ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৪ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১

ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনেও লড়াকু শামীম

মো. মামুন রশীদ

প্রকাশিত: ২২:০২, ৩১ মার্চ ২০২৩

ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনেও লড়াকু শামীম

শেষ টি২০ ম্যাচে হারলেও ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক তুলে নেন শামীম পাটোয়ারী

এমন বেহাল ব্যাটিং দেখা যায়নি অনেক দিন। ইংল্যান্ড আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সব মিলিয়ে আটটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ জিতেছে বাংলাদেশ দল। ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্স থেকেই এসেছে সেই সাফল্য। কিন্তু শুক্রবার সাগরিকায় ধসে পড়েছে টপঅর্ডার। সিরিজের তৃতীয় শেষ টি২০ ম্যাচে মাত্র ৬১ রানেই উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। সেই ধ্বংসস্তূপ থেকে ভালো সংগ্রহের ভিত গড়ার ক্ষেত্রে একমাত্র আশা হিসেবে ছিলেন ২২ বছর বয়সী তরুণ বাঁহাতি ব্যাটার শামীম হোসেন পাটোয়ারী। ক্যারিয়ারের ১৫তম টি২০ খেলতে নেমে তিনি বাংলাদেশ দলকে সেই বাজে অবস্থা থেকে টেনে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। নম্বরে নেমে উপহার দিয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি।

লড়াকু এই ইনিংস ৪২ বলে চার, ছয়ে ৫১ রানে থেমেছে। দলের বিপর্যয়ের মুখে এমন ব্যাটিং বাংলাদেশ দলের টি২০ ইতিহাসে বিরল। এর আগে নম্বরে নেমে শুধু মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ নাসির হোসেন দুটি করে ফিফটি হাঁকাতে পেরেছেন। তৃতীয় ব্যাটার হিসেবে এই পজিশনে নেমে আন্তর্জাতিক টি২০-তে বাংলাদেশের হয়ে ফিফটি পেলেন শামীম। সংগ্রামী এই ইনিংস খেলে তিনি সাজঘরে ফেরার পরেই ১৯. ওভারে ১২৪ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

সিরিজ জয় আগেই নিশ্চিত হয়েছে। তাই দুই পরিবর্তন নিয়ে নামে বাংলাদেশ। গত বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে সর্বশেষ টি২০ খেলা বাঁহাতি পেসার শরিফুল ইসলাম ফেরেন মুস্তাফিজুর রহমানের জায়গায়। আর মেহেদি হাসান মিরাজের বদলে দেশের ৮০তম টি২০ খেলোয়াড় হিসেবে অভিষেক হয় লেগস্পিনার রিশাদ হোসেনের। ২০২১ সালের নভেম্বরের পর এই প্রথম কোনো স্বীকৃত লেগস্পিনার সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু টস জিতে ব্যাট হাতে নেমে একেবারেই অচেনা বাংলাদেশকে দেখা গেল লম্বা সময় পর বিপর্যস্ত অবস্থায়। বারবার ভুল শট সিলেকশনের মাশুল দিয়ে একে একে সাজঘরে ফিরতে থাকেন ফর্মে থাকা ব্যাটাররা। লিটন কুমার দাস ()), নাজমুল হোসেন শান্ত (), রনি তালুকদার (১০ বলে ১৪) সাকিব আল হাসান সাজঘরে ফেরেন। ষষ্ঠ ওভারে মার্ক এডায়ারের পেসে সাকিব বলে রানে মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়ে ফেরার পর ক্রিজে আসেন শামীম। কিন্তু জুটিতে কোনো রান যোগ হওয়ার আগেই তাওহিদ সপ্তম ওভারে বেন হোয়াইটের লেগস্পিনে ১০ বলে একটি করে চার-ছক্কায় ১২ রানে সাজঘরে ফেরেন। মাত্র ৪১ রানে বাংলাদেশ টপঅর্ডার ব্যাটারেরে উইকেট হারানোর পর শামীমের লড়াই শুরু হয়। ততক্ষণে মাত্র এক বল মোকাবিলা করেছেন তিনি। তরুণ শামীমের সঙ্গী তখন সপ্তম ব্যাটার হিসেবে অভিষিক্ত রিশাদ। তাই বড় সংগ্রামের মধ্যে পড়েছেন শামীম। তার সঙ্গে যোগ দিয়ে রিশাদ ষষ্ঠ উইকেটে ২০ রানের জুটি গড়েন। ভালো সঙ্গ দিতে দিতেই দশম ওভারে বলে ছক্কায় রানে ফিরে যান রিশাদও। একই ওভারে তাসকিন আহমেদ এক বল বিরতি দিয়ে তুলে মারতে গিয়ে সাজঘরে ফেরেন শূন্য রানে।

