ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

বিচার না পেয়ে বাবা মেয়ের আত্মহত্যা

প্রকাশিত: ০৫:২১, ৩০ এপ্রিল ২০১৭

বিচার না পেয়ে বাবা মেয়ের আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ শ্রীপুরে প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী শিশুকন্যাকে নিয়ে চলন্ত ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে শনিবার দিনমজুর ও তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত দিনমজুরের স্ত্রীর দাবিÑশিশুকন্যার ধর্ষণ ও গরু চুরির বিচার না পাওয়ায় এবং নির্যাতনের শিকার হওয়ায় এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ শ্রীপুরের গোসিঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবুল হোসেন ও তার ছেলে মিঠুনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। নিহতরা হলো- ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার কালাই গ্রামের হযরত মাহমুদ (৬৫) ও হযরতের পালিত মেয়ে আয়েশা আক্তার (৭)। নিহত আয়েশা আক্তার গাজীপুর জেলার শ্রীপুরের হেরা পটকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী। এলাকাবাসী জানায়, শনিবার সকালে হযরত মাহমুদ তার মেয়ে আয়েশাকে নিয়ে শ্রীপুর রেলগেট এলাকার এনএন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পাশে ঢাকা-ময়মনসিংহ রেললাইনের পাশে পায়চারী করছিল। সকাল ৯টার দিকে দেওয়ানগঞ্জগামী তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেন ওই এলাকায় এলে হযরত মাহমুদ প্রথমে তার মেয়েকে চলন্ত ট্রেনের নিচে ছুড়ে ফেলে নিজেও ওই ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন। এতে ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই বাবা ও মেয়ের মৃত্যু হয়। ৩০ বছর পূর্বে দিনমজুর হযরত মাহমুদ গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কর্ণপুর ছিটপাড়া গ্রামের হালিমাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর স্ত্রীকে নিয়ে হযরত তার শ^শুরবাড়িতে ঘরজামাই হিসেবে থাকেন। অভাব-অনটনের সংসারে যোগান দিতে হালিমা ভিক্ষাবৃত্তি ও অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করেন। নিঃসন্তান এ দম্পতি আয়েশাকে দত্তক নিয়ে লালনপালন করতেন। ফারুক নামের স্থানীয় এক বখাটে দু’মাস আগে আয়েশাকে ধর্ষণ করে। থানায় এ ব্যাপারে অভিযোগ দেয়া হলে ধর্ষক ও তার লোকজন হালিমা ও তার স্বামীর ওপর ক্ষুব্ধ হয়। পরবর্তীতে স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হোসেন এ ঘটনার বিচারের দায়িত্ব নেন। কিন্তু কোন মীমাংসা ছাড়াই তিনি বিষয়টি ধামাচাপা দেন।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২