ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১

বেইলি রোডে আগুন : সর্বশেষ খবর এখন পর্যন্ত যা জানা গেল

প্রকাশিত: ১২:১৫, ১ মার্চ ২০২৪; আপডেট: ১২:৫৮, ১ মার্চ ২০২৪

বেইলি রোডে আগুন : সর্বশেষ খবর এখন পর্যন্ত যা জানা গেল

বেইলি রোডে আগুন

রাজধানীর বেইলি রোডের একটি রেস্তোরাঁয় লাগা আগুনে এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন আরও ২১ জন। তাদের সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ফলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে সাততলা ভবনটিতে আগুন লাগে। আগুন নেভানোর পর হতাহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয়।

এদিকে শুক্রবার সকালে ভবনটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে আলামত সংগ্রহে কাজ করছে সিআইডিসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। 

আগুন লাগার প্রকৃত কারণ জানা না গেলেও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে র‍্যাব বলছে, গ্যাস লিকেজ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রধান মোহাম্মদ আলী মিয়া বলেছেন, রাজধানীর বেইলি রোডের বহুতল ভবনের নিচতলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ‘ভবনের আন্ডারগ্রাউন্ড (নিচতলা) থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে আমরা জেনেছি। তবে শর্টসার্কিট না গ্যাসের কারণে হয়েছে, সেটা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এখান থেকে আলামত সংগ্রহ করে ল্যাবে কেমিক্যাল টেস্ট করা হবে। এরপর আগুন লাগার প্রকৃত কারণ জানা যাবে।’

একই ধরণের তথ্য দিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরাও। তারা জানান, ভবনটি প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগার পর তা দ্রুত ওপরের দিকে ছড়িয়ে পড়ে। তবে বহুতল ভবনটির নিচে থাকা একটি চায়ের দোকানের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে দাবি করেন রিফাত নামের এক যুবক। 

শুক্রবার ভোর থেকে স্বজনদের সনাক্ত মতে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করার পর মরদেহ হস্তান্তর কাজ শুরু হয়। এর মধ্যে ৪১ জনের মরদেহ শনাক্ত করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৮টি মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ৫টি মরদেহ এখনো শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। 


যা বলছে ফায়ার সার্ভিস
ভবনটিতে কোনো অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল না বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা। ভবনটিতে একটি মাত্র সিঁড়ি ছিল এবং কোনো জরুরি বহির্গমন অর্থাৎ আগুন লাগলে জরুরি ভিত্তিতে বের হওয়ার কোনো ব্যবস্থা ছিল না। এছাড়া ভবনটিতে বাতাস চলাচলের ব্যবস্থাও পর্যাপ্ত ছিল না বলে জানিয়েছেন তারা।

তারা আরও জানান, বিল্ডিংটিতে বেশ কয়েকটি রেস্তোরাঁ ছিল এবং সিঁড়ির পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল গ্যাস সিলিন্ডার রাখা ছিল, যে কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়েছে।


রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক
রাজধানী ঢাকার বেইলি রোডের বাণিজ্যিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার (১ মার্চ) আলাদা শোকবার্তা দেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী।

শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি নিহতদের রুহের মাগফিরাত ও শান্তি এবং আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন। একই সঙ্গে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস‍্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

 এবি

×