ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

কাগজের ঠোঙায় ঝালমুড়ি বিক্রি বন্ধের নির্দেশ

প্রকাশিত: ১৮:৫৮, ১ অক্টোবর ২০২৩

কাগজের ঠোঙায় ঝালমুড়ি বিক্রি বন্ধের নির্দেশ

খবরের কাগজের ঠোঙায় ঝালমুড়ি।

কোথাও যেতে যেতে বা প্রিয়জনের সঙ্গে চলতে চলতে কাগজের ঠোঙায় ঝালমুড়ি খাওয়ার মজাটাই আলাদা। শিঙাড়া থেকে জেলাপি, কচুরি, তেলেভাজা- মুখরোচক সব খাবার তো  খবরের কাগজের ঠোঙাতেই বাড়িতে আসে। আবার রাস্তার ধারের দোকানে দাঁড়িয়ে খবরের কাগজ দিয়ে বানানো প্লেটে পাঁপড়িচাট, ভেলপুরি খেলে সেই স্বাদ যেন মুখে লেগে থাকে। 

সম্প্রতি ‘ফুড সেফটি অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ড অথরিটি অফ ইন্ডিয়া’ (এফএসএসএআই)-র তরফে নির্দেশ এসেছে, খাদ্য সামগ্রী প্যাকিং, সংরক্ষণ এবং পরিবেশনের জন্য খবরের কাগজের ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

খবরের কাগজে ব্যবহৃত কালিতে কিছু রাসায়নিক রয়েছে, যা বিভিন্ন রোগের কারণ হতে পারে। খবরের কাগজে ব্যবহার করা কালিতে থাকে একাধিক বায়ো-অ্যাকটিভ পদার্থ। যা খবরের কাগজে মুড়ে রাখা বা ঠোঙায় রাখা খাবারে সহজেই সংক্রমিত হয় ও শরীরের উপর বিষাক্ত প্রভাব ফেলে। আবার এই কালিতে যে ‘সলভেন্ট’ ব্যবহার করা হয় যা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে।

এফএসএসআই প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, খবরের কাগজের ঠোঙায় খাবার রাখা খুবই অস্বাস্থ্যকর। পরিষ্কার, স্বাস্থ্যকর ভাবে রান্না করা হলেও খবরের কাগজে মুড়ে রাখলে খাবার থেকে বিষক্রিয়া হতে পারে। খবরের কাগজে প্রিন্টিং ইঙ্কে ব্যবহৃত রং, পিগমেন্ট, প্রিজারভেটিভ, রাসায়নিক, প্যাথজেনিক মাইক্রো অরগ্যানিজম পেটে গেলে বড়সড় শারীরিক সমস্যা হতে পারে। কাগজে থাকা রাসায়নিক পেটে গেলে হজমের সমস্যা হতে পারে। এর ফলে খবরের কাগজে মোড়ানো খাবার খাওয়ার অভ্যাসে ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

এফএসএসএআই-র প্রধান নির্বাহী কর্তা জি কমলা বর্ধন রাও বলেছেন, ‘সারাদেশে ক্রেতাদের এবং খাদ্য বিক্রেতাদের খাদ্য সামগ্রী পরিবেশন এবং সংরক্ষণের জন্য খবরের কাগজের ব্যবহার অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। ক্যানসারের মতো মারণরোগের ঝুঁকি এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

 

এম হাসান

×