ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১

স্বস্তিতে পথ চলা

কারিমুন্নেছা হক

প্রকাশিত: ০০:২৫, ৪ মার্চ ২০২৪

স্বস্তিতে পথ চলা

এই আবহাওয়ায় স্লিপার বেশ আরামদায়ক

এই আবহাওয়ায় স্লিপার বেশ আরামদায়ক। মেয়েরা কুর্তি, টপস, ফতুয়া বা লং কামিজের সঙ্গে সামনে ক্রস বেল্ট দিয়ে আটকানো স্লিপার বেছে নিন। এতে আপনার পায়ের ত্বক ভালো থাকবে। ছেলেরা সাধারণত টি-শার্ট, পাঞ্জাবি বা ফতুয়ার সঙ্গে অনায়াসে পরতে পারেন স্লিপার। নরম এবং একটু পুরু সোলের স্লিপারগুলো আপনার পায়ে দেবে পুরোপুরি স্বস্তি। পায়ের বেশির ভাগ খোলা থাকায় পা ঘামে ভেজার আশঙ্কা থাকবে না। অপরদিকে উঁচু সোলের কারণে পায়ে ধুলা লাগার ভয় থাকবে কম।

পাশাপাশি স্যান্ডেল আরামদায়ক হলেও সব জায়গায় পরা সম্ভব হয় না। অফিসের কোনো অনুষ্ঠান, বিয়ে বাড়ি বা যে কোনো উৎসবে চাইলেই স্যান্ডেল পরা যায় না। এসব জায়গায় নিজেকে স্টাইলিশ বা ফ্যাশনেবলভাবে উপস্থাপন করতে ট্রেন্ডি জুতার কোনো বিকল্প নেই

এসেছে ঋতুরাজ বসন্ত। নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়া বিরাজমান। কখনো ভ্যাপসা গরম, আবার কখনো শীতল অনুভূতি। তাই প্রকৃতির সঙ্গে বদলে যাচ্ছে আমদের জীবন-যাপনের হালচাল। পোশাক থেকে শুরু করে জুতা সবটাতেই পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে জুতার তাক থেকে হয়তো অনেকেই খুঁজে নিয়েছেন এ সময় উপযোগী জুতা। আর যারা এখনো বেছে নিতে পারেননি, তারা মার্কেট থেকে নিতে পারেন খোলা স্লিপার।

ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্যই রয়েছে বিভিন্ন ধরনের নান্দনিক জুতা। তবে মেয়েদের আরামদায়ক নানান জুতা মার্কেটে থাকলেও ছেলেদের জুতায় বৈচিত্র্য থাকে কম। তাই ছেলেদের জুতা নির্বাচনে ঝামেলায় পড়তে হয় বেশি। কেমন হবে গরমের সময়ে জুতার ধরন, এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েন অনেকেই। চলুন, তবে জেনে নেয়া যাক এই গরমে আরাম পেতে কি ধরনের জুতা হবে স্বাচ্ছন্দ্যময়-
স্লিপার : এই আবহাওয়ায় স্লিপার বেশ আরামদায়ক। মেয়েরা কুর্তি, টপস, ফতুয়া বা লং কামিজের সঙ্গে সামনে ক্রস বেল্ট দিয়ে আটকানো স্লিপার বেছে নিন। এতে আপনার পায়ের ত্বক ভালো থাকবে। ছেলেরা সাধারণত টি-শার্ট, পাঞ্জাবি বা ফতুয়ার সঙ্গে অনায়াসে পরতে পারেন স্লিপার। নরম এবং একটু পুরু সোলের স্লিপারগুলো আপনার পায়ে দেবে পুরোপুরি স্বস্তি। পায়ের বেশির ভাগ খোলা থাকায় পা ঘামে ভেজার আশঙ্কা থাকবে না। অপরদিকে উঁচু সোলের কারণে পায়ে ধুলা লাগার ভয় থাকবে কম।

