ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

শিশুর ঈদ উৎসব

কারিমুন্নেছা হক

প্রকাশিত: ০২:০৭, ১৪ জুন ২০২৪

শিশুর ঈদ উৎসব

শিশুদের ঈদ মানেই বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস

শিশুদের ঈদ মানেই বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। শিশুরা কোনো উপলক্ষ পেলেই ছোটাছুটিতে কাটায় তাদের দিনগুলো। আর বাবা-মার যত ভাবনা বাড়ির ছোট সদস্যদের নিয়েই। নিজেরা যেমনই থাকুক ছোটরা যদি সুস্থ ও ভালো থাকে তবেই উৎসব পায় পূর্ণতা। ঈদের আনন্দ ছোটদের কাছে আসে ভিন্ন রকম ভালোলাগা নিয়ে। বড়দের ঈদ কখনো কখনো পানসে হলেও ছোটদের ঈদ বরাবরই আনন্দময়।

শুধু প্রজাপতির মতো ডানা মেলে ছুটে চলা। কাজের কোনো তাড়া নেই, সুন্দর ড্রেস পরে ঘোরাঘুরি আর খাওয়া-দাওয়া নিয়ে ব্যস্ত থাকে তারা। তাদের ভালোলাগা ও স্বাচ্ছন্দ্যময় জীবনযাপনের জন্য বাবা-মা থাকেন সর্বদাই ব্যস্ত। তাই তো ঈদের উৎসবে নিজেদের জন্য না হলেও বাসার ছোট সদস্যদের জন্য কিনতে হয় নতুন জামা-কাপড়।
শিশুদের জন্য ফ্যাশন ডিজাইনাররাও প্রতিনিয়ত তৈরি করছে পাশ্চাত্য ধাঁচ ও কাটে নিত্যনতুন ড্রেস। ফ্যাশন হাউস ঘুরে দেখা যায় এবারে তাদের জন্য সালোয়ার কামিজ, ফ্রক, টপস, পাঞ্জাবি, শার্টসহ রকমারি সব পোশাক তো থাকছেই সঙ্গে আছে বাবা-ছেলে, মা-মেয়ের ডুয়েট পোশাক, মেয়ে শিশুদের জন্য টিউনিক, ফ্রক, ওভেন সেট, সালোয়ার কামিজ, ঘাগরা চোলি সেট ও কমফোর্ট লেগিংস থাকছে। 
ছেলে শিশুদের জন্য পাঞ্জাবি, পোলো ও টি-শার্ট, ক্যাজুয়াল শার্ট এবং প্যান্টস ও পাজামা ডিজাইন করা হয়েছে। নবজাতকদের জন্যও থাকছে ঈদের রঙিন আয়োজন। পোশাকের সৌন্দর্য বাড়াতে করা হয়েছে স্ক্রিনপ্রিন্ট, ব্লকপ্রিন্ট, ডিজিটালপ্রিন্ট, হাতের কাজসহ নানা ভ্যালু অ্যাডেড মিডিয়ার ব্যবহার। রং হিসেবে আছে লাল, হলুদ, অ্যাশ, মেরুন, সবুজ, অফ-হোয়াইট এবং মাল্টিকালার কম্বিনেশন।

বাহারি রঙে রাঙানো কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়েছে এসব পোশাক। তবে শিশুদের জন্য যে ধরনের পোশাকই নির্বাচন করা হোক না কেন, তা যেন আঁটসাঁট না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বাতাস চলাচল করতে পারে এমন ঢিলেঢালা পোশাক শিশুদের জন্য বেশি উপযোগী। আজকাল ফ্যাশন হাউসগুলোও শিশুদের জন্য তৈরি করছে আরামদায়ক নান্দনিক পোশাক। আর শিশুরা সাধারণত পোশাকের সঙ্গে ম্যাচ করে জুতা পরতে পছন্দ করে। যেহেতু ঈদ দরজায় কড়া নাড়ছে। তাই আর দেরি কেন এখনই আদরের সোনামনির জন্য কিনে ফেলুন স্বাচ্ছন্দ্যময় ড্রেস ও ম্যাচিং শু। 
কোথায় পাবেন ॥ লা রিভ, টুয়েলভ, আড়ং, রঙ বাংলাদেশ, বিশ্বরঙ, কে ক্র্যাফট, অঞ্জন’স, সীমান্ত স্কয়ার, বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্কসহ বিভিন্ন শপিং মল ও মার্কেটে পাবেন শিশুর আরামদায়ক পোশাক। দাম পড়বে ৫০০ থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যে। একটু কম দামের জন্য বেছে নিতে পারেন রাজধানীর নিউ মার্কেট, নূরজাহান মার্কেট, বঙ্গবাজার, মৌচাক মার্কেট, তালতলা মার্কেট। গ্যাবার্ডিন ও জিনসের প্যান্টগুলোর দাম পড়বে ৩০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে। 

×