ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০

অধিনায়ক সাকিবের দাবি, সিরিজ জয়ের সন্তুষ্টি

বিশ্বকাপের আগে আরও ঘষা-মাজা প্রয়োজন

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:৫০, ১৬ মার্চ ২০২৩

বিশ্বকাপের আগে আরও ঘষা-মাজা প্রয়োজন

সাকিব আল হাসান

সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জেতার স্বপ্ন দেখেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। কারণ ঘরের মাটিতে যে দলটি টানা ৭টি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ জিতেছে, তাদের সামনে কোনো প্রতিপক্ষেরই হার এড়ানো কঠিন। তবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড ঠিকই ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে বেশ সহজেই জিতেছে। এরপর টি২০ ফরম্যাট নিয়ে কোনো আশাই করেনি বাংলাদেশ। কারণ ক্ষুদ্রতম এই ফরম্যাটে বাংলাদেশ কখনোই তেমন উন্নতির ছাপ দেখাতে পারেনি।

তাই নির্দিষ্ট কোনো দল থিতু হতে পারেনি। এবারও কয়েকটি পরিবর্তন নিয়ে তারুণ্য নির্ভর দল গড়া হয়। সেই দলটিই বিস্ময়করভাবে ৪ মাস আগে টি২০ বিশ্বকাপ শিরোপা জিতে প্রথম সিরিজ খেলতে নেমেই টাইগারদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে। সেজন্য অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও এটিকে অপ্রত্যাশিত সিরিজ জয় হিসেবেই দেখছেন। তবে সেই সঙ্গে তিনি দলের ক্রিকেটারদের মনোভাবে পরিবর্তন ও আত্মবিশ্বাসে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তবে পরবর্তী বিশ্বকাপের আগে আরও ঘষামাজা করে একটি দল গড়তে হবে বলেই মনে করছেন সাকিব।
১৭ বছর ধরে টি২০ খেলে এখন পর্যন্ত এই ফরম্যাটে নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে ধাতস্থ হতে পারেনি বাংলাদেশ দল। আর তাই বড় রকমের বিপর্যয়, পরাজয় এসেছে বারবার। কিন্তু পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগতে শুরু করেছে সর্বশেষ বিশ্বকাপ থেকে। অবশ্য সাকিবের দাবি তিনি গত বছর এশিয়া কাপে দলের নেতৃত্বে ফেরার পর থেকেই একটি পরিবর্তন শুরু হয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘আমি বলব যে পরিবর্তনা ...জানি না, এশিয়া কাপ থেকে বোধ হয় অধিনায়কত্ব শুরু হয়েছে আমার, আমরা হয়তো এখানে ম্যাচ জিতিনি কিন্তু আমরা খুবই ভালো ক্রিকেট খেলেছি।’

আর বিশ্বকাপ থেকেই যেকোনো দলের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আত্মবিশ্বাস জন্মেছে বলে দাবি সাকিবের। কারণ সর্বশেষ বিশ্বকাপে সত্যিকার অর্থেই দীর্ঘ সময় পর টি২০ ফরম্যাটে বেশ উন্নতির ছাপ দেখা গেছে বাংলাদেশ দলে। এ নিয়ে সাকিব বলেছেন, ‘আমার মনে হয় পুরো দলেরই বিশ্বকাপ থেকে এই আত্মবিশ্বাস জন্মেছে যে আমরা বড় দলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারি। বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে অনেক সংশয় ছিল, কিন্তু বিশ্বকাপে পারফরম্যান্স আমাদের বিশ্বাস দিয়েছে বড় দলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারি।’

এবার ফ্র্যাঞ্চাইজি আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি২০ আসরে ভালো করা ক্রিকেটাররাই সুযোগ পেয়েছেন। তরুণদের নিয়েই ইংলিশ পরীক্ষায় নেমে সাহসী টাইগাররা প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করতে সক্ষম হয়েছে। অথচ এমন ফল ছিল অকল্পনীয়। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘সিরিজ শুরুর আগে কেউ চিন্তাও করিনি আমাদের ম্যাচ জিততে হবে বা এমন কিছু। আমরা খুব ভালো ক্রিকেট খেলতে চেয়েছি। বিশেষত টি২০তে যেখানে ২, ৪, ১০/১৫ বা ২০ পার্থক্য তৈরি করে, ওই জায়গাতে অনেক বড় টিক মার্ক দিয়েছি।

এখানে যারা পাঁচ-ছয়জন ব্যাট করছে, তারা বিপিএলেও শীর্ষ রান সংগ্রাহক। যারা সর্বোচ্চ উইকেট নেওয়া, তারাও এখানে বল করেছে।’ এ দলটিকে নিয়ে আগামী বিশ্বকাপের আগে আরো ঘষামাজা দরকার বলে মনে করছেন সাকিব। তিনি বলেন, ‘যেভাবে খেলে জিতেছি, বিশেষত টি২০তে খুব বেশি সময় করিনি। ওদিক থেকে আমরা সন্তুষ্ট। যারা ভালো খেলছে, আমি প্রত্যাশা করছি তারা যতদিন সম্ভব ভালো খেলতে থাকবে। যারা হয়তো এত ভালো অবদান রাখতে পারিনি, তারা যদি ১০-১৫ শতাংশ বেশি রাখতে পারে তাহলে আমরা আরও ভালো দল হবো।

বিশ্বকাপের আগে আমাদের আরও অনেক কিছুই ঘষা-মাজা করতে হবে, যদি আমি পরবর্তী বিশ্বকাপের কথা ভাবি তাহলে বলব আমাদের শুরুটা অনেক ভালো হয়েছে। ইংল্যান্ড এত ভালো ফিল্ডিং দল আমরা ওদের থেকেও ভালো করেছি। এটা সত্যিই বড় অর্জন, আমি বলব এই সিরিজে আমাদের সবচেয়ে বেশি উন্নতি হয়েছে ফিল্ডিংয়ে যে সবসময়ই করা উচিত। আমাদের অন্তত এশিয়ার সেরা ফিল্ডিং দল যেন হতে পারি সেই চেষ্টা করব।’

×