ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

১২ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি

প্রকাশিত: ২১:১৪, ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

১২ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু

ভূমধ্যসাগরে তিউনিসিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার বিপজ্জনক ক্রসিংয়ে

ভূমধ্যসাগরে তিউনিসিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার বিপজ্জনক ক্রসিংয়ে তিন নারী ও এক শিশুসহ ১২ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যুর কথা জানিয়েছে ইতালির কোস্টগার্ড। শুক্রবার তারা জানায়, আগের রাতে একটি ছোট মাছ ধরার নৌকা তীরে তুলে আনার পর সেখান থেকে ৮ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃতদেহ এবং ৪২ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। এই অভিবাসন প্রত্যাশীদের মধ্যে মালি, আইভরি কোস্ট, গিনি, ক্যামেরুন, বুরকিনা ফাসো ও নাইজারের নাগরিকরা রয়েছেন। খবর আলজাজিরার।
উদ্ধার অভিযান শুরুর আগে ওই নৌকায় থাকা মৃত্যুপথযাত্রী মায়ের হাত গলে তার চার মাস বয়সী শিশু সমুদ্রে পড়ে যায়; আরেক ব্যক্তিও নৌকা থেকে উধাও হয়ে যান। কয়েকদিন আগে তিউনিসিয়া থেকে নৌকটি যাত্রা শুরু করেছিল; যাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে, তারা সবাই হাইপোথারমিয়াতে (প্রচ- ঠান্ডায় শরীরের তাপমাত্রা কমে গিয়ে) মারা গেছে বলেই মনে করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার মাল্টার কর্তৃপক্ষ ইতালির কোস্টগার্ডকে অভিবাসন প্রত্যাশীবোঝাই ওই নৌকাটির কথা জানায়; ভূমধ্যসাগরের যেখানে নৌকাটি শনাক্ত হয়েছিল, সেটি মাল্টার নিয়ন্ত্রণাধীন।
বিপুল সংখ্যক অভিবাসন প্রত্যাশীকে এ বছরও ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালিতে পৌঁছানোর চেষ্টা করতে দেখা যাচ্ছে। উদ্ধার জাহাজের অনুপস্থিতিতেই শুক্রবার ভোরের আলো ফোটার আগের রাতে ইতালির কর্তৃপক্ষকে ১৫৬ জনকে বহন করা আরও তিনটি নৌকাকে লাম্বেদুসা দ্বীপে নিয়ে যেতে হয়েছে। ‘উদ্ধার, তীব্র আলো, অ্যাম্বুলেন্স, বাসে লোকজনকে নিয়ে যাওয়া, লোকজনের চোখ ভয়ে স্ফীত, লোকজনকে বাঁচানোর আরেকটি রাত গেল। এভাবে কতদিন যাবে? এই দ্বীপকে আর কত মৃতদেহ গ্রহণ করতে হবে?’ ফেসবুকে লিখেছেন লাম্পেদুসার মেয়র ফিলিপো মানিনো।
ইতালিতে যে অভিবাসন প্রত্যাশীরা ছুটছে, তাদের বেশিরভাগই উত্তর আফ্রিকার। চলতি বছর এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৯৬৩ অভিবাসন প্রত্যাশী সমুদ্রপথে ইতালিতে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছে, ২০২২ সালের একই সময়ে এই সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৩৫, ২০২১ এ ছিল মাত্র এক হাজার ৩৯ জন, বলছে ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য।

২০২২ সালে নৌকায় করে সংখ্যা ছিল এক লাখ ৫ হাজার ১৪০ অভিবাসী ইতালিতে পৌঁছেছিলেন, তার আগের বছর এই সংখ্যা ছিল ৬৭ হাজার ৪৭৭, ২০২০ এ ছিল ৩৪ হাজার ১৫৪। জাতিসংঘের অনুমান, কেবল ২০২২ সালেই মধ্য ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করা প্রায় এক হাজার ৪০০ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে।

×