ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

যুক্তরাষ্ট্রে মানুষের চেয়ে বন্দুক বেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:২৯, ২৯ মার্চ ২০২৩

যুক্তরাষ্ট্রে মানুষের চেয়ে বন্দুক বেশি

যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রির জন্য রাখা অস্ত্র

যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্রের দৌরাত্ম্য আবার সামনে আনল টেনেসির স্কুলে গুলিতে সাত জনের মৃত্যুর ঘটনা। মানুষের চেয়ে যদি কোনো দেশে বন্দুকের সংখ্যা বেশি থাকে, সেখানে এই ধরনের ঘটনা বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা বেশিই থাকে। যুক্তরাষ্ট্রে তাই ঘটছে। সোমবার টেনেসি রাজ্যের ন্যাশভিল শহরে বন্দুক হামলার পর সিএনএন এক প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্নেয়াস্ত্রের আদ্যোপান্ত তুলে ধরেছে। তাতে বলা হয়েছে, উন্নত দেশগুলোর মধ্যে বন্দুকের সহিংসতার পরিসংখ্যানে সবচেয়ে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সুইজারল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা স্মল আর্মস সার্ভের (এসএএস) হিসেবে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ১০০ জন নাগরিকের বিপরীতে ১২০টি করে আগ্নেয়াস্ত্রের মালিকানা রয়েছে।

বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রই একমাত্র দেশ, যেখানে জনসংখ্যার চেয়ে আগ্নেয়াস্ত্র বা বন্দুকের সংখ্যা বেশি। পরিসংখ্যানে এর পরের অবস্থানে থাকা অঞ্চলটি হচ্ছে ফকল্যান্ড আইল্যান্ড, যেখানে প্রতি ১০০ জনের বিপরীতে আগ্নেয়াস্ত্রের সংখ্যা ৬২ দশমিক ১০। অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় অর্ধেক। তৃতীয় অবস্থানে থাকা দেশটি হলো ইয়েমেন। যুদ্ধকবলিত দেশটিতে প্রতি ১০০ জনের বিপরীতে ৫৩টি আগ্নেয়াস্ত্র থাকার তথ্য দিচ্ছে এসএএস। এই পরিসংখ্যান থেকেই স্পষ্ট যে যুক্তরাষ্ট্রে কেন 
অবৈধ অস্ত্র, চোরাচালান ও অনিবন্ধিত অস্ত্রের হিসাব না পাওয়ায় এবং যুদ্ধকবলিত এলাকার হিসাব নিরূপণ অসাধ্য হওয়ায় সাধারণ নাগরিকদের কাছে ঠিক কত সংখ্যক আগ্নেয়াস্ত্র বা বন্দুক রয়েছে, তার সুনির্দিষ্ট পরিসংখ্যান পাওয়া সম্ভব না হলেও এসএএসের গবেষকদের হিসেবে বিশ্বজুড়ে ৮৫ কোটি ৭০ লাখ বেসামরিক আগ্নেয়াস্ত্র বা বন্দুক রয়েছে।

×