ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১৮ চৈত্র ১৪২৯

ফ্যাশনে মোজা

জান্নাতুল রুহানি

প্রকাশিত: ২২:১২, ১৯ মার্চ ২০২৩

ফ্যাশনে মোজা

.

জুতা অথবা স্যান্ডেলের সঙ্গে মোজা পরা হাল ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। প্রয়োজন এবং স্টাইল দুয়ের সমন্বয়ে বাজারে পাওয়া যায় বিভিন্ন মোজা। শীতকালে ঠান্ডা নিবারণে মোজা পরলেও গ্রীষ্মকালে পা-কে রক্ষা এবং স্টাইলের জন্যই বেছে নিচ্ছেন অনেকে। রোদের খরতাপ থেকে পায়ের ত্বককে রক্ষা করে মোজা। ছাড়া যাদের পায়ের গোঁড়ালি ফাটা তাঁদের জন্য এটি খুবই উপকারি। ফলে দেখতে যেমন দৃষ্টিকটু লাগবে না। তেমনি ফ্যাশনে যোগ করবে ভিন্ন মাত্রা।

নান্দনিক মোজা: সুতি নাইলন উপকরণের ওপর নকশা করা সুন্দর মোজার সম্ভার রয়েছে বাজারে। দিন যতই যাচ্ছে ততই নান্দনিক ডিজাইনের মোজা তৈরি হচ্ছে। সুতার নকশা করা মোজা ছাড়াও নানা রকম মজার মজার চরিত্র এবং ডোরাকাটা, বল প্রিন্ট, কার্টুন, ফুল, জীবজন্তু ইত্যাদির নকশাও হচ্ছে এখন। ফিংগার কাটিং করা স্কিন কালারের মোজা পরতেও দেখা য়ায় টিনএজ তরুণীদের। জমকালো ভাব আনতে লেস দেওয়া মোজাও বেশ চলছে। পোশাকের রং এবং জুতার ধরন এখানে গুরুত্ব পাবে। অ্যান্টি-অডর মোজা, অর্থাৎ দুর্গন্ধহীন মোজাও এখন পাওয়া যায়। যাঁরা স্নিকারের সঙ্গে নিয়মিত মোজা পরেন, অনেক সময়ই তাঁদের পা কিংবা মোজা থেকে দুর্গন্ধ বের হয়, তাঁদের জন্য এই মোজা।

পশমের তৈরি ফ্লাফি মোজাও চলছে, কারণ এই ধরনের মোজা বেশি আরামদায়ক, দেখতেও বেশ। তা ছাড়া খাটো উচ্চতার সুতি মোজা, সিল্কি গ্লসি মোজাও অনেকের পছন্দের তালিকায় থাকে। তবে সবকিছু ছাপিয়ে এখন পছন্দের শীর্ষে যেন লোফার।

যাঁরা পা দেখাতে চান, তাঁদের জন্য মোজা। গোঁড়ালি পর্যন্ত মোজা বেশি চলছে এখন। দেখতেও স্মার্ট লাগে। লোফার কাটিংয়ের জুতা, বোট শু, ব্যালেরিনা জুতার সঙ্গে মানিয়ে যায়। খাটো মোজায় স্টাইল আরাম-দুটোই পাওয়া যায়। কর্মক্ষেত্রে বেছে নিন হালকা মোজা। অফিস কিংবা আনুষ্ঠানিক কোথাও যাওয়ার জন্য সাধারণ উচ্চতার মোজা সবাই পছন্দ করেন। সুতি কাপড়ের ওপরই এই মোজা বেশি দেখা যায়।

কম উচ্চতার মোজা বর্তমানে বেশ জনপ্রিয়। জুতা পরলে এই মোজা আর দেখা যায় না। স্নিকারটাই দেখা যায় বেশি। তরুণরা এই ধরনের মোজা পরতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। ছেলেমেয়ে উভয়ের জন্যই পাওয়া যায় মোজা। জুতার নামের সঙ্গে মিলিয়ে এখন মোজারও নামকরণ দেখা যাচ্ছে। একেবারেই খাটো উচ্চতার মোজাকে  লোফার মোজা বলা হয়, যেটা জুতার নাম থেকে এসেছে। আবার একটু খাটো মোজাকে বলা হচ্ছে ব্যালেরিনা মোজা, যা ব্যালেরিনা শু- নাম থেকে এসেছে। সবসময় একাধিক মোজা সংগ্রহে রাখুন। দুই দিনের বেশি এক মোজা না পরাই ভালো। ধুয়ে পুনরায় ব্যবহার করুন।

কোথায় পাওয়া যায় :

সুপার মল থেকে ফুটপাত, মোজা কিনতে পারবেন সব জায়গা থেকেই। অনেক স্কুলের সামনে ভ্যানেও বিক্রি করা হয় মোজা। আছে অনলাইনভিত্তিক দোকানও। দাম পড়বে ১০০ টাকা থেকে ৪০০ টাকার মধ্যে।