ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

যেসমস্ত দেশ জনগণের কাছ থেকে কর নেয় না

প্রকাশিত: ১৫:৫৮, ২৯ মে ২০২৩

যেসমস্ত দেশ জনগণের কাছ থেকে কর নেয় না

কর আদায় 

করকে আয়ের প্রধান উৎস হিসেবে দেখা হয় বিশ্বের অধিকাংশ দেশেই। সরকার জনগণের কাছ থেকে প্রত্যক্ষ কর এবং পরোক্ষ কর আদায় করে থাকেন। জনগণের কাছ থেকে সংগৃহীত করের মাধ্যমে সরকার দেশে উন্নয়নমূলক কাজ করে।

বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ অনেক দেশেই জনগণকে কর দিতে হয়। কিন্তু কিছু দেশ আছে যেখানে এক টাকাও ট্যাক্স দিতে হয় না। তা সত্ত্বেও এসব দেশের জনগণ সরকারের কাছ থেকে ভালো সুযোগ-সুবিধা পায়। শুধু তাই নয়, এই দেশগুলো দ্রুত উন্নতি করছে।জেনে নিন কোন কোন দেশ জনগণের কাছ থেকে কর আদায় করে না-

বাহামাস

পর্যটকদের স্বর্গ বলা হয়, পশ্চিম গোলার্ধে অবস্থিত দেশটি। এই দেশের বিশেষ বিষয় হল এখানে বসবাসকারী নাগরিকদের আয়কর দিতে হয় না। কিন্তু সরকার ভ্যাট এবং স্ট্যাম্প ডিউটির মতো চার্জ ধার্য করে।সংযুক্ত আরব আমিরাত

সংযুক্ত আরব আমিরাত উপসাগরীয় অঞ্চলের অন্যতম ধনী দেশ। তেল ও পর্যটনের কারণে সংযুক্ত আরব আমিরাতের অর্থনীতি খুবই শক্তিশালী। তাই সংযুক্ত আরব আমিরাতের লোকেরা আয়কর থেকে অব্যাহতি পেয়েছে। 

বাহারাইন

উপসাগরীয় দেশ বাহারাইনও নাগরিকদের তাদের উপার্জনের ওপর কোনও আয়কর দিতে হয় না। বাহারাইনে সরকার জনগণের কাছ থেকে কর আদায় করে না।

পানামা

মধ্য আমেরিকার দেশ পানামার নাগরিকদের কোনও কর দিতে হবে না। এটি সৈকত এবং ক্যাসিনো একটি বড় চেইন আছে। যেখানে মূলধন লাভের উপরও কর দিতে হয় না।ওমান

বাহরিন ও কুয়েত ছাড়াও এই তালিকায় রয়েছে উপসাগরীয় দেশ ওমান। ওমানের নাগরিকদের আয়কর দিতে হয় না। কারণ ওমানের তেল ও গ্যাস সেক্টর শক্তিশালী বলে মনে করা হয়।

কাতার

ওমান, বাহরিন ও কুয়েতের মতো কাতারের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। তেল খাতেও কাতার বেশ শক্তিশালী। এই দেশটি নিঃসন্দেহে ছোট কিন্তু এখানে বসবাসকারী মানুষ অনেক ধনী। এখানেও কোন আয়কর ধার্য করা হয় না। 

সূত্র- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস
 

টিএস

×