ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১

ইউক্রেনের হামলা

আরেকটি রুশ শহর ও দুই তেল শোধনাগার আক্রান্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:৪৩, ১ জুন ২০২৩

আরেকটি রুশ শহর ও দুই তেল শোধনাগার আক্রান্ত

রাশিয়ার শেবেকিনো শহরে ইউক্রেনের গোলায় ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকটি গাড়ি

রাশিয়া জানিয়েছে, ইউক্রেন চলতি সপ্তাহে তৃতীয়বারের মতো তাদের একটি শহরে গোলা হামলা চালিয়েছে, পাশাপাশি দুটি তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলাও চালিয়েছে। মস্কোর আক্রমণের অবসান ঘটাতে পশ্চিমা সমর্থনপুষ্ট ইউক্রেন একটি পাল্টা আক্রমণ শুরুর প্রস্তুতির সময়টিতে রাশিয়ার ভূখ-ে তাদের হামলার সংখ্যা বৃদ্ধির ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। রাশিয়ার এসব প্রতিবেদনের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ইউক্রেন কোনো মন্তব্য করেনি, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
বেলগোরোদ অঞ্চলের গভর্নর বিচেস্লাভ গ্লাদকোভ জানিয়েছেন, শেবেকিনো শহরে ইউক্রেনীয় গোলায় চারজন আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে দুইজনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। এর পাশাপাশি একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবন, চারটি বাড়ি, একটি স্কুল ও বৈদ্যুতিক লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পরে গ্লাদকোভ রাশিয়ার টেলিভিশনকে জানান, শেবেকিনোতে আরও গোলা হামলা চালিয়েছে ইউক্রেন এবং একটি শিল্পকেন্দ্রে আগুন ধরে গেছে। ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ও দক্ষিণাঞ্চলীয় অঞ্চলগুলো থেকে রাশিয়ার বাহিনীগুলোকে তাড়াতে কয়েক দিনের মধ্যে বা কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তারা পাল্টা আক্রমণ শুরু করবে বলে জানিয়েছে কিয়েভ। উভয় পক্ষই জানিয়েছে, এই পাল্টা আক্রমণকে সামনে রেখে তারা পরস্পরের বাহিনীগুলো ও সামরিক সরঞ্জাম জড়ো করার প্রক্রিয়াকে লক্ষ্যস্থল করছে।
বুধবার রাশিয়ার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তাদের বৃহত্তম তেল রপ্তানিকারী বন্দর নভোরাসিস্ক থেকে ৬৫ থেকে ৮০ কিলোমিটার পূর্বে দুটি তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলা হয়েছে। একটি শোধনাগারের আগুন দ্রুত নিভিয়ে ফেলার কথা জানালেও এ হামলার জন্য কাউকে দায় দেননি তারা। ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর বাখমুতে বেসরকারি বাহিনী ওয়াগনারের সেনাদের সরিয়ে সেখানে নিয়মিত বাহিনীর ছত্রীসেনা ও মোটরাইজড রাইফেল ইউনিটের সেনাদের মোতায়েন করা হচ্ছে।
বুধবার রাতে ইউক্রেনের সামরিক কর্মকর্তারা জানান, রাশিয়া সেনা বদল করতে থাকলেও গোলাবর্ষণের তীব্রতা বাড়িয়েছে। ইউক্রেনের সেনাদের পূর্বাঞ্চলীয় দলের মুখপাত্র সেরহি চেরাভাতি ইউক্রেনীয় টেলিভিশনকে বলেছেন, ‘এই আবর্তনে তাদের শক্তি বৃদ্ধি হয়েছে না কমেছে তা আসছে দিনগুলোতেই বোঝা যাবে।’ রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ১০০০ কিলোমিটার ফ্রন্ট লাইনের দোনেৎস্ক প্রদেশ অংশে তারা ইউক্রেনীয় বাহিনীগুলোকে প্রায় দুটি এলাকা থেকে হটিয়ে দিয়েছে। তবে রয়টার্স দুই পক্ষের এসব প্রতিবেদন স্বতন্ত্রভাবে যাচাই করতে পারেনি বলে জানিয়েছে।

×