পাশাপাশি স্যান্ডেল আরামদায়ক হলেও সব জায়গায় পরা সম্ভব হয় না। অফিসের কোনো অনুষ্ঠান, বিয়ে বাড়ি বা যে কোনো উৎসবে চাইলেই স্যান্ডেল পরা যায় না। এসব জায়গায় নিজেকে স্টাইলিশ বা ফ্যাশনেবলভাবে উপস্থাপন করতে ট্রেন্ডি জুতার কোনো বিকল্প নেই।
স্নিকার্স : গরমে সবচেয়ে স্টাইলিশ লাগে স্নিকার্স। এই ধরনের জুতা বেশ আরামদায়কও। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে বেছে নিন আপনার পছন্দের জুতাটি। ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্যই নান্দনিক ¯িœকার্স রয়েছে ব্রান্ড অথবা নন ব্রান্ডের যে কোন জুতার দোকানে। পাঞ্জাবি, টিশার্ট, বা একটু ঢিলেঢালা পোশাকের সঙ্গে স্নিকার্স বেশ মানানসই।

মোক্কাসিন : স্টাইলিশ লুক আর আরামদায়ক অনুভূতি দিতে এই জুতা অতুলনীয়। এ ধরনের জুতা সব পোশাকের সঙ্গেই মানিয়ে যায়। নরম চামড়ার তৈরি এই জুতাগুলো ফিতাসহ এবং ফিতা ছাড়াও পাওয়া যায়। মোজা ছাড়া পরা যায় বলে এই ধরনের জুতা গরমের সময় বেশ উপযোগী।
এসপাড্রিলস : গরমের জন্য আরামদায়ক এসপাড্রিল জুতা। যে কোনো পোশাকের সঙ্গে এটি মানিয়ে যায়। নরম পাটের সোলের এই জুতার ওপরের অংশ তৈরি হয় ক্যানভাস দিয়ে। খুবই হালকা ধরনের এবং বাতাস চলাচলের জন্য উপযোগী। জুতাগুলো তাই গরমেও আরাম দেয়।
বোট স্যু: গরমে ফরমাল লুক দেয় বোট স্যু। এছাড়া বোট স্যু হতে পারে একটি সময় উপযোগী পছন্দের জুতাও। কেননা গরমে জুতার সঙ্গে মোজা পরা খুব অস্বস্তিকর বিষয়। আর মোজা ছাড়াই পরে নিতে পারেন পছন্দের বোট স্যু। এ জুতা যে কোনো পোশাকের সঙ্গে পরতে পারেন। লেদার কিংবা ক্যানভাসের তৈরি এই জুতার সোল তৈরি হয় রাবার দিয়ে। আর মোজা ছাড়াই বোট স্যু আপনাকে দেবে স্টাইলিশ লুক।

ছেলেরা গরম বা শীত যাই থাকুক আলোচনা অনুষ্ঠান, দাপ্তরিক বৈঠক, সম্মেলন ও পরামর্শসভায় অংশ নেওয়ার পরিকল্পনা থাকলে ফিতা বাঁধা যায়, এমন চামড়ার জুতা ব্যবহার করুন। কালো রংয়ের স্যুটের সঙ্গে সাধারণত কালো জুতাই মানানসই। যদিও ধূসর রংয়ের স্যুটের সঙ্গে কালো কিংবা বাদামি দুই রংয়ের জুতাই পরা যায়।

এ ক্ষেত্রে স্যুটের রং বুঝে জুতা নির্বাচন করুন। মেয়েরা এসব ক্ষেত্রে স্লিকার্স বেছে নিতে পারেন। বর্তমানে আঁটসাঁট জুতা পরলে পা ঘেমে অস্বস্তি লাগতে পারে। তাই দূরে কোথায় যাওয়া বা বন্ধুদের আড্ডায় পরার জন্য অবশ্যই খোলা জুতা পরুন, যা আপনাকে আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্য দুটোই দেবে। 
ছবি: রঙ বাংলাদেশ

×