৬১ রানে উইকেট পতনের পর সম্মানজনক একটি অবস্থানে পৌঁছানোই চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়ে বাংলাদেশ দলের জন্য। আগের ১৪ টি২০ খেলে ১০ ইনিংস ব্যাট করে অপরাজিত ৩১ রানের একটি ইনিংসই সর্বোচ্চ ছিল শামীমের। প্রতিশ্রুতিশীল এই মারকুটে বাঁহাতি ব্যাটার যথেষ্ট সুযোগ পেয়েও নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ হয়ে বাদ পড়েন ২০২১ সালের নভেম্বরে। এরপর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গত সিরিজে হুট করেই জাতীয় দলে ফেরেন ঘরোয়া ক্রিকেটে আহামরি কিছু না করেই। তবে আইরিশদের বিপক্ষে এই সিরিজের প্রথম ম্যাচে চার নম্বরে নেমে ব্যাটিংয়ে উন্নতির ছাপ দেখাতে সক্ষম হন তিনি। সেদিন করেন ২০ বলে চার, ছয়ে ৩০ রান। গত ম্যাচে সুযোগই হয়নি ব্যাটিংয়ে নামার। কিন্তু এবার দারুণ সুযোগ পেয়ে যান নিজেকে প্রমাণ করার। আর ব্যাটিং ধসে বিপাকে পড়া বাংলাদেশ দলও আশান্বিত হয়ে তাকিয়ে থাকে শামীমের ব্যাটের দিকে। সবার মনোযোগের দৃষ্টিকে আস্থায় রূপদান করতে সক্ষম হন শামীম।

রিশাদ-তাসকিন ফিরে যাওয়ার পর নবম উইকেটে নাসুম আহমেদের সঙ্গে দারুণ জুটি গড়ে দলকে লজ্জাজনক পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে ভূমিকা রাখেন তিনি। নাসুমের সঙ্গে ৩৪ বলে ৩৩ রানের সংগ্রামী এক জুটি গড়ে ওঠে তার। তবে নাসুম ১৭ বলে চারে ১৩ রান করার পর সাজঘরে ফেরেন। এরপর দলের রান শতক পেরোনোই কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু শামীম এরপর শরীফুল ( বলে ) হাসান মাহমুদকে ( বলে অপরাজিত ) বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাটিং করেছেন।

আর এতেই ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক পেয়েছেন তিনি ৪০ বলে। এডায়ারের করা ১৯তম ওভারের চতুর্থ বলে ছক্কা পঞ্চম বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে অর্ধশতকে পৌঁছেন শামীম। নম্বর পজিশনে আন্তর্জাতিক টি২০-তে ২০১২ সালে বেলফাস্টে আয়ারল্যান্ড পাল্লেকেলেতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ফিফটি হাঁকান নাসির। একই পজিশনে এরপর ২০১৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খুলনায় ২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নেপিয়ারে অর্ধশতক হাঁকান মাহমুদুল্লাহ। শামীম তৃতীয় বাংলাদেশী হিসেবে এই পজিশনে আন্তর্জাতিক টি২০ ফিফটি পেলেন। তবে শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলেই ফিওন হ্যান্ডের মিডিয়াম পেসে উড়ে মারতে গিয়ে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন শামীম। দল অবশ্য ততক্ষণে একটা সম্মানজনক ১২৪ রানের পুঁজিতে থামে।

×