ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

মানব মর্যাদাকে উন্নয়নের সূচক হিসেবে বিবেচনা একটি অভিনব দৃষ্টান্ত

প্রকাশিত: ২০:১৮, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩; আপডেট: ২০:৩৫, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

মানব মর্যাদাকে উন্নয়নের সূচক হিসেবে বিবেচনা একটি অভিনব দৃষ্টান্ত

গবেষণা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে ড. মসিউর রহমান

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত পিকেএসএফ মিলনায়তনে Sustainable Development, Human Dignity and Choice: Lessons from the ENRICH Program, Bangladesh শীর্ষক গবেষণা গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবং সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ-এর চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার এনডিসি এবং ‘সমৃদ্ধি’ কর্মসূচির ওপর উপস্থাপনা প্রদান করেন পিকেএসএফ-এর অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোঃ জসীম উদ্দিন।

পিকেএসএফ-এর সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসূচি ‘সমৃদ্ধি’ ২০১০ সালে শুরু হয়ে বর্তমানে দেশের ৬১টি জেলার ১৯৭টি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। এ কর্মসূচির আওতায় পিকেএসএফ-এর ১১১টি সহযোগী সংস্থার মাধ্যমে ১৩.৩৬ লক্ষ পরিবারের ৬০ লক্ষেরও সদস্যকে বিভিন্ন ধরনের সেবা প্রদান করা হচ্ছে। কর্মসূচিটির সম্ভাব্য কার্যকারিতা মূল্যায়ন করার লক্ষ্যে University of Sussex-এর অধ্যাপক ড. মার্টিন গ্রিলি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আসিফ এম. শাহান ও ড. শুভাশিস বড়ুয়া কর্তৃক একটি নিরপেক্ষ গবেষণা পরিচালিত হয়। গবেষণার ফলাফলের ভিত্তিতে Sustainable Development, Human Dignity and Choice: Lessons from the ENRICH Program, Bangladesh শীর্ষক গবেষণা গ্রন্থটি আন্তর্জাতিক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান Springer Nature প্রকাশ করে।

গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচনের পর প্রধান অতিথি ড. মসিউর রহমান বলেন, মর্যাদার ধারণা সচরাচর অর্থনীতি বা প্রবৃদ্ধি সংক্রান্ত আলোচনায় তেমন দেখা যায় না। এই গবেষণায় মানব মর্যাদাকে উন্নয়নের একটি সূচক হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে, যা অভিনব। ‘সমৃদ্ধি’ কর্মসূচি ভবিষ্যতে আরো সম্প্রসারিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ড. কাজী খলীকুজ্জমান বলেন, ‘সমৃদ্ধি’ কর্মসূচির মূল ধারণা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো’ দর্শনের দ্বারা গভীরভাবে অনুপ্রাণিত। এই কর্মসূচির আওতায় মানুষের জীবনচক্রের প্রতিটি ধাপে প্রয়োজনীয় সেবা ও সহায়তা দেয়া হয়, যাতে তারা তাদের বর্তমান সক্ষমতার নিরীখে বিদ্যমান সুযোগের সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারে এবং টেকসইভাবে নিজেদের ও সমাজের সমৃদ্ধি নিশ্চিত করতে পারে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্যে, পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার এনডিসি ‘সমৃদ্ধি’ কর্মসূচির বিভিন্ন অনুষঙ্গের ওপর আলোকপাত করে বলেন, কল্যাণমুখী বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য পিকেএসএফ চলতি অর্থবছরে ৮০ কোটি টাকা বরাদ্দ রেখেছে।

এছাড়া, প্রকাশিত গ্রন্থের ওপর উপস্থাপনা প্রদান করেন সহ-গবেষক ড. আসিফ এম. শাহান ও ড. শুভাশিস বড়ুয়া এবং গবেষণাটির ওপর আলোচনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. এম. এ. বাকী খলীলী এবং ইনস্টিটিউট ফর ইনক্লুসিভ ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ফাইন্যান্স (আইএনএম)-এর নির্বাহী পরিচালক ড. মোস্তফা কে. মুজেরী।

 

এমএস

×