিন যে কোনো দলের জন্যই চ্যালেঞ্জ। তাদের শীর্ষ মানের স্পিন আক্রমণ আছে। এই চ্যালেঞ্জটা একইসঙ্গে রোমাঞ্চকর। একটা সমস্যা সমাধানের মতো পরিস্থিতি অবশ্যই রোমাঞ্চকর।’ কিন্তু পোথাস মনে করছেন প্রতিপক্ষের একটি শক্তিমত্তা নিয়ে ভেবে নিজেদের সমস্যায় পড়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই প্রতিপক্ষের সব বিভাগ নিয়েই পরিকল্পনা করা জরুরি। পোথাস বলেন, ‘স্পিনের সঙ্গে পেস বোলিংও সামলাতে হবে। তাই স্পিন নিয়ে খুব বেশি ভেবে পেসের কথা ভুলে গেলে হবে না। টেস্ট ম্যাচ হল দাবা খেলার মতো। তারা যা নিয়েই আসুক, সমাধান বের করতে হবে। কিন্তু এটা রোমাঞ্চের।’